২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফিফা নির্বাচনে শেখ সালমানকে অযোগ্য ঘোষণা করুন

  • মানবাধিকার সংগঠনগুলোর আহ্বান

মানবাধিকার কর্মীরা এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট শেখ সালমান বিন ইব্রাহিম আল-খলিফাকে ফিফা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ক্ষেত্রে অযোগ্য বলে ঘোষণা করতে অস্থায়ী ফিফার অস্থায়ী প্রেসিডেন্ট ইসা হেয়াতুরের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তারা ২০১১ সালে বাহরাইনে গণতন্ত্রপন্থী ক্রীড়াবিদদের বিরুদ্ধে দমন অভিযানে অংশ নেয়ার দায়ে শেখ সালমানকে অভিযুক্ত করেন। খবর গার্ডিয়ান অনলাইনের।

গার্ডিয়ান গত সপ্তাহে জানিয়েছিল যে, মানবাধিকার সংগঠনগুলো ফিফা প্রেসিডেন্ট পদে শেখ সালমানের প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা নিয়ে গুরুতর উদ্বেগ ব্যক্ত করে। তারা ২০১১ সালে গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিলেন এমন ক্রীড়াবিদ ও ফুটবলারদের শনাক্ত করেছিল এমন এক কমিটির সদস্য হওয়ার দায়ে তাকে অভিযুক্ত করে। এসব ক্রীড়াবিদ ও ফুটবলারকে পরে কারাবন্দী ও নির্যাতন করা হয়েছিল। শেখ সালমান এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।

ফিফা এর বরখাস্তকৃত প্রেসিডেন্ট জোসেফ ব্ল্যাটারের উত্তরাধিকারী স্থির করতে ২৬ ফেব্রুয়ারি কংগ্রেস অনুষ্ঠানে কোন বিলম্ব করা হবে না বলে মঙ্গলবার আবারও জানায়। এ পদে প্রার্থী হতে হলে আগামী সোমবারের মধ্যে আবেদন করতে হবে। শেখ সালমান ওই পদে প্রার্থী হতে বিশ্বের বিভিন্ন স্থান থেকে সমর্থন পেয়েছেন বলে জানা যায়।

লাদেন হত্যা অভিযানের বিরোধিতা করিনি ॥ বাইডেন

আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী সংগঠন আল কায়েদার প্রতিষ্ঠাতা ওসামা বিন লাদেন হত্যার অভিযানে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সমর্থন জানিয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন। খবর ওয়েবসাইটের।

এমন ধারণা প্রচলিত রয়েছে যে, ওই অভিযানের বিরুদ্ধে ছিলেন বাইডেন। তিনি নিজেও এমনটাই বলে আসছিলেন। কিন্তু মঙ্গলবার জর্জ ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অনুষ্ঠানে বিপরীত কথা বলেছেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হতে ডেমক্রেটিক পার্টির মনোনয়ন চাওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছেন বাইডেন।

এ পর্যায়ে লাদেন অভিযানের ভূমিকা নিয়ে সম্ভাব্য সমালোচনা এড়াতেই তিনি নতুন দাবি করছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর আগে বাইডেন জানিয়েছিলেন, বিন লাদেন পাকিস্তানের সামরিক শহর এ্যাবোটাবাদের ওই বাড়িতে রয়েছেন কিনা তা পুরোপুরি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত অভিযানের অনুমতি না দিতে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি। ওবামাও জানিয়েছিলেন, বাইডেন অভিযান চালানোর পক্ষে ছিলেন না।