২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভুয়া মেজরের ভূমিদস্যুতা

  • অঢেল সম্পদের মালিক

নিজস্ব সংবাদদাতা, জামালপুর, ২১ অক্টোবর ॥ জেলার ইসলামপুরের মুখশিমলা গ্রামের বর্তমান বাসিন্দা সেনাবাহিনীর চাকরিচ্যুত সওকত আলী নিজেকে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সওকত হাসান পরিচয় দেন। আর মেজর পরিচয়ে ভূমি ব্যবসার নামে একের পর এক নিরীহ মানুষের সম্পদ জবরদখল করছেন। তিনি ভূমি দখলসহ বিভিন্ন অবৈধ ব্যবসার মাধ্যমে স্বল্প সময়ে কোটি কোটি টাকাসহ বিলাসবহুল বাড়ি-গাড়ির মালিক ও এসার্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান বনে যাওয়ার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত সওকত আলীর সমস্ত সম্পদের বৈধতা যাচাইপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোঃ খায়রুল আলম সেখ গত ২৩ সেপ্টেম্বর এক পত্রে জামালপুরের পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দিয়েছেন।

ইসলামপুরের মুখশিমলা গ্রামের আব্দুল আজিজ প্রধানসহ মুখশিমলা গ্রামের দুই শতাধিক মানুষের স্বাক্ষরিত অভিযোগে জানা যায়, ওই গ্রামের সওকত আলীর সিপাহী নং-৩৯৬৯৮১০। তিনি ১৯৮৩ সালে কাপ্তাই সেনা ক্যাম্পে চাকরিরত অবস্থায় প্রথম স্ত্রী শিউলি আক্তারকে রেখে প্রেমের ফাঁদে ফেলে জিনাত নামের এক মেয়েকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। তখন প্রথম স্ত্রী শিউলি আক্তার তার শিশু সন্তান সুমিকে নিয়ে কাপ্তাই সেনা ক্যাম্পে গিয়ে একটি অভিযোগ দাখিল করেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে ১৯৮৩ সালের ১৯ জুন সেনা কোর্ট মার্শালের বিচারে সিপাহী সওকত আলীকে চাকরিচ্যুত করা হয়। মুখশিমলা গ্রামের আব্দুল আজিজ প্রধান জানান, তিনি বর্তমানে অবৈধ টাকার জোরে ঢাকা শহরের গুলশান বারিধারা এলাকায় নির্মিত জামালপুর টুইন টাওয়ার, জামালপুর টাওয়ার-৩, খিলক্ষেত বিমানবন্দর রোডের জামালপুর প্রপার্টিজ লিঃ, মিরপুর-১৩ নং এলাকার বাইশটেকি কাজী আলী হোসাইন রোডের মিয়াবাড়ী টাওয়ার কমপ্লেক্স, মিরপুর আরামবাগ হাউজিং এলাকার জিনাত প্যালেস, ইসলামপুরের মুখশিমলা গ্রামের গ্রামীণ ভবন নামের সুরম্য অট্টালিকা এবং বিলাসবহুল মূল্যবান গাড়িসহ অঢেল সম্পদের মালিক বনে গেছেন।

এ ছাড়াও চাকরিচ্যুত সিপাহী সওকত আলী নিজেকে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সওকত হাসান পরিচয় দিয়ে অবৈধ টাকার জোরে গত ২০ মার্চ ঢাকা শহরের গুলশান বারিধারা এলাকায় নির্মিত জামালপুর টুইন টাওয়ারে এক সংবাদ সম্মেলন করেন। ওই সংবাদ সম্মেলন তিনি জাতীয় বঙ্গলীগ নামের একটি নতুন রাজনৈতিক দলের আত্মপ্রকাশ ঘটান। সেইসঙ্গে জাতীয় বঙ্গলীগের আহ্বায়ক হিসেবে মেজর (অব) সওকত হাসান মিয়ার নাম ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে সওকত আলীর সঙ্গে মুঠো ফোনে কথা হলে তিনি জানান, আমি মেজর পরিচয় দেই তাতে আপনার কি হয়েছে। আপনি যা পারেন লেখেন। পত্রিকায় লেখলে কিছুই হয় না।