১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কেবল ছিন্নমূলরা! ॥ ঝলক

 কেবল ছিন্নমূলরা! ॥ ঝলক

বিয়ের অনুষ্ঠানে সাধারণত নিকটাত্মীয় ও বন্ধুবান্ধবদের দাওয়াত করা হয়ে থাকে- এটাই প্রচলিত। কিন্তু কখনও কি শুনেছেন বিয়ের অনুষ্ঠানের সব আমন্ত্রিত অতিথিই ছিন্নমূল লোকজন! ঠিক এমনটিই করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার এক নবদম্পতি। তাদের বিবাহোত্তর অনুষ্ঠানে আত্মীয়স্বজনদের পরিবর্তে ছিন্নমূল লোকদের আমন্ত্রণ করেন। সম্প্রতি সেখানকার সেক্রেমেন্টসের সিটিজেন হোটেলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন ওই নবদম্পতি। কনের মা কারি ডোয়ানে জানান, তার কন্যা ও জামাতার সিদ্ধান্তেই ছিন্নমূল শিশুদের দাওয়াত দিয়ে খাওয়ানো হয়। ৯০ জন আমন্ত্রিত অতিথিকে স্টেক, সালাদ, মাছ এবং আরও নানা মজাদার খাবার দিয়ে আপ্যায়ন করা হয়। তিনি আরও বলেন, মেয়ে এবং জামাতার এ সিদ্ধান্তে প্রথমে আমাদের মন খারাপ হয়েছিল। তবে যখন অনেক ছিন্নমূল মানুষকে একসঙ্গে খাবার খেতে দেখলাম, তখন সত্যি ভাল লেগেছে, খুশি হয়েছি।

লোভই মানুষের শত্রু

‘যন্ত্রসভ্যতা বা যন্ত্রমানব নয়, মানুষের লোভই সভ্যতার সবচেয়ে বড় শত্রু’Ñ বলেছেন পদার্থবিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং। তিনি বলেন, যন্ত্রসভ্যতায় যন্ত্রের মালিকরা দ্রুত মুনাফা লাভ করবে ও অর্থনৈতিক অসাম্য তৈরি হবে। এজন্য রোবট বা যন্ত্রমানব নয়, দায়ী হচ্ছে পুঁজিবাদী ব্যবস্থায় মুনাফার প্রতি মানুষের লোভ। হকিং বলেন, যন্ত্রসভ্যতার যুগে যন্ত্রের মালিকরা নয়া বুর্জোয়া হিসেবে আবির্ভূত হবে। ফরাসী অর্থনীতিবিদ টমাস পিকেটির কথা পুনর্ব্যক্ত করে তিনি বলেন, ‘ধনীদের অর্থ যত দ্রুত বাড়ে, শ্রমিক শ্রেণীর মজুরি তত দ্রুত বৃদ্ধি পায় না। ফলে অর্থনৈতিক অসাম্য অনিবার্য হয়ে পড়ে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই যন্ত্রচালিত যুগে সম্পদের বণ্টন নিয়ে মানুষের চিন্তা-ভাবনাই বৈষম্য তৈরি করে।’

নিজের মৃত্যু সংবাদ

সাধারণত কোন ঘটনা ঘটার পরই সেটা খবরের শিরোনাম হয়। তাই বলে নিজের মৃত্যু সংবাদে নিজেই শিরোনাম! হ্যাঁ, নিজের জীবদ্দশাতেই বিশ্ববাসীকে নিজের মৃত্যু সংবাদ জানিয়ে খবরের শিরোনাম হলেন ৫৭ বছরের ব্রিটিশ ব্যবসায়ী সিমন বিনার। মৃত্যুর আগে লিঙ্কডইন প্রোফাইলে দেয়া এক পোস্টে নিজের মৃত্যুর খবর জানান সিমন। ওই পোস্টে তিনি লিখেছেনÑ ‘১৯ অক্টোবর ২০১৫, সোমবার আমি সুইজারল্যান্ডে মারা গিয়েছি। আমার শেষকৃত্য ১৩ নবেম্বর ২০১৫, শুক্রবার।’ চিকিৎসকরা জানিয়ে দিয়েছিলেন (৬ পৃষ্ঠা ১ কঃ দেখুন) নিজের মৃত্যু সংবাদ

(প্রথম পৃষ্ঠার পর)

গুরুতর অসুস্থ সিমন আর সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবেন না। সুইজারল্যান্ডের এক ইউথ্যানেশিয়া (স্বেচ্ছামৃত্যু) ক্লিনিকে স্বেচ্ছামৃত্যুর আগে তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের মৃত্যুর খবর দিয়ে যান সিমন।