২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জাতিসংঘে সংস্কার ঠেকাতে ঘুষ দিয়েছিলেন চীনারা

  • ভারতের সন্দেহ

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সাবেক সভাপতি জন এ্যাশের চীনাদের কাছ থেকে ঘুষ নেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়ার ঘটনা ভারতের ব্যক্তি সন্দেহকেই সমর্থন করেছে। অন্যান্য উদ্দেশ্যের মধ্যে নিরাপত্তা পরিষদের সংস্কার প্রক্রিয়া বিলম্বিত বা বানচাল করতে জাতিসংঘের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের উৎকোচ দেয়া হচ্ছে বলে ভারত সন্দেহ ব্যক্ত করে এসেছে। খবর টাইমস অন ইন্ডিয়ার।

ম্যাকাওতে জাতিসংঘের উদ্যোগে শত শত কোটি ডলার ব্যয়ে ‘দক্ষিণ দক্ষিণ’ সম্মেলন কেন্দ্র নির্মাণ সমর্থনের বিনিময়ে চীনা ব্যবসায়ী ও কর্মকর্তাদের কাছ থেকে ১৩ লাখ ডলারের ঘুষ নেয়ার দায়ে এ্যাশের বিরুদ্ধে চলতি মাসের প্রথম দিয়ে অভিযোগ আনেন মার্কিন এ্যাটর্নি প্রীত ভারারা।

ভারারার অভিযোগে আরও বলা হয়, অন্যান্য চীনা নাগরিক এ্যান্টিগুয়াতে তাদের ব্যবসায়ের সুবিধার্থে এ্যাশকে লাখ লাখ ডলার দিয়েছিলেন।

এ্যাশ এক সময়ে এ্যান্টিয়াগো ও বারবুডার দূত ছিলেন। ঘুষ দান প্রক্রিয়ায় মাত্র কিছু কিছু বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ পেলেও জাতিসংঘের কর্মপদ্ধতিকে প্রভাবিত করতে চীনারা কি কি উপায়কে কাজে লাগিয়ে থাকেন, তার ক্লু পেতে সে সব তথ্য যথেষ্ট।

চীনের আরও স্বার্থ রক্ষার জন্য সাধারণ পরিষদের ওই সভাপতিকে ঘুষ দেয়া হয়েছিল বলে জানা যায়। ভারতের জন্য এ দাবিই এ্যাশের বিরুদ্ধে আনীত দুর্নীতির অভিযোগের অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ভারত মনে করে এর একাংশ জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সংস্কার প্রক্রিয়াকে প্রভাবিত করার সঙ্গে সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। চীন এ প্রক্রিয়ার জোরালোভাবে বিরোধিতা করে এসেছে।

নির্বাচিত সংবাদ