২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘আইএমএফের শর্ত পূরণ হয়েছে’

অনলাইন ডেস্ক ॥ বাংলাদেশের জন্য বর্ধিত ঋণ সুবিধার (ইসিএফ) সঙ্গে আইএমএফের দেওয়া সবগুলো শর্ত পূরণ হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা গণগ্রন্থাগারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ মন্তব্য করেন তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা প্রশাসক জয়নাল আবেদীন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ও সাবেক সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা হক।

ইসিএফের আওতায় বাংলাদেশকে তিনবছর মেয়াদী ৯০ কোটি ৪২ লাখ ডলারের ঋণ দিতে ২০১২ সালের ১১ এপ্রিল আইএমএফ চুক্তিবদ্ধ হয়, যার মেয়াদ ৩১ অক্টোবর শেষ হবে। তার আগে বুধবার ঋণের শেষ দুই কিস্তিসহ আটকে থাকা প্রায় ২৬ কোটি ডলার ছাড় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঋণদাতা সংস্থাটি।

এই ঋণ ছাড়ের ক্ষেত্রে আইএমএফ কোনো শর্ত দিয়েছে কি না জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, “কী শর্ত? না কারো কোনো শর্ত নাই। কেননা, যা (শর্ত) ছিল এসব হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, শর্ত তারা দেয়, এটা নিয়ম তাদের। শর্ত নিয়ে যেটা আমার সঙ্গে তাদের আলোচনা- ‘তোমরা শর্ত দেবে না, আমার শর্ত যেগুলো আছে, সেগুলি নিয়েই করবে এবং সেভাবেই তারা করেছে’।

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক কর্মসূচির অগ্রগতিতে সন্তোষ প্রকাশ করে আইএমএফ অর্থ ছাড়ের সিদ্ধান্ত নিলেও সংস্থাটি অবশ্য বেশ কিছু ক্ষেত্রে সংস্কার কর্মসূচি চালিয়ে নিতে সুপারিশ করেছে।

এর মধ্যে কাঠামোগত সংস্কারের পাশাপাশি ২০১৬ সালে নতুন মূল্য সংযোজন কর আইন চালু করা, জ্বালানি খাতে ভর্তুকি আরও কমানো এবং রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোয় সংস্কার কর্মসূচি অব্যাহত রাখার সুপারিশ করা হয়েছে।

সম্প্রতি দেশে দুই বিদেশি হত্যার ঘটনায় তৈরি পোশাক পণ্যের ক্রেতাদের মধ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে কি না তা জানতে চান সাংবাদিকরা।

জবাবে মুহিত বলেন, এটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা, এতে ‘টেম্পোরারি ডিফিকাল্টি’ হতে পারে। বায়ার কমার কোনো সম্ভাবনা নেই।

দুই বিদেশি হত্যার বিষয়টি নিয়ে ইস্যু তৈরি করা হচ্ছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, বাংলাদেশে এমন কোনো অবস্থা হয়নি যে বিদেশিরা মুখ ফিরিয়ে নেবে।

পাল্টা যুক্তরাষ্ট্রের উদারহণ দিয়ে মুহিত বলেন, নিউইয়র্কে যে (প্রতিবছর) কত হাজার লোক মারা যায়, এর মধ্যে কত বাঙালিও আছে।