২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

২৪ ঘণ্টা পানিতে ভেসে রেকর্ড গড়লেন হাফিজ ও জালাল

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ ২৪ ঘণ্টা পানিতে ভেসে থেকে রেকর্ড গড়লেন মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার ইসমানির চরের হাফিজ আহাম্মেদ ভুলু ও জালাল আহাম্মেদ। বুধবার বিকেল ৪টায় তারা এই রেকর্ড গড়েন। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুবা বিলকিস হাফিজ আহাম্মেদ ভুলু ও জালাল আহাম্মেদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন । এর কিছুক্ষণ পরই জালাল অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ভবের চর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এসব তথ্য দিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুবা বিলকিস জানান, মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় এলাকাবাসীর আয়োজনে এক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে পানিতে মাথা না ভিজিয়ে ফুলদি নদীতে ভেসে থেকে বিশ্ব রেকর্ড গড়তে পানিতে নামেন তিনি। হাফিজের এই চেষ্টাতে উৎসাহ যোগাতে রসুলপুর খেয়াঘাট ও ফুলদী নদীর দুই পাড়ে জমা হন হাজারো মানুষ। তবে এটি হাফিজের একক পানিতে মাথা না ভিজিয়ে থাকার অনুষ্ঠান হলেও অবশেষে এটি পরিণত হয় প্রতিযোগিতায়। হাফিজের সঙ্গে আরও বেশ কয়েকজন পানিতে নেমে পড়ে ভেসে থাকতে।

তবে কেউই ২৪ ঘণ্টা ভেসে থাকতে পারেনি। পানিতে ভেসে থেকেই ২৪ ঘণ্টার খাওয়া-দাওয়াও সারেন হাফিজ ও জালাল। তাদের ইচ্ছা, পর্যায়ক্রমে আর দীর্ঘ সময় নিয়ে তিনি ঠাঁইহীন পানিতে থাকার চেষ্টা করবেন এবং এক সময় গ্রীনিজ বুকে নিজের নাম লিখিয়ে রেকর্ড গড়ার। হাফিজ স্থানীয় ইসমানির চর গ্রামের ও জালাল স্থানীয় ঘোষাইচরের বাসিন্দা।

রাজশাহীতে বাংলাদেশ ভূখ-ের ক্ষেত নষ্ট করছে ভারতীয়রা!

সীমানা নির্ণয়ে ডিসির কাছে কৃষকদের আবেদন

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ দুই বছর আগে রাজশাহীর পদ্মাগর্ভে বিলীন হওয়া সীমানা পিলার পুনরুদ্ধার না করায় সীমান্তের জমির ফসল নিয়ে বিপাকে পড়েছেন সীমান্ত সংলগ্ন কৃষকরা। এরই মধ্যে ভারতীয় কৃষক বাংলাদেশের ভূ-খ-ে প্রবেশ করে নিজেদের ক্ষেত দাবি করে নষ্ট করতে শুরু করেছে। অনেকের ক্ষেত দখলেরও চেষ্টা চালাচ্ছে। এ কারণে এদেশের জমির মালিক পবা উপজেলার সোনাইকান্দি এলাকার মৃত ইয়াকুব আলী ম-লের মেয়ে ফিরোজা শিকদার নামের এক নারী রাজশাহীর জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। একইসঙ্গে তিনি সীমান্তের জমি রক্ষায় সীমানা নির্ণয়সহ পিলার স্থাপনের আবেদন করেছেন।

জেলা প্রশাসকের কাছে দেয়া আবেদনের প্রেক্ষিতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পদ্মার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় দু’বছর থেকে সীমান্ত সংলগ্ন চরাঞ্চলে বাংলাদেশের ভূ-খ-ের ব্যাপক এলাকা নদীগর্ভে তলিয়ে যায়। সরকারী স্থাপনা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে অনেক গাছপালা ও কৃষকের ক্ষেত তলিয়ে যায়। সেই সঙ্গে তলিয়ে যায় বাংলাদেশ-ভারতের সীমান্ত পিলার। চলতি বর্ষায় ওইসব সীমান্ত পিলার এলাকা ডুবে থাকলেও এখন অনেকটা জেগে আছে। এবার জেগে উঠা জমিতে সীমান্তবর্তী কৃষকরা মাসকলাইসহ অন্যান্য সবজি আবাদ করেছেন। তবে ভারতীয় কৃষকরা এপারে প্রবেশ করে বাংলাদেশী কৃষকের চাষ করা ফসলের ক্ষেত বিনস্ট করে দিচ্ছে। রাজশাহী বিজিবির সোনাইকান্দি বিওপির দায়িত্বপ্রাপ্ত অধিনায়ক সাইফুল ইসলাম বলেন, সীমানা নির্ণয়ের জন্য বিএসএফকে জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, জমি দখলের জন্য ভারতীয়রা কৃষকের ক্ষেত নষ্ট করছে। বিষয়টি তারা গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন বলে জানান।