১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রেফারির বাঁশি দুর্বল, হাস্যকর ॥ মরিনহো

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দিনকয়েক আগেই রেফারির সমালোচনা করে শাস্তি পেয়েছেন। কিন্তু কে শোনে কার কথা! জোশে মরিনহো আবারও রেফারির মু-ুপাত করেছেন। আগেরবার ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে সমালোচনা করেছিলেন। এবার উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগে রেফারিং নিয়ে মেতে উঠেছেন সমালোচনায়। মঙ্গলবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে স্বাগতিক ইউক্রেনের ক্লাব ডায়নামো কিয়েভের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করার পর উত্তেজিত হয়ে ওঠেন মরিনহো। ম্যাচ শেষে তিনি অকপটেই বলে দিয়েছেন, সেøাভেনিয়ার রেফারি ডামির কোমিনা অত্যন্ত দুর্বল। তার সিদ্ধান্তগুলো হাস্যকর। পুরো ম্যাচে গোল মিসের মাশুলই দিতে হয়েছে চেলসিকে। তবে সার্বিকভাবে ম্যাচে এগিয়ে ছিল স্বাগতিক কিয়েভই। পুরো ম্যাচে ইউক্রেনের ক্লাবটির অধীনে থাকে ৫৭ শতাংশ বলের দখল। আর ইংলিশ চ্যাম্পিয়নদের নিয়ন্ত্রণে থাকে ৪৩ শতাংশ। এরপরও ম্যাচ শেষে রেফারিকে নিয়ে মেতে ওঠেন পর্তুগীজ লৌহমানব। একটি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত নিয়ে রীতিমতো আগুন ঝরান স্পেশাল ওয়ান। খেলার এক পর্যায়ে চেলসির চেস ফেব্রিগাসকে পেনাল্টি বক্সের মধ্যে ফেলে দেন কিয়েভের সার্জিও রাইবাল্কা। কিন্তু রেফারি কোমিনা পেনাল্টির বাঁশি বাজাননি। ম্যাচ শেষে তাই ক্ষোভ ঝরিয়ে মরিনহো বলেন, ‘আমি জানি না কেন রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজালো না। এটি পরিষ্কার সিদ্ধান্ত ছিল। এমন রেফারিং মেনে নেয়া যায় না। সে দুর্বল ও কাঁচা।’ কিছুদিন আগেই রেফারিদের বিরুদ্ধে তির্যক মন্তব্য করে ইংলিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের কাছ থেকে ৫০ হাজার পাউন্ড জরিমানা গুনেছেন মরিনহো। আবারও করলেন এই কা-। এবার কী হয় সেটাই এখন দেখার। ‘জি’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ইসরাইলের ক্লাব মাকাবি তেল আবিবকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দেয়া চেলসি দ্বিতীয় ম্যাচেই পোর্তোর মাঠে ২-১ গোলে হার মানে। পরশু রাতে তাই জয়ে ফেরার লক্ষ্যে শুরু থেকেই প্রতিপক্ষের সীমানায় চাপ বাড়াতে থাকে চেলসি। একের পর এক আক্রমণে কিয়েভের রক্ষণকে কোণঠাসা করে রাখে অতিথিরা। প্রথম দশ মিনিটে দুর্দান্ত তিনটি আক্রমণ করে ব্লুজরা। কিন্তু সাফল্যের দেখা মেলেনি। ষষ্ঠ মিনিটে ডি বক্সের মধ্য থেকে সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার চেস ফেব্রিগাস। দুই মিনিট পর ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার উইলিয়ানের ফ্রিকিক অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। দশম মিনিটে বেলজিক তারকা ইডেন হ্যাজার্ডের প্রচেষ্টা প্রতিহত হয় গোলপোস্টে লেগে। পুরো ম্যাচেই এভাবে সুযোগ নষ্ট করেন মরিনহোর শিষ্যরা। ৪ নবেম্বর স্টামফোর্ড ব্রিজে ফিরতি লেগের ম্যাচে এই কিয়েভের বিরুদ্ধেই খেলবে চেলসি। এই ড্রয়ে তিন ম্যাচে চেলসির পয়েন্ট হলো ৪। তবে তাদের অবস্থানের কোন পরিবর্তন হয়নি। আগের তৃতীয় স্থানেই আছে। ৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে কিয়েভ।

নির্বাচিত সংবাদ