২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কক্সবাজারে গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে বেতন তুলছেন তিন সহোদর

  • পুলিশ তাদের খুঁজে পাচ্ছে না

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ পেকুয়ায় গ্রেফতারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে সরকারী কর্মচারী তিন সহোদর প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা ও চাকরি করে গেলেও পুলিশ তাদের খুঁজে পাচ্ছে না বলে জানা গেছে। শিলখালী সবুজপাড়ার মৃত নুর আহমদের পুত্র জারুলবুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুর রাজ্জাক, পেকুয়া সরকারী হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী অপর দুই ভাই যথাক্রমে নেজাম উদ্দিন ও জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে পেকুয়া থানার একটি জিআর মামলায় আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। তারা তিন ভাই নিয়মিত তাদের স্ব-স্ব কর্মস্থলে উপস্থিত হয়ে হাজিরা বইয়ে স্বাক্ষর ও নিয়মিত সরকারী বেতন ভাতা উত্তোলন করে চলছেন। পেকুয়া থানা পুলিশ বলছে, আসামিদের হদিস মিলছে না।

জানা যায়, শিলখালী ইউনিয়নের সবুজপাড়ার রহমত আলীর কিছু জায়গা জোরপূর্বক দখলের জন্য গত ৮ জানুয়ারি হামলা চালায় আবদুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী। তাদের হামলায় রহমত আলীর পুত্র মোরশেদ আলমের ডান পা গুরুতর জখম এবং পরবর্তীতে ওই পা কেটে ফেলা হয়। এ ঘটনার মোরশেদের মা মোতাহেরা বেগম বাদী হয়ে মাস্টার আবদুর রাজ্জাক, তার ভাই নেজাম উদ্দিন, জসিম উদ্দিন, জামাল উদ্দিন, আবদুর রাজ্জাকের স্ত্রী শফিকা বেগমের বিরুদ্ধে চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি ফৌজদারি মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে আদালতের নির্দেশে পেকুয়া থানা মামলা (নং ১১) রেকর্ড করা হয়। ওই মামলায় তাদের বিরুদ্ধে আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। সম্প্রতি চকরিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ওই তিনজনকে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য স্থানীয় পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তিও জারি করেছে।