২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজ’ আগামীকাল বৃহস্পতিবার

  • বিপিএল টি২০ তৃতীয় আসর;###;একইদিন আইকন ক্রিকেটারদেরও ভাগ্য নির্ধারণ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল-টি২০) এবার তৃতীয় আসরে ক্রিকেটারদের নিলাম হচ্ছে না এবার। হচ্ছে লটারি। লটারির পদ্ধতিকে বলা হচ্ছে ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজ’। এ পদ্ধতিতে ক্রিকেটারদের দলে ভেড়ানোর কাজটিও চারদিন এগিয়ে এনে বৃহস্পতিবারই হয়ে যাবে। আইকন ক্রিকেটারদের লটারিও একইদিনে হবে।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক ও বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক এমনটিই জানিয়েছেন। বলেছেন, ‘২৬ অক্টোবর বিপিএলের ক্রিকেটারদের ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজ’ হওয়ার কথা ছিল। লটারির মাধ্যমে দলগুলো যে ক্রিকেটার দলে ভেড়াবে তা এখন ৪ দিন এগিয়ে আনা হয়েছে। নবেম্বরের ২ বা ৩ তারিখে জিম্বাবুইয়ে চলে আসবে। এ জন্য ক্রিকেটারদের অনুশীলনেও যোগ দিতে হবে। একবার জিম্বাবুইয়ে সিরিজের জন্য জাতীয় দলের ক্যাম্পে যোগ দিলে তখন আর বিপিএল শুরুর দুই-একদিন আগে ছাড়া ফ্র্যাঞ্চাইজিরা ক্রিকেটারদের পাবে না। যদি ২৬ তারিখে হয় লটারি, তাহলে নিজ দলের ক্রিকেটারদের সঙ্গে ফ্র্যাঞ্চাইজিরা বসার খুব বেশি সুযোগ পাবে না। এমনকি বিজ্ঞাপনী কাজও করতে পারবে না। আর তাই ফ্র্যাঞ্চাইজিদের অনুরোধেই ৪ দিন এগিয়ে আনা হয়েছে।’ একইদিন আইকন ক্রিকেটারদের ভাগ্যও নির্ধারণ হবে বলে জানিয়েছেন মল্লিক, ‘আইকন ক্রিকেটারদের লটারিও একইদিনেই হবে।’

বিসিবির পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসও ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’র তারিখ এগিয়ে আনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বলেছেন, ‘২২ অক্টোবর হবে লটারি। রেডিসনে হবে তা।’ এ নিয়ে দুইবার বিপিএলের তৃতীয় আসরে ক্রিকেটারদের ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’র দিন-তারিখ পরিবর্তন করা হলো। প্রথমবার ছিল, ৩১ অক্টোবর। দ্বিতীয়বার ছিল, ২৬ অক্টোবর। দুই তারিখই পরিবর্তন করে এবার ২২ অক্টোবর করা হয়েছে।

বিপিএলের খেলা শুরু হবে ২২ নবেম্বর। ২০ নবেম্বর হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। অর্থাৎ বিপিএলের তৃতীয় আসরের পর্দা উঠবে ২০ নবেম্বর। ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে ১৫ ডিসেম্বর। ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ ১৯৫ বিদেশী ও ১২২ দেশী ক্রিকেটারের তালিকা এরইমধ্যে দিয়েছে বিসিবি। তা আগেই প্রকাশ করেছে। এরসঙ্গে আরও দেশি-বিদেশি ক্রিকেটার তালিকায় যুক্ত হবে। আরও ১৫ থেকে ২০ বিদেশি ক্রিকেটার যুক্ত হবেন। আর দেশি ৮ থেকে ১০ ক্রিকেটার যুক্ত হবেন। সেই সঙ্গে অনুর্ধ ১৯ দলের ক্রিকেটারদের ব্যস্ত সূচী থাকায় তাদের নাম তালিকা থেকে সরিয়ে ফেলাও হচ্ছে।

