২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শ্রীলঙ্কার বর্ষসেরা এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস

শ্রীলঙ্কার বর্ষসেরা এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস যেন ‘লিডিং ফ্রম দ্য ফ্রন্ট’-এর জ্বলন্ত উদাহরণ। টানা দ্বিতীয়বারে মতো শ্রীলঙ্কার বর্ষসেরা পুরস্কার জিতে নিলেন দলটির অধিনায়ক। একই সঙ্গে সেরা টেস্ট ব্যাটসম্যান, সেরা ওয়ানডে ব্যাটসম্যান এবং সেরা ওয়ানডে অলরাউন্ডারের পুরস্করও বগলদাবা করেছেন ২৮ বছর বয়সী কলম্বো প্রতিভা। ২০১৪ সালেও দেশটির বর্ষসেরা ক্রিকেটারের খেতাব জিতেছিলেন তুখোড় এই অলরাউন্ডার। ম্যাথুস আসলে ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত পারফর্মেন্সেরই পুরস্কার পেলেন।

২০১৪-এর জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত পারফর্মেন্সের ওপর ভিত্তি করে চলতি ২০১৫ সালে সেরাদের বেছে নেয় লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি), যা ‘শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট এ্যাওয়ার্ড’ নামে পরিচিত। মোট তেরো বিভাগে এই পুরস্কার দেয়া হয়। টেস্ট-ওয়ানডেতে সেরা ব্যাটসম্যান, বোলার, অলরাউন্ডার ছাড়া রয়েছে টি২০ ব্যাটসম্যান-বোলার এবং বর্ষসেরা উদীয়মান খেলোয়াড়ের পুরস্কার। মজার বিষয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ার পর দর্শকদের ভোটে ‘পিপল চয়েজ এ্যাওয়ার্ড’ জিতে নিয়েছেন লিজেন্ড ব্যাটসম্যান কুমার সাঙ্গাকারা।

ঘুরে ফিরে ধারাবাহিক পারফর্মাররাই এএসএলসির পুরস্কার জিতে নিয়েছেন। বিবেচিত সময়ের পুরোটাই ব্যাটে-বলে দুরন্ত অলরাউন্ড পারফর্মেন্স করেনে ম্যাথুস। মাহেলা জয়াবর্ধনে-কুমার সাঙ্গাকারা অনুপস্থিতিতে দল হিসেবে শ্রীলঙ্কা অনেকটাই খর্বশক্তির হয়ে পড়ে। দলীয় পারফর্মেন্স আহামরি নয়। কঠিন এই সময়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন ম্যাথুস। গত বছর জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত ৭৭.৩৩ গড়ে টেস্টে ১১৬০ রান, ৬২.২০ গড়ে ওয়ানডেতে ১২৪৪ রান এবং ১৮ উইকেট শিকারে ঔজ্জল্য ছাড়ান ডানহাতি এই পেস বোলিং-অলরাউন্ডার। এছাড়া ২০১৪ সালে ৫৬ উইকেট নিয়ে বর্ষসেরা টেস্ট বোলারের খেতাব জিতে নিয়েছেন অভিজ্ঞ রঙ্গনা হেরাথ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বশেষ গল টেস্টেও ১০ উইকেট নিয়ে ‘নায়ক’ এই অফস্পিনার। মুত্তিয়া মুরলিধরন অবসরে যাওয়ার পর একাই বল হাতে শ্রীলঙ্কা দলকে টেনে নিচ্ছেন ৩৮ বছর বয়সী হেরাথ। আগামী বছর ভারতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া টি২০ বিশ্বকাপ খেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন তিনি। বিবেচ্য সময়ে ৩৮ উইকেট নিয়ে ওয়ানডেতে সেরা বোলার নির্বাচিত হয়েছেন ‘রহস্য স্পিনার’ অজন্তা মেন্ডিস। সেরা টি২০ ব্যাটসম্যান ও বোলারের পুরস্কার উঠেছে যথাক্রমে কুশল পেরেরা ও নুয়ান কুলাসেকারার হাতে। কুশল ধারাবাহিক হলেও এ বছর অনেকটাই ব্যর্থ নুয়ান কুলাসেকারা। যদিও চলতি বছরের পারফর্মেন্স পুরস্কারের জন্য বিবেচ্য নয়। ২০১৪ সালে শ্রীলঙ্কার সেরা উদীয়মান ক্রিকেটারও হয়েছেন টি২০’র সেরা ব্যাটসম্যান কুশলই। বর্তমানে যিনি টেস্টের দলেরও অন্যতম সদস্য। এছাড়া বর্ষসেরা প্রমীলা ব্যাটসম্যান, বোলার ও অলরাউন্ডারের পুরস্কার দেয়া হয়। তবে আলোচিত কুমার সাঙ্গাকারা ‘পিপলস চয়েজ’ জিতে নেয়া, কারণ সদ্য অবসরে যাওয়া গ্রেট ব্যাটসম্যান এ নিয়ে টানা ছয়বার এই বিভাগের পুরস্কার পেলেন! সাঙ্গাকে নির্বাচিত করতে অনলাইন এবং মোবাইল মেসেজের মাধ্যমে হাজারও ভক্ত ভোট দেন।