২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কাল থেকে ‘ডি-ফটোক্যাফে’র আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র প্রদর্শনী

আলোকচিত্র জীবনের কথা বলে। বলে সময়ের কথা, স্বপ্ন ও বাস্তবতার কথা। বলে বিরহের কথা, প্রেমের কথা, বেডরুমের এক কোণে চুপটি করে কারও ঝিমিয়ে পড়ার কথা। আলোকচিত্রকররা তাদের মনের ভাবনাকে ক্যামেরার লেন্সের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেন বারবার।

‘দৃক গ্যালারি’ বাংলাদেশের খুবই জনপ্রিয় চিত্রশালা। অবস্থান ধানম-ি ২৭ এ (নতুন ১৫/এ), বাড়ি নং- ৫৮। প্রায় প্রতিদিনই সেখানে বিভিন্ন জনপ্রিয় এমনকি নতুন আলোকচিত্রকরদের মনের চোখে দেখা ভাবনাগুলো ছবি আকারে প্রদর্শিত হয়। আগামী ২৩ ও ২৪ (শুক্র ও শনিবার) অক্টোবর সেই অতি পরিচিত দৃক গ্যালারীতে প্রদর্শিত হবে দেশ-বিদেশের শ’খানেক আলোকচিত্রশিল্পীর নিপুণ হাতে গড়া শতাধিক আলোকচিত্র। সেগুলোর বিষয় মুক্ত, স্বাধীন, নির্দিষ্ট নয়। এই প্রদর্শন অনুষ্ঠানটির নাম দেয়া হয়েছে ‘ওহঃবৎহধঃরড়হধষ ঊীযরনরঃরড়হ ঙভ উ’ঢ়যড়ঃড় ঈধভব’। প্রদর্শনীটি আয়োজন করেছে ‘ডি-ফটোক্যাফে’। এটি দুই বছরেরও অধিক সময় ধরে সক্রিয়, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র শিল্পীদের সমন্বয়ে গড়া সংগঠন। এখন সময়টা আধুনিক, ইন্টারনেট নির্ভর। বিভিন্ন সময় তাই অনলাইনের মাধ্যমে প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করার কারণে এই সংগঠনটির বহুল পরিচিতি রয়েছে। তবে, এরা এবারই প্রথম দৃক গ্যালারিতে প্রদর্শনীর মতো এমন একটি নান্দনিক ও প্রশংসনীয় উদ্যেগ নিয়েছে। ‘ডি-ফটোক্যাফে’র প্রতিষ্ঠাতা এসআরএফ খান বললেন- ‘আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে, দেশী-বিদেশী আলোকচিত্রশিল্পীদের সঙ্গে নিয়ে আয়োজিত প্রদর্শনীটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হবে ২৩ অক্টোবর শুক্রবার বিকেল ৩ : ৩০ মিনিটে। আমরা চাই নতুন এবং অভিজ্ঞদের সমন্বয়ে একটা ভাল কিছু হোক।’ প্রদর্শনীতে উপস্থিত থাকবেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি ও সম্মাননা প্রাপ্ত উর্র্ধতন আলোকচিত্রকর ডেভিড পল বারিকদার ও তাঁর দল।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে এ প্রজন্মের অন্যতম সেরা নির্মাতা মোস্তফা সারোয়ার ফারুকীর। উপস্থিত থাকবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রদ্ধেয় শিক্ষক সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম। থাকবেন ‘ডি-ফটোক্যাফে’র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক গ্রুপের এডমিন প্যানেল ও নিয়মিত সদস্যরা।

প্রদর্শনী শেষে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় পুরস্কারও ঘোষণা হবে সবগুলো ছবির মধ্যে থেকে, এমনটাই জানালেন এসআরএফ খান। আলোকচিত্রপ্রেমীরা তো বটেই, সৃষ্টিশীল সবাই এই মুক্ত প্রদর্শনীতে আসুক, দেখুক, ভাবুক, জানুক, জানাক; এমনটাই প্রত্যাশা..

আনন্দকন্ঠ ডেস্ক