বিপিএলে অংশ নেবে ৬ দল। ঢাকা, চট্টগ্রাম, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও কুমিল্লা। এ ছয় দল শুধু ‘এ’, ‘বি’, ‘সি’, ‘ডি’ ক্যাটাগরিতে থাকা দেশী-বিদেশী ক্রিকেটারদেরই দলে ভেড়াবেনা, সঙ্গে আইকনদেরও লটারির মাধ্যমে দলে নেবে। বিদেশী নামী ক্রিকেটারদের মধ্যে ক্রিস গেইল, শহীদ আফ্রিদি, কুমার সাঙ্গাকারা, তিলকারতেœ দিলশান, শোয়েব মালিকদের এরই মধ্যে দলে ভেড়ানোর কাজ করেও ফেলেছে দলগুলো। নামী বিদেশী ক্রিকেটাররা ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’র তালিকাতে নেই। তাদের যোগাযোগের মাধ্যমেই দলে নেয়া হচ্ছে। আর বিদেশী ক্রিকেটারদের মধ্যে যারা তালিকাতে আছেন, কিন্তু দলগুলো যোগাযোগের মাধ্যমে আগেই দলে নিয়েছে, সেই ক্রিকেটারদের নাম তালিকা থেকে সরিয়ে ফেলা হবে। দেশী ক্রিকেটারদের বেলাতে সেই সুযোগ থাকছে না। ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ই দেশী ক্রিকেটারদের দল মিলবে। এমনকি ৬ আইকন-মাশরাফি বিন মর্তুজা, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও নাসির হোসেনের বেলাতেও তাই ঘটছে।

সবার ভেতরেই ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ কিভাবে ক্রিকেটার দলে যুক্ত হবে, এ প্রশ্ন থাকছেই। তা বুঝিয়ে দেয়ারও চেষ্টা করেছেন জালাল ইউনুস। সম্প্রতি বলেছেন, ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে যেটা থাকবে, এখানে যে এ, বি, সি, ডি ক্যাটাগরিগুলো আছে, এই ক্যাটাগরির মধ্যে কেউ যার প্রথম নাম উঠে আসবে লটারিতে, সে হয় তো এ ক্যাটাগরি না নিয়ে যদি মনে করে পাস করে দেবে, সে ‘বি’ ক্যাটাগরি থেকেও নিতে পারে। একটি দলে ১৩ জন লোকাল (দেশী), ১২ জন বিদেশী নিতে পারবে। এই ২৫ জনের মধ্যে রাখতে হবে। সর্বোচ্চ ২৫ জন রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে।’

আসলে ২০১৩ সালে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগে যেভাবে ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজ’ পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়েছিল, ক্রিকেটারদের দলে ভেড়াতে এবারও সেই পদ্ধতিই কাজে লাগানো হচ্ছে। প্রথমে ৬ দলের লটারি হবে। সিরিয়ালভাবে ১ থেকে ৬ নম্বর পর্যন্ত লটারিতে দলের নাম তোলা হবে। যে দলের নাম লটারিতে আগে উঠবে, সেই দল সবার আগে পছন্দের ক্রিকেটার দলে নেবে। যেমন শুরুতে ধরা যাক, আইকন ক্রিকেটারদের লটারি হবে। ৬ দলের নাম লটারিতে তোলা হলো। লটারিতে ঢাকা ডিনামাইটস সবার আগে উঠল। তাহলে ঢাকা সবার আগে পছন্দের আইকন ক্রিকেটার দলে নিতে পারবে। সাকিবকে পছন্দ হলে নিয়ে নেবে। অথবা অন্য কোন আইকন ক্রিকেটারকে পছন্দ থাকলে নেবে। এভাবে এরপর ২ নম্বরে যে লটারিতে উঠবে, সে নিতে পারবে। এভাবে লটারিতে ওঠা ৬ দল সিরিয়াল অনুযায়ী ক্রিকেটার দলে নেবে। ঠিক তেমনি প্রতি ক্যাটাগরির (এ, বি, সি, ডি) আগে ৬ দলের লটারি করা হবে। সিরিয়াল হবে। সেই অনুযায়ী ‘আগে লটারিতে উঠলে, আগে পাবে’ ভিত্তিতে ক্রিকেটার দলে ভেড়াবে দলগুলো। সেই ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজ’টি হবে বৃহস্পতিবার।

নির্বাচিত সংবাদ