২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিপিএল ॥ দিলশানকে নিয়ে ধোঁয়াশা!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগে জানা গিয়েছিল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল-টি২০) তৃতীয় আসরে শ্রীলঙ্কার তিলকরতেœ দিলশানকে দলে ভিড়িয়েছে চিটাগাং। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে রংপুরও দিলশানকে দাবি করছে! দুই দলের সঙ্গেই নাকি চুক্তিও করেছে দিলশান! এই এক ক্রিকেটারকে নিয়ে ঝামেলা বেঁধে গেছে। সবার মুখেই এখন একটিই প্রশ্ন, দিলশান আসলে কার? এই একটি বিষয় ছাড়া বৃহস্পতিবার হওয়া ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ সবকিছুই ঠিকঠাক হয়েছে। কিন্তু দিন শেষে শুধু দিলশানকে নিয়েই চর্চা হয়েছে। এক পর্যায়ে বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক তালিকার বাইরে থাকা বিদেশী ক্রিকেটারদের নাম বলেছে। দলগুলোর বিদেশী ক্রিকেটারদের নাম বলা শেষ করতেই দেখা গেছে দিলশানের নাম কোথাও নেই। তখন থেকেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। দিলশানকে নিজেদের দাবি করে চিটাগাং ও রংপুরের মালিকপক্ষ। এখন এ দাবি খতিয়ে দেখবে বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল। সিদ্ধান্তও দেবে তারাই।

গত ১২ অক্টোবর জানা গিয়েছিল, চিটাগাং ভাইকিংসের হয়ে খেলতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন দিলশান। দলের মালিক আবদুল ওয়াহেদই চট্টগ্রামে জানিয়েছিলেন, দিলশান তাদের হয়েই খেলবে। কিন্তু রবি-সোমবার দিলশানের সঙ্গে চুক্তি হওয়ার কথা জানায় রংপুর রাইডার্স। সবার ভেতর সংশয় জাগে। এরপর সবাই অপেক্ষায় ছিল ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ দিলশানের নামটি কোন দলে থাকে। কিন্তু দেখা গেল কোন দলেই নেই। চিটাগাং ভাইকিংসের মালিক ওয়াহেদ বলেন, ‘১০ তারিখের (অক্টোবরের) আগেই দিলশান আমাদের সঙ্গে চুক্তি করেছে। তাকে চুক্তির কিছু অর্থও দেয়া হয়ে গেছে। এখন আরেকটি দল দিলশানকে দাবি করছে। বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল এ দায়িত্ব নিয়েছে। তারাই সমাধান দেবে। তারা যে সমাধান দেবে তাই মেনে নেব।’ রংপুর রাইডার্সের মালিক মুস্তফা রফিকুল ইসলামও দাবি করেন দিলশান তাদের। বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে দিলশানের চুক্তি হয়েছে। লিখিত চুক্তি। সঙ্গে সিলও আছে। এখন আরেকটি দল যেহেতু দিলশানকে চুক্তি করার কথা বলছে, বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলই এর সমাধান দেবে।’ বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক এ বিষয়ে বলেন, ‘আমরা শুনেছি এ ঘটনা। যেহেতু দুই দলই দাবি করছে দিলশানের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে, তা খতিয়ে দেখতে হবে। চুক্তির কাগজপত্র দেখতে হবে। এরপর সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তবে এ বিষয়ে একটু ভালভাবেই দেখতে হবে। এখন পর্যন্ত যে অবস্থা আছে, তাতে দিলশানই দোষী যদি দুই দলের সঙ্গেই চুক্তি করে থাকে। তবে দেখা গেল একটি দল চুক্তি করল। কিন্তু দিলশানকে অর্থ দেয়ার তারিখ থাকল ১০ তারিখ, সেই অনুযায়ী দলটি অর্থ দিল না। তখন দিলশান অন্য দলের সঙ্গে চুক্তি করে ফেলতেই পারে। সেক্ষেত্রে দিলশানের কোন দোষ থাকবে না। এ বিষয়ে দুই দলের চুক্তিই ভালভাবে দেখে সিদ্ধান্ত দিতে হবে।’