২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিবসেনা হামলার জেরে আলিম দারকে সরিয়ে নিল আইসিসি

শিবসেনা হামলার জেরে আলিম দারকে সরিয়ে নিল আইসিসি

অনলাইন ডেস্ক॥ মুম্বইয়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সদর দফতরে ঢুকে শিব সৈনিকদের তাণ্ডবের জেরে চলতি ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা এক দিনের সিরিজ থেকে এলিট প্যানেলের সদস্য, পাকিস্তানি আম্পায়ার আলিম দারকে সরিয়ে নিল আইসিসি। তাদের সাফ কথা, শিব সেনার হামলাবাজির পর আর ঝুঁকি নেওয়া যায় না। নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন ধারাভাষ্যকার হিসাবে সিরিজের সঙ্গে যুক্ত দুই প্রাক্তন পাকিস্তানি তারকা ওয়াসিম আক্রম এবং শোয়েব আখতারও। রাতের খবর, এঁরা দু’জনেই মুম্বই ওয়ান ডে-র আগে দেশে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

মুম্বইয়ে বোর্ডের অফিসে পাক বোর্ডকর্তা শাহরিয়র খানের সঙ্গে এ দিন বৈঠক করার কথা ছিল ভারতীয় বোর্ড প্রেসিডেন্ট শশাঙ্ক মনোহরের। সেই বৈঠকেই হামলা চালায় শিবসেনা। শাহরিয়রের সঙ্গে থাকা পাক বোর্ডের অন্যতম কর্তা নাজাম শেঠি এর পরই দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নেন। বিসিসিআই সচিব অনুরাগ ঠাকুর বলেছেন, দুই বোর্ডের মধ্যে সরকারি বৈঠক বাতিল হয়েছে। এমনকী ভারত-পাক ক্রিকেট সম্পর্ক পুনর্স্থাপন করার ব্যাপারটাও আপাতত স্থগিত থাকবে।

তবে শাহরিয়র ‘ব্যক্তিগত সফরে’ দিল্লি যাচ্ছেন। আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করা ছাড়াও তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলির সঙ্গে ‘সৌজন্য সাক্ষাৎ’ করবেন বলে খবর। এতে জল্পনা শুরু হয় যে, মুম্বইয়ের বদলে মনোহরের সঙ্গে শাহরিয়রের বৈঠক দিল্লিতে হতে পারে। যেটা স্বাভাবিক ভাবেই গোপন রাখা হচ্ছে। অনুরাগ এ দিকে, পরের এশিয়া কাপ আগামী ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হবে বলে ঘোষণা করার পর দিল্লির বৈঠকের সম্ভাবনা উড়িয়ে বলেছেন, ‘‘সরকারি ভাবে দিল্লিতে কোনও বৈঠক হচ্ছে না। কথা হলে মুম্বইতেই হবে।’’ কিন্তু ক্রিকেট মহলের অনেকেই এই বক্তব্য মানতে চাইছেন না।

এ দিকে, চলতি সিরিজ থেকে আলিম দারকে সরানো নিয়ে আইসিসি বলেছে, ‘‘সোমবার মুম্বইয়ে যা হল, তার পর ভারতে থাকার ব্যাপারে আলিমের স্বচ্ছন্দ বোধ না করাটাই স্বাভাবিক। সিরিজ থেকে ওকে সরিয়ে নেওয়া হল।’’ দারের বদলে কে আম্পায়ারিং করবেন, সেটা শীঘ্রই ঘোষণা করা হবে।

গোটা ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয়েছে পাকিস্তানেও। আব্দুল কাদিরের মতো কিংবদন্তি বলেছেন, ‘‘সমস্যার সম্মানজনক সমাধান চাইলে ভারতের উচিত, তৃতীয় কোনও নিরপেক্ষ দেশে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে রাজি হয়ে যাওয়া।’’ প্রাক্তন পাক চেয়ারম্যান খালিদ মেহমুদ ১৯৯৯-এ শিব সেনার ফিরোজ শাহ কোটলায় পিচ খোঁড়ার পুরনো প্রসঙ্গ টেনে বলেছেন, সে বার ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে শিব সেনাকে নিরস্ত করা গিয়েছিল। কিন্তু এ বার কী হবে সেটা বড় প্রশ্ন।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা