১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বন্যাদুর্গতদের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে জালিয়াত চক্র

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি কক্সবাজারে পেকুয়া উজানটিয়া এলাকায় দু’দফা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ২শ’ জনকে দেয়া অর্থ সহায়তা হাতিয়ে নিতে জালিয়াত চক্র কৌশল হাতে নিয়েছে। ৩২ উপকারভোগীর জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি পাল্টিয়ে তিন হাজার টাকা হারে ইতোমধ্যে হাতিয়ে নিয়েছে ৯৬ হাজার টাকা। একই উপকারভোগীর প্রত্যেককে দ্বিতীয় কিস্তিতে আরও ছয় হাজার টাকা করে দেয়ার সময় জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি পাল্টানোর বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসে।

উপকারভোগীরা বলেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম চৌধুরীর চুড়ান্ত তালিকার ৩২ উপকারভোগীর নাম ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর সব ঠিক-ঠাক রেখে শুধু ছবি পাল্টিয়ে অন্য ৩২ জনের ছবি লাগিয়ে দেয় জালিয়াত সিন্ডিকেট। প্রথম কিস্তির তিন হাজার টাকা হারে উত্তোলন করার পর দ্বিতীয় কিস্তির ছয় হাজার টাকা নিতে আসে ভূয়া কার্ডধারীরা। ওসময় চুড়ান্ত তালিকার উপকারভোগীরা ব্যাংকে হাজির হয়ে রেড ক্রিসেন্ট কর্মকর্তাদের অভিযোগ দেয়। রেড ক্রিসেন্ট কর্মকর্তারাও তদন্ত করে জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতির সত্যতা পান। বৈধ ২শ’ জনের মধ্যে ১৬৮ জনকে দ্বিতীয় কিস্তির ছয় হাজার টাকা হারে দেয়া হলেও ছবি জালিয়তি করা ৩২ জনকে টাকা উত্তোলন করতে দেননি তাঁরা।

বুধবার বিকেলে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির এক কর্মকর্তা জানান, সাইক্লোন-কোমেন অপারেশন ২০১৫ প্রকল্পের আওতায় পেকুয়া উপজেলার উজানটিয়া ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত ওই ২’শ জনকে দুই কিস্তি করে নয় হাজার টাকা অর্থ সহায়তা দেয়া হচ্ছে। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তের তালিকাটি চুড়ান্ত করা হয়। স্বচ্ছতার জন্য প্রত্যেক উপকারভোগীকে চেক দিয়ে জনতা ব্যাংক পেকুয়া শাখার মাধ্যমে ওই অর্থ সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সহকারি পরিচালক তাজুল ইসলাম বলেন, কাজে গতি ও স্বচ্ছতা আনতে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মেম্বার ও চৌকিদারদের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তের তালিকা। তিনি আরও বলেন, ‘৩২ জনের ছবি পাল্টিয়ে অন্য ৩২ জনের ছবি লাগিয়ে দেয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। চুড়ান্ত তালিকায় নাম থেকেও ৩২ জন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার অর্থ সহায়তা পাননি।