১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ডায়াবেটিস ও মানসিক রোগ

১০ অক্টোবর বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। প্রতিবছর এ দিবসটি সকল মানুষকে নিজের ও সকলের মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতন হয়ে, মানসিক স্বাস্থ্য রক্ষায় যতœবান হতে এবং সম্মানজনকভাবে জীবনযাপন করতে উৎসাহ দেয়।

আমরা এখানে ডায়াবেটিক রোগীর মানসিক সমস্যা ও করণীয় নিয়ে আলোচনা করছি।

ডায়াবেটিস মানুষের জীবন যাত্রাকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করে। ডায়াবেটিসের কারণে কারও কারও মানসিক অবসাদ দেখা দিতে পারে। তবে ডায়াবেটিস নিকটবর্তীর দুরবর্তীভাবে নানাবিধ মানসিক সমস্যার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। আবার মানসিক রোগের তীব্রতায় যারা ভুগছেন তাদের ডায়াবেটিস হলে তা নিয়ন্ত্রণ করাও বেশ কঠিন হয়ে পড়ে। বিশেষত যাদের রক্তের গ্লুকোজ বেশ বেশি মাত্রায় থাকে। যাদের ইনসুলিন ইনজেকশন নিয়ে ডায়াবেটিসের চিকিৎসা বাধ্যতামূলক হয়ে দাঁড়ায়, তাদের বড় ধরনের মানসিক রোগ চিকিৎসার ক্ষেত্রে কিছুটা সমস্যা করতে পারে। সে সব রোগী সর্বদা অতি সংবেদনশীলতায় ভুগেন, তাদের রক্তে গ্লুকোজ ও একটু আলাদাভাবে ডায়াবেটিসের কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হচ্ছে সাম্প্রতিককালের কিছু নতুন রিপোর্ট নবতর ওষুধ দিয়ে মানসিক রোগের চিকিৎসা করার ফলে ডায়াবেটিস ও মানসিক সমস্যার নতুন ধরনের সংশ্লিষ্টতা জানা যাচ্ছে। মানসিক রোগগুলোর মধ্যে অন্যতম প্রধান হল বিশ শতকের গোড়ার দিকে ভাবা হতো যে, সিজোফ্রেনিয়তে রক্তের গ্লুকোজ বাড়ে। ইদানীং কালের গবেষণায়ও অনেকটা এরূপ তথ্যই পাওয়া গেছে।

এখন এটা পরিষ্কার যে, বড় ধরনের মানসিক রোগীদের একটা বড় অংশ ডায়াবেটিসে ভুগেন এবং শরীরে একই সঙ্গে ডায়াবেটিস হবার ঝুঁকিপূর্ণ বৈশিষ্ট্য উপস্থিত থাকে। যেমন- সিজোফ্রেনিয়র রোগীকে তার সমবয়সীদের তুলনায় অনেক বেশি সময় বিছানায় থাকতে হয় তারা কম তাজা ফলমূল খেয়ে থাকেন। এজন্য তারা বেশি করে ডায়াবেটিস ও দৈহিক স্থূলতায় ভুগেন এবং হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ে। সিজোফ্রেনিয়ার রোগীদের ১৬% থেকে ২৫% ডায়াবেটিসে ভুগছে। বয়স বৃদ্ধি পাবার সঙ্গে সঙ্গে টাইপ ২ ডায়াবেটিস হবার হার বাড়ে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, মধ্যবয়সীদের দৈহিক স্থুলতা থাকলে ডিমনেশিয়া (স্মৃতি ভ্রষ্টতা) হবার হার বাড়ে আর বেশি বয়সে ডিমনেশিয়া বাড়ে ডায়াবেটিসের কারণে।

ডাঃ শাহজাদা সেলিম

সহকারী অধ্যাপক

এ্যান্ডোক্রাইনোলজি বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়