১৫ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশের প্রশংসায় হোয়াটমোর

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশে একবার এসেছিলেন কোচের দায়িত্ব নিয়ে। ২০০৩ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন। একবার এসেছেন ধারাভাষ্যকার হিসেবে। গতবছর অক্টোবরে বাংলাদেশ-জিম্বাবুইয়ে সিরিজে ধারাভাষ্য দিয়েছেন। এবার যখন তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশে আসলেন, তখন ৭ নবেম্বর শুরু হতে যাওয়া সিরিজে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ জিম্বাবুইয়ে দলের কোচের দায়িত্ব গায়ে সেঁটে আসলেন ডেভ হোয়াটমোর। মঙ্গলবার ঢাকায় এসেই বুধবার বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রশংসাও করলেন। সফর নিয়ে হওয়া সংবাদ সম্মেলনে বললেন, ‘বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দারুণ খেলেছে। বাংলাদেশ বেশ ভাগ্যবানও ছিল। কারণ সেখানে ব্রিসবেনে তাদের একটি ম্যাচ বৃষ্টিতে বাতিল হয় এবং সে ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষই শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপ জিতেছে। কোয়ার্টার ফাইনালে উঠাটাই বাংলাদেশের সেরা প্রাপ্তি। পরে ঢাকায় এসেও তারা সেই ফর্ম ধরে রেখেছে। তারা (বাংলাদেশ) এখন বেশ ভাল দল। ওয়েলডান।’ গতবছর বাংলাদেশের কাছে জিম্বাবুইয়ের ভরাডুবি খুব কাছ থেকে দেখেছেন হোয়াটমোর। যখন সিরিজ শেষ হলো এরপর জিম্বাবুইয়ের কোচের দায়িত্ব দেয়া হলো হোয়াটমোরকে। কিন্তু সময়টি খুব সুখের যায়নি হোয়াটমোরের। অক্টোবরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি২০ সিরিজ হেরেই গেছে জিম্বাবুইয়ে। প্রথমবারের মতো আফগানিস্তান কোন টেস্ট খেলুড়ে দলের বিপক্ষে সিরিজ জিতল। সেই দলটি জিম্বাবুইয়ে। এবং সেই দলের কোচ হোয়াটমোর। আফগানদের বিপক্ষে হারা নিয়ে হোয়াটমোর বলেন, ‘আফগানিস্তনের বিপক্ষে কিছু ব্যক্তিগত ভাল পারফর্মেন্স ছিল। আমরা যে সব ম্যাচ হেরেছি, তাও কিন্তু নয়। ওয়ানডে সিরিজটি শেষ হয়েছে ২-৩ ব্যবধানে। এটা হোয়াইটওয়াশ ছিল না। টি২০ দুটি আমরা হারলেও তা খুব ক্লোজ ছিল। এই সিরিজে (বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজে) উন্নতি করার জন্য মুখিয়ে আছি আমরা।’ জিম্বাবুইয়ে দলটি নিয়ে বলেন, ‘এই দলে বেশ কয়েকজন প্রতিভাবান ক্রিকেটার আছে। যারা ভবিষ্যতে খুব ভাল কিছু করতে পারে। আমি আলাদা করে কারও নাম বলতে চাই না। বাংলাদেশের অনেক বছর আগে যে অবস