১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কুমিল্লায় বাস হেলপার সিদ্ধিরগঞ্জে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুমিল্লা, ২২ অক্টোবর ॥ বুধবার গভীর রাতে নৈশকোচ থেকে নামিয়ে আজহারুল হক নামের এক পরিবহন শ্রমিককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকালে শ্রমিকরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ব্যারিকেড দিলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় ইমন হোসেন নয়ন ও জিয়াউদ্দিন নামে দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ। চৌদ্দগ্রাম উপজেলার চিওড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত আজহারুল হক বিশাল পরিবহন বাসের হেলপার এবং ময়মনসিংহ জেলা সদরের বাতিবরোরা গ্রামের মকবুল আহমদের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, চিওড়া ইউনিয়নের হালদারমুড়া গ্রামের সবুজ নামের এক যুবক প্রায় ১৫ দিন আগে চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহ অভিমুখী বিশাল পরিবহনের একটি বাসযোগে চিওড়া কাউন্টার থেকে টিকিট ক্রয় করে ঢাকা যায়। পথে ওই যুবকের সঙ্গে ওই বাসের এক হেলপারের কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর জের ধরে ওই যুবক পরদিন চিওড়া এলাকায় রাস্তার ওপর একটি সাইকেল রেখে ওই পরিবহনের একটি বাসকে আটকের চেষ্টা করলে বাসটি সাইকেলের ওপর দিয়ে চালিয়ে চলে যায়। পরে এ বিষয়ে ওই পরিবহনের চিওড়া কাউন্টারের জিয়াউদ্দিনের মাধ্যমে সাইকেল ভাংচুরের বিষয়টি ৫ হাজার টাকায় সমঝোতা হয়। সময়মতো উক্ত টাকা না দেয়ায় ওই যুবক সবুজসহ তার সঙ্গীরা ক্ষিপ্ত হয়ে বুধবার রাতে ওই পরিবহনের একটি বাস চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহের উদ্দেশে ছেড়ে রাত ৩টার দিকে চৌদ্দগ্রামের চিওড়া এলাকায় আসার পর রাস্তায় একটি পাওয়ার টিলার রেখে বাসটিকে থামায়। কিন্তু যুবক সবুজের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনায় জড়িত হেলপার ওই বাসে না থাকলেও বাসটির দরজায় থাকা হেলপার আজহারুল হককে (২৮) টানা-হেঁচড়া করে বাস থেকে নামিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করা হয়। তাকে প্রথমে ফেনী সদর হাসপাতালে ও পরে ঢাকায় নেয়ার পথে বৃহস্পতিবার ভোরে চৌদ্দগ্রাম এলাকায় সে মারা যায়। এ ঘটনায় উত্তেজিত শ্রমিকরা আজহারুলের লাশ নিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে চিওড়া এলাকায় মহাসড়কে ব্যারিকেড সৃষ্টি করার খবর পেয়ে চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, সবুজ নামের ওই যুবক এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত। প্রায় ১৫ দিন আগে বাসে করে ঢাকায় ফেনসিডিল নেয়ার সময় বাসে তল্লাশি চালিয়ে পুলিশ তার ফেনসিডিল নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বাসের হেলপারের যোগসাজশ রয়েছে এমন ধারণা থেকে সবুজ ও তার সহযোগীরা ওই পরিবহনের বাসটি আটক করে এ ঘটনা ঘটায়। চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি মোহাম্মদ ফরহাদ জানান, হেলপার আজহারুলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিজস্ব সংবাদদাতা সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে জানান, সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলের দক্ষিণ এনায়েতনগর এলাকায় আব্দুল্লাহ নীরব (২৬) নামে এক যুবকে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ ধারণা করছে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নীবরকে বুধবার রাতে কয়েক যুবক বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। গভীর রাতে তাকে আহত অবস্থায় বাসার সামনে ফেলে তারা চলে যায়। হাসপাতালে নেয়ার পর ডাক্তার তাকে মৃত্যু ঘোষণা করে। নিহত নীবর দক্ষিণ এনায়েতনগর এলাকার শুক্কুর মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া নুর মোহাম্মদ মিয়ার ছেলে। পুলিশ জানায়, কয়েক যুবক বুধবার রাতে নীরবকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর গভীর রাতে অচেতন অবস্থায় নীরবকে বাসার সামনে রেখে তারা পালিয়ে যায়। আত্মীয়স্বজন নীরবকে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসাপাতালে নিয়ে যায়। ঐ হাসপাতালের ডাক্তাররা তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন। কিন্তু তার স্বজনরা তাকে ঢামেক হাসপাতালে না নিয়ে বাসায় নিয়ে আসে। বৃহস্পতিবার ভোরে তার অবস্থা আরও অবনতি হলে আবারও তাকে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসাপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নির্বাচিত সংবাদ