১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাঞ্জাবে শিখ ধর্মগ্রন্থ অবমাননায় বিক্ষোভ, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের ফরিদকোট জেলার কোর্ট কাপুরার কাছে ১৪ অক্টোবর ভোরে ঘটনার সূত্রপাত। তবে বুধবারও এ নিয়ে বিক্ষোভ চলে। শিখদের ধর্মগ্রন্থ গুরু গ্রন্থসাহিবের ছেঁড়া বেশ কিছু পৃষ্ঠা রাস্তায় পড়ে রয়েছে, এটি দেখতে পেয়ে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে স্থানীয় শিখরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে রাজ্যের বিভিন্ন শহরে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। খবর বিবিসি ও ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস অনলাইনের।

পবিত্র ধর্মগ্রন্থের এই অবমাননার প্রতিবাদে আশপাশের গ্রামবাসীরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। এ সময়ে পুলিশ গুলি চালালে দু’জন নিহত ও বহু লোক আহত হয়। বিক্ষোভ আর সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে রাজ্যজুড়ে। প্রতিবাদকারীরা বলছেন, গুরু গ্রন্থসাহিবের অবমাননা কিছুতেই বরদাশত করা যাবে না, আর তাই তারা জাতীয় সড়ক অবরোধ করে দোষীদের শাস্তি দাবি করছেন। এক সপ্তাহ ধরে পাঞ্জাবের বড় শহরগুলোর মধ্যে সড়ক সংযোগ কার্যত বিচ্ছিন্ন রয়েছে। রাস্তার মোড়ে মোড়ে অবরোধ করে রেখেছেন বিক্ষোভকারীরা।

সমস্যা আরও জটিল হয়ে উঠেছে, কারণ ফরিদকোটের পর রাজ্যের আরও অন্তত পাঁচটি জায়গা থেকেও ছেঁড়াখোঁড়া গ্রন্থসাহিবের পৃষ্ঠা মিলেছে। পাঞ্জাবের শাসক আকালি দলের জন্যও এত বড় বিপদ আগে আসেনি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং যদিও পাঞ্জাবকে সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন ও প্রচুর সংখ্যক কেন্দ্রীয় বাহিনী সে রাজ্যে পাঠানো হয়েছে। তারপরও জনজীবনে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসেনি।

ভারতীয় পুলিশের দাবি, এই ঘটনার ষড়যন্ত্র হয় সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই এবং অস্ট্রেলিয়ায়।