২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সৌদি আরবে শ্রমিকবান্ধব নতুন আইন

  • জরিমানার বিধান

বাংলানিউজ ॥ অভিবাসী শ্রমিকদের অধিকার সুরক্ষায় নতুন আইন করেছে সৌদি আরব। দেশটির শ্রম মন্ত্রণালয়ের করা এ আইনে কোন নিয়োগকর্তা তার শ্রমিকের পাসপোর্ট আটকে রাখলে তাকে (কফিল/স্পন্সর) দুই হাজার রিয়াল (৪১ হাজার বাংলাদেশী টাকা) জরিমানা করা হবে। শ্রমিকের বেতন দিতে বিলম্ব হলে তার জন্যও শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে নতুন আইনে। এছাড়া নিয়োগকর্তা শ্রমিককে দিয়ে শর্তের বাইরে কোন কাজ করালে ১৫ হাজার রিয়াল (৩ লক্ষ টাকা) জরিমানা করা হবে।

যদি কোন শ্রমিককে এমন কোন কাজ করতে বলা হয় যাতে ওই শ্রমিককে অর্থ খরচ করতে হবে তার জন্যও এই একই সাজার বিধান রাখা হয়েছে নতুন আইনে।

নতুন আইনে নিয়োগদাতা কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধেও রয়েছে শাস্তিমূলক ব্যবস্থার বিধান। এর মধ্যে শ্রমিকের মজুরী পরিশোধে বিলম্ব করা, ওভারটাইমের বেতন না দিয়ে অতিরিক্ত সময় কাজ করানো, সপ্তাহের ছুটির দিনে শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করাতে বাধ্য করলে অথবা সাধারণ ছুটির সময়ে শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করালে কোম্পানিগুলোকে শাস্তির খাঁড়ায় পড়তে হবে।

অতিরিক্ত গরমে বা খারাপ আবহাওয়ায় শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করানো হলে সেটাও নিয়ম লঙ্ঘন করা হয়েছে বলে ধরা হবে।

এছাড়া যদি কোন কোম্পানি সৌদি আরবের (সৌদি নাগরিক) কর্মচারীদের কমপক্ষে শতকরা ১২ ভাগকে প্রশিক্ষণ না দেয় তাহলেও তাদের জরিমানা করা হবে। কোন কোম্পানি স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানে সৌদিকরণের আওতায় সৌদি নাগরিক নিয়োগের ভুয়া তথ্য দিলে জরিমানা করা হবে ২৫ হাজার রিয়াল।

সৌদিকরণের জন্য যে কোটা নির্ধারিত আছে তাতে বিদেশী শ্রমিক নেয়া হলেও শাস্তির বিধান আছে। এমন কোম্পানিকে ৫ দিনের মধ্যে বন্ধ করে দেয়ার কঠোর বিধানও রাখা হয়েছে নতুন আইনে।

বিদেশী শ্রমিকদের কাছে ভিসা বিক্রি করা হলে জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে ৫০ হাজার রিয়াল। লাইসেন্স ছাড়া কোন বিদেশীকে নিয়োগ করলে জরিমানা করা হবে ৪৫ হাজার রিয়াল। নারীদের জন্য কর্মক্ষেত্রে যদি পুরুষ নিয়োগ করা হয় তাহলে প্রতিজন পুরুষ শ্রমিকের বিপরীতে জরিমানা করা হবে ১০ হাজার রিয়াল। যদি নারী-পুরুষকে একই সঙ্গে একই কর্মক্ষেত্রে কাজ করতে হয়, তাদের দিয়ে নিষিদ্ধ সময়ে কাজ করানো হয় তাহলে ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার রিয়াল পর্যন্ত জরিমানার বিধান রয়েছে।

কোন কোম্পানি নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যগত মান বজায় রাখতে না পারলে তাদের ২৫ হাজার রিয়াল পর্যন্ত জরিমানার বিধান রেখেছে শ্রম মন্ত্রণালয়। নিয়োগ করার আগে যদি কোন অফিসারের লাইসেন্স না থাকে এবং তাকে নিয়োগ করা হয় তাহলে ১০ হাজার থেকে ২০ হাজার রিয়াল পর্যন্ত জরিমানা করা হবে।