১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিতর্কে অংশ নিন, গুণ্ডামি বা ভাংচুর নয় ॥ কড়া বার্তা জেটলির

বিতর্কে অংশ নিন, গু-ামিতে নয়। গু-ামি বা ভাংচুর কখনও প্রতিবাদের ভাষা হতে পারে না। যদি এমন কিছু ঘটনা ঘটে যা বিতর্ক বা শান্তিপূর্ণ আলোচনার মাধ্যমে মিটিয়ে ফেলা সম্ভব, সেটা সে ভাবে করলেই দেশ ও দশের পক্ষে ভাল। এক সাংবাদিক সম্মেলনে দেশবাসীর অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে এমনই বার্তা দিলেন ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া ও আনন্দবাজারের।

জেটলি বলেন, ভারতের মতো গণতান্ত্রিক দেশে নিজ নিজ মত প্রকাশের স্বাধীনতা আছে। তা বলে এই স্বাধীনতার সুযোগ নিয়ে গু-ামি কখনওই কাম্য নয়। গত কয়েক দিন ধরেই প্রতিবাদের নামে যে ধরনের অসহিষ্ণুতার নিদর্শন দেখাচ্ছেন বেশ কিছু মানুষ, এ ধরনের কাজকে কখনওই প্রশ্রয় দেয়া হবে না। পাকিস্তানের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী খুরশিদ মাহমুদ কাসুরির বই প্রকাশ, গুলাম আলীর গানের অনুষ্ঠান এবং পাক-ভারত সিরিজ নিয়ে শিবসেনা যে তা-ব চালিয়েছে, তাতে ক্ষুব্ধ কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। শরিক দল হওয়া সত্ত্বেও শিবসেনার তা-ব যে তারা ভাল চোখে দেখছেন না, তা কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর কথাতেই স্পষ্ট। শিবসেনার নাম উল্লেখ না করে তিনি বলেন, এমন কিছু ঘটনা ঘটেছে, যা অত্যন্ত স্পর্শকাতর। কিছু মানুষ এতে উৎসাহ পাচ্ছেন। আর কিছু মানুষ এ ধরনের কাজকে প্রশ্রয়ও দিচ্ছেন। এর প্রভাব আন্তঃসম্প্রদায়ের সম্পর্কে পড়ছে। তাই কোন ঘটনাকে নিয়ে মতাদর্শগত পার্থক্য থাকতেই পারে, কিন্তু তা নিয়ে হিংসাত্মক আক্রমণ চালানো কাম্য নয়। যারা এ ধরনের কাজে উৎসাহ পাচ্ছেন ও দিচ্ছেন, তাদের ধিক্কার জানায় বিজেপি। সোমবার জম্মু-কাশ্মীরের বিধায়কের ওপর যে হামলা হয়েছে, সেটিও বিজেপি নেতৃত্ব মেনে নেননি। তাই ওই হামলার প্রভাব জম্মু-কাশ্মীরের মতো স্পর্শকাতর এলাকায় পড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন জেটলি। সংবাদ সম্মেলনে নিজের দলের বেশ কিছু সংসদ সদস্যের ভূমিকা নিয়েও জেটলিকে বেশ কিছু প্রশ্ন করা হয়।