২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কোহলির বিরাট পরীক্ষা

কোহলির বিরাট পরীক্ষা
  • বৃহস্পতিবার শুরু ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম টেস্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ঘরের মাটিতে বরাবরের ‘বাঘ’ ভারত এবার যেন ‘বিড়াল ছানা!’ নিজেদের টি২০-ওয়ানডে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে সিরিজ হার। কেবল লজ্জাই নয়, চরম অস্বস্তিতে ক্রিকেটের মোড়লরা। মহেন্দ্র সিং ধোনির দল প্রথমে তিন ম্যাচের টি২০ হারে ০-২ ব্যবধানে, এরপর ওয়ানডে ২-৩ এ। নিজ আঙ্গিনায় ছড়ি ঘোরানো সেই ভারত উধাও। ধোনির পর এবার কঠিন পরীক্ষার মুখে বিরাট কোহলির দল। টেস্টের নেতৃত্বের দায়িত্ব পেয়ে যিনি প্রথম মিশনেই শ্রীলঙ্কা জয় করে সপ্তাকাশে উড়ছেন। শ্রীলঙ্কা আর দক্ষিণ আফ্রিকা যে এক নয়, ক্যাপ্টেন কুল ধোনি ইতোমধ্যে তা টের পেয়েছেন। পারবেন ‘ক্রেজি’ কোহলি? ভারত সফরে প্রোটিয়ারা দুর্দান্ত খেলছে। তাই কাজটা কেবল কঠিনই নয়, বড় রকমের চ্যালেঞ্জেরও।

দেশের মাটিতে প্রথম অধিনায়কত্ব করতে নামছেন কোহলি। প্রোটিয়া-সিরিজ তার জন্য সত্যিকারের এক অগ্নিপরীক্ষা বলে মনে করছেন দেশটির সাবেক তারকা সঞ্জয় মাঞ্জারেকার, ‘কোহলিকে ভিন্ন মাঠে ভিন্ন পরিবেশে মানিয়ে নেয়া শিখতে হবে। এর ওপরে ওর সাফল্য অনেকটা নির্ভর করবে। মনে রাখতে হবে ওয়ানডে আর টেস্ট এক জিনিস নয়, যেমন এক নয় বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা আর ভারতের কন্ডিশন। এমনকি ভারতেরই এক ভেন্যুর সঙ্গে অন্যটির পার্থক্য কম নয়। টেস্টে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সেই প্রস্তুতি ম্যাচ থেকে টি২০ হয়ে ওয়ানডেÑ দক্ষিণ আফ্রিকা এখানে মানিয়ে নিয়েছে বলেই সাফল্য পাচ্ছে। হাশিম আমলা, এবি ডি ভিলিয়ার্স, ফাফ ডুপ্লেসিসরা অসাধারণ ক্রিকেট খেলছে। সিরিজটা তাই কোহিলর জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।’

তবে ওয়ানডের ব্যর্থতা মুছে টেস্টে দল নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর সামর্থ্য কোহলির আছে বলেও মনে করেন বর্তমানের এই ক্রিকেট বিশ্লেষক। মাঞ্জারেকার আরও বলেন, ‘কোহলির বড় সম্পদ সে নিজে ন্যাচারাল ট্যালেন্ট। আক্রমণাত্মক খেলতে চায় এবং সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে পছন্দ করে। শ্রীলঙ্কায় সাফল্যের ওপর দেশবাসীর প্রত্যাশা অনেক বেড়ে গেছে। আশা করছি চ্যালেঞ্জটা মোকাবেলা করে টেস্ট সিরিজে ও ঠিকই দল নিয়ে ঘুরে দাঁড়াবে।’ বিশ্বকাপের আগে অস্ট্রেলিয়া সফরে হুট করে নেতৃত্ব ছাড়ার পাশাপাশি টেস্ট থেকে অবসর নেন ধোনি। সাদা পোশাকের ভারত দলের দায়িত্ব ওঠে কোহলির কাঁধে। যদিও বাংলাদেশ সফর ছিল তার প্রথম এ্যাসাইনমেন্ট, তবে সেটি ছিল এক ম্যাচের লড়াই। কোহলির পরীক্ষাটা শুরু হয় শ্রীলঙ্কা সফর দিয়ে। শুরুতেই বাজিমাত করেন তিনি। দীর্ঘ ২১ বছর পর লঙ্কায় সিরিজ জেতে ভারত।

ঘরের মাটিতে এটিই কোহলির প্রথম সিরিজ। সিরিজ বললে হয়ত কম বলা হবে। ম্যারাথান এক দ্বৈরথ। ‘গান্ধী-ম্যান্ডেলা ট্রফি’র লড়াইয়ে দীর্ঘ চার টেস্টে সিরিজ খেলবে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা! মোহালির পাঞ্জাব ক্রিকেট এ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার প্রথম টেস্ট দিয়ে শুরু মাঠের লড়াই। টি২০-ওয়ানডে সিরিজ জয় সফরকারীদের এবার আত্মবিশ্বাসী করে তুলেছে।

টেস্টেও আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন হাশিম আমলা। সাদা পোশাকের অধিনায়ক বলেন, ‘ভারতের মাটিতে তাদের বিপক্ষে খেলা সব সময় চ্যালেঞ্জিং। যেটা ইতিবাচক, তা হচ্ছে সফরে এ পর্যন্ত আমরা সত্যিই ভাল করেছি, চমৎকার ক্রিকেট খেলছি। টি২০-ওয়ানডেতে প্রতিপক্ষকে ব্যাটিং-বোলিং সব বিভাগে পরাস্ত করেছি। টেস্টেও আক্রমণাত্মক খেলতে তৈরি আমরা।’