২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জমে উঠেছে লড়াই

  • অতশী রহমান

জমে উঠেছে ইউরোপের ক্লাব ফুটবল। গতানুগতিক ধারা পেরিয়ে এবার প্রায় সব শীর্ষস্থানীয় লীগেই হাড্ডাহাড্ডি লড়াই দেখা যাচ্ছে। বিগত বছরগুলোতে দেখা গেছে, শুধুমাত্র ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ ছাড়া বাদবাকি লীগগুলোয় শিরোপা লড়াই হতো অনেকটাই একতরফা।

এবার এই ধারা থেকে বেরিয়ে এসেছে প্রায় সব লীগই। স্প্যানিশ লা লীগ, ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ, ইতালিয়ান সিরি এ, ফ্রেঞ্চ লীগ ওয়ানে সমানে সমানে লড়াই হচ্ছে। শুধুমাত্র জার্মান বুন্দেসলীগায় সবার ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যাচ্ছে বেয়ার্ন মিউনিখ।

লা লীগার লড়াই এবার বেশ জমে উঠেছে। অনেক সংগ্রামের পর অবশেষে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে এসেছে রিয়াল মাদ্রিদ। গত শনিবার নিজেদের মাঠ সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে রিয়াল ৩-০ গোলে পরাজিত করে লেভান্তেকে। একই দিন পিছিয়ে পড়েও বিশাল জয় পায় বার্সিলোনা। আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা নেইমারের চার গোলে ভর করে ৫-২ গোলে উড়িয়ে দেয় রায়ো ভায়োকানোকে। একই দিন অন্য ম্যাচে ভ্যালেন্সিয়া ৩-০ গোলে মালাগাকে ও এস্পানিওল ৩-১ গোলে হারায় রিয়াল বেটিসকে। গত রবিবার ভিয়ারিয়ালকে ২-১ গোলে হারিয়ে চমক অব্যাহত রেখেছে সেল্টা ডি ভিগো। এই জয়ের ফলে গোলগড়ে পিছিয়ে থেকে দুই নম্বরে অবস্থান করছে দলটি। বর্তমানে আটটি করে ম্যাচ শেষে রিয়াল, সেল্টা ও বার্সা তিনদলেই ভা-ারে সমান ১৮ পয়েন্ট করে। তবে গোলগড়ে এগিয়ে থেকে রিয়াল এক, সেল্টা দুই ও বার্সার অবস্থান তিন নম্বরে। এই পরিসংখ্যাই জানান দিচ্ছে, লা লীগার এবারের মৌসুম কতটা জমে উঠেছে।

বর্তমান ফিফা বর্ষসেরা তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর রেকর্ড গড়া ম্যাচে লেভান্তেকে সহজেই হারায় রিয়াল। রিয়ালের হয়ে ৩১০ ম্যাচে ৩২৪ গোল করে রোনাল্ডো সাবেক তারকা রাউল গঞ্জালেসের রেকর্ড ছাড়িয়ে এখন স্প্যানিশ পরাশক্তিদের হয়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছেন। সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে ম্যাচের সবটুকু আলো ছিল রোনাল্ডোকে ঘিরে। সমর্থকদের হতাশও করেননি সি আর সেভেন। মার্সেলোর ২৭ মিনিটের গোলে এগিয়ে যাওয়ার তিন মিনিট পর রোনাল্ডো গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। সেই সঙ্গে মাদ্রিদের হয়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার রেকর্ডও গড়েন। বিরতির পর ম্যাচে ৮১ মিনিটে জেমস রড্রিগুয়েজের গোলে ৩-০ ব্যবধানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে গ্যালাক্টিকোরা। ম্যাচ শেষে রিয়াল কোচ রাফায়েল বেনিতেজ দলের পারফর্মেন্সে সন্তোষ প্রকাশ করেন। অন্য ম্যাচে ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমারের দুর্দান্ত পারফর্মেন্সে রায়ো ভায়োকানোর বিরুদ্ধে পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত ৫-২ গোলের বড় ব্যবধানে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে বার্সিলোনা। ম্যাচটিতে নেইমার চার গোল করে ইনজুরি আক্রান্ত লিওনেল মেসির অনুপস্থিতি বুঝতে দেননি। অবশ্য ন্যুক্যাম্পে মাচের ১৫ মিনিটে জাভি গুয়েরার গোলে এগিয়ে যায় ভায়োকানো। এই গোলের পর অনেকেই মনের কোনে ফের দুশ্চিন্তা ভর করতে থাকে। কিন্তু ২২ ও ৩২ মিনিটে পরপর দুটি পেনাল্টিতে গোল করে নেইমার বিরতির আগে বার্সিলোনাকে এগিয়ে নেন। বিরতির পর পর দুই মিনিটে দুই গোল করে হ্যাটট্রিক পূরণের পাশাপাশি নেইমার বার্সিলোনার জয়ও নিশ্চিত করেন। ৭৭ মিনিটে লুইস সুয়ারেজ দলের হয়ে পঞ্চম গোলটি করলে বড় জয়ের অপেক্ষায় ছিল বার্সা। ৮৬ মিনিটে সানচেজ রুইজ ভায়োকানোর হয়ে আরেকটি সান্ত¡নার গোল করেন। শেষ পর্যন্ত ৫-২ গোলের বিশাল জয় পায় বার্সিলোনা। এর ফলে আগের ম্যাচে সেভিয়ার কাছে ২-১ গোলে হারের পর ফের জয়ের ধারায় ফিরেছে লুইস এনরিকের দল।

ম্যাচ শেষে তৃপ্ত নেইমার বলেন, এই জয়ে আমি দারুণ খুশি। বিশেষ করে আমরা যেভাবে খেলেছি তা ছিল অসাধারণ। দলের প্রত্যেকেই অভিনন্দন পাওয়ার যোগ্য। তবে জয়টা কঠিন ছিল। রায়োতে বেশ কয়েকজন ভাল খেলোয়াড় আছে। আমাদের কষ্ট হয়েছে তবে আমরা নিজেদের কাজটা করতে পেরেছি। ব্রাজিলিয়ান অধিনায়ক আরও বলেন, আমাদের সঙ্গে আপাতত মেসি নেই। সে আমাদের সেরা তারকা। তার অভাব পূরণের জন্য আমরা নিজেদের সর্বোচ্চ দেয়ার চেষ্টা করছি। আশা করছি আমরা সফল হব। মেসিও দ্রুত ফিরে আসবে।

বিশ্বকাপ বাছাই, ইউরো বাছাই নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন ফুটবলাররা আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে। তবে গত শনিবার থেকে আবারও শুরু হয়েছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের ম্যাচ। ফিরেই আবারও বিশাল জয় তুলে নিয়েছে শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার সিটি। তারা তরুণ রহিম স্টার্লিংয়ের হ্যাটট্রিকে ৫-১ গোলে বিধ্বস্ত করেছে বোর্নমাউথকে। এটি ছিল সিনিয়র ক্যারিয়ারে স্টার্লিংয়ের প্রথম হ্যাটট্রিক। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা আর্সেনালও অব্যাহত রেখেছে জয়ের ধারা। গানার্সরা ৩-০ গোলে হারিয়েছে ওয়াটফোর্ডকে। আগের ম্যাচে পরাজিত হলেও জয়ের ধারায় ফিরেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও চেলসি। রেড ডেভিলদের হয়ে ইনজুরি কাটিয়ে মাঠে ফিরেই গোল পেয়েছেন ওয়েন রুনি। তারা ৩-০ গোলে হারিয়ে দিয়েছে এভারটনকে। আর চেলসি ২-০ গোলে হারায় অ্যাস্টন ভিলাকে। এছাড়া ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেড ৩-১ গোলে ক্রিস্টাল প্যালেসকে এবং ওয়েস্টব্রুমউইচ ১-০ গোলে পরাজিত করে সান্ডারল্যান্ডকে। কিন্তু লিভারপুল জিততে পারেনি। গোলশূন্য ড্র করেছে তারা টটেনহ্যাম হটস্পারের সঙ্গে। অপর ম্যাচে সাউদাম্পটন ২-২ গোলে ড্র করে লিচেস্টার সিটির সঙ্গে।

ইতালিয়ান সিরি এ লীগের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠার সুযোগ ছিল ইন্টার মিলানের। কিন্তু আপতত পারেনি রবার্তো ম্যানচিনির দল। কেননা লীগে গত রবিবার ইন্টার মিলান আর জুভেন্টাসের হাইভোল্টেজ ম্যাচটি নিরুত্তাপ ড্রয়েই শেষ হয়। শক্তিশালী দুই দলের কেউই গোলের দেখা পায়নি। যে কারণে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদের। অন্যান্য ম্যাচে ফিওরেন্টিনাকে ২-১ গোলে নেপোলি, সাসসাউলো একই ব্যবধানে হারায় ল্যাজিওকে এবং পালের্মো ১-০ গোলে হারায় বোলোগ্নাকে। ঘরের মাঠে ইন্টারের সামনে ছিল লীগ টেবিলের শীর্ষে উঠার হাতছানি। অবশ্য, পয়েন্ট খোয়ালেও তিন নম্বরেই রয়েছে রবার্তো ম্যানচিনির শিষ্যরা। অন্যদিকে, লীগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা এখনও শীর্ষ দশের বাইরে। পয়েন্ট টেবিলে আট ম্যাচ শেষে পাঁচ জয়, দুই ড্র ও এক পরাজয়ে ইন্টারের সংগ্রহ ১৭ পয়েন্ট। অবস্থান তিনে। সমান ম্যাচে মাত্র নয় পয়েন্টে ১৪ নম্বরে অবস্থান করছে জুভেন্টাস।

অথচ গত চার মৌসুম ধরেই সিরি এ লীগে রাজত্ব করছে জুভেন্টাস। এবার শীর্ষ দশেও নেই তাদের স্থান। তারপরও আশা ছাড়ছেন না বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো এ্যালেগ্রি। নেপোলির কাছে হারলেও শীর্ষস্থান অক্ষুণœ রেখেছে ফিওরেন্টিনা। ১৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে তারা। ইন্টারের সমান পয়েন্টে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় লীগ টেবিলের দুইয়ে অবস্থান করছে রোমা।

নির্বাচিত সংবাদ