১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিরিজ ফয়সালার টেস্ট

  • মুখোমুখি শ্রীলঙ্কা-ওয়েস্ট ইন্ডিজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শ্রীলঙ্কা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার সিরিজ নির্ধারণী দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট শুরু আজ। গলে প্রথম টেস্টে ইনিংস ও ৬ রানের বড় জয়ে ১-০তে এগিয়ে স্বাগতিক লঙ্কানরা। কলম্বোর পি সারা ওভালে এই ম্যাচে তাই ড্র করলেও সিরিজ এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসদের। অন্যদিকে সিরিজ বাঁচাতে (ড্র) চাইলে জিততেই হবে সফরকারী উ. ইন্ডিজকে। কাজটা জেসন হোল্ডারদের জন্য খুবই কঠিন। একঝাঁক নবীন খেলোয়াড় নিয়ে এবার দ্বীপদেশ লঙ্কায় পাড়ি জমিয়েছে ক্যারিবীয়রা। ১৯৯৩ সাল থেকে শ্রীলঙ্কার মাটিতে সিরিজ জয়ের নজির নেই, ১৬ টেস্টে হার ৭টিতে। পরিসংখ্যানের পাশাপাশি বাস্তবতাও এগিয়ে রাখছে লঙ্কানদের। বিশেষ করে রঙ্গনা হেরাথের বোলিং। গলে ১০ উইকেট নিয়ে ‘নায়ক’ বনে যান অভিজ্ঞ এই স্পিনার।

সফরকারী উ. ইন্ডিজের জন্য একমাত্র আশার খবর, পি সারা ওভালের পিচ। যেখানে স্পিনারদের চেয়ে পেসাররা কিছুটা বেশি সুবিধা পেয়ে থাকেন। হোল্ডার, কেমার রোচ, জেরমো টেইলর, শ্যানন গ্যাব্রিয়েলকে নিয়ে অতিথিদের পেস আক্রমণ যথেষ্ট সমৃদ্ধ। তবে ব্যাটিংয়ের অবস্থা নাজুক। প্রথম টেস্টেই সেটি দেখা গেছে। শ্রীলঙ্কার ৪৮৪ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে ২৫১ রানে অলআউট হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফলোঅনে পড়ে দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে নেমে আরও হতাশ করেন হোল্ডাররা। গুটিয়ে যায় ২২৭ রানে। সর্বোচ্চ ৯২ রান করেন জার্মেইন ব্ল্যাকউড। টপঅর্ডারে চরমভাবে ব্যর্থ হন শাই হোপ, ড্যারেন ব্রাভো, মারলন স্যামুয়েলস ও দীনেশ রামদিনরা। ভরসা হতে পারেন ব্ল্যাকউডই। এ বছর ৪ হাফ সেঞ্চুরির পাশাপাশি এক সেঞ্চুরিও রয়েছে এই মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যানের। ৪৫.৬৬ গড়ে করেছেন ৫৪৮ রান।

তবে টেস্ট একজনের খেলা নয়। তাই হাল ধরতে হবে পুরো টপঅর্ডারকে। ঘুরিয়ে বললে লঙ্কান স্পিনের বিপক্ষে সেরাটা দিতে হবে স্যামুয়েলস-রামদিনদের। শিবনারায়ণ চন্দরপলের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটার দলে না থাকায় ব্যাটিংয়ে এরাই যে ক্যারিবীয়দের ভরসা! পি সারার পিচে পেসারদের পাশাপাশি টপক্লাস স্পিনারদের জন্যেও মন্দ নয়। ইতোপূর্বে এখানে ভাল করেছেন ভারতের রবিচন্দ্রন আশ্বিন-অমিত মিশ্ররা। সুতরাং ইনফর্ম হেরাথের সঙ্গে তরুণ থারিন্ডু কুশলের স্পিনের বিপক্ষে পরীক্ষায় পড়তে হবে ক্যারিবীয়দের। ব্যাট হাতে এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস হতে পারেন সফরকারী বোলারদের মাথাব্যথার কারণ। দু’দিন আগে টানা দ্বিতীয়বারের মতো শ্রীলঙ্কার বর্ষসেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। দারুণ ছন্দে আছেন প্রতিভাবান দীনেশ চান্দিমাল। গলে ১৫১ রানের দুরন্ত ইনিংস উপহার দেন তিনি। ১৮৬ রানের ড্যাশিং ইনিংস খেলেন ওপেনার দিমুথ করুনারতেœ।

ড্র নয় ম্যাচ জিতে প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করতে চান ম্যাথুস। লঙ্কাপতি বলেন, ‘ড্র নয়, আমাদের একমাত্র লক্ষ্য জয়। উ. ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করতে চাই।’

নেইমারের কষ্ট...

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অবাক করা ঘটনাই বলতে হবে। স্বদেশী ক্লাব সান্টোসকে দিয়েছেন অনেক স্মরণীয় সাফল্য। অথচ সেই তারাই কিনা কিছুদিন আগে নেইমারের নামে নালিশ করেছে ফিফার কাছে। সান্টোসের দাবি এমন- নেইমারকে নিষিদ্ধ করা হোক ছয় মাস! সাবেক ক্লাবের এমন মন্তব্যে ভীষণ কষ্ট পেয়েছেন ব্রাজিলিয়ান অধিনায়ক।

সান্টোসের হয়ে খেলার সুবাদেই আজকের অবস্থানে এসেছেন নেইমার। ক্যারিয়ারের উত্থান ক্লাবের হয়ে কৃতজ্ঞতার শেষ নেই বর্তমান বার্সিলোনা তারকার। থাকবেও সারাজীবন। কিন্তু সাবেক ক্লাব তাকে নিয়ে যা বলেছে তাতে নেইমার ভীষণ মর্মাহত। এ প্রসঙ্গে নেইমার বলেন, সান্টোসের বিষয়ে কথা বলতে চাই না। ওদের সঙ্গে আমার সম্পর্ক শেষ হয়ে গেছে, আমি অবশ্যই খুব দুঃখ পেয়েছি। কিন্তু আমি এ ব্যাপারে কথা বলতে চাই না। এদিকে লিওনেল মেসির অনুপস্থিতি আবারও ভুলিয়ে দিয়েছেন নেইমার। মঙ্গলবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে গোল না পেলেও বার্সার দু’টি গোলের রূপকারই তিনি। ইভান রাকিটিচকে দিয়ে গোল করান নেইমার। দু’টি গোলেই অবদান রাখা পার্শ্বনায়ক নেইমারের পারফরমেন্সে সন্তুষ্ট বার্সিলোনা কোচ লুইস এনরিকে। ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ বলেন, এই দুই গোল রাকিটিচের জন্য এবং দলের জন্য সুফল বয়ে এনেছে। যত বেশি খেলোয়াড় গোল করবে ততই ভাল। বার্সার মতো একটা দল সব সময় সুযোগ তৈরি করে। আর আমি সবসময়ই নেইমারকে এমন ভাল খেলতে দেখেছি। তার উপর নতুন করে চাপ দেয়ার কোন প্রয়োজন নেই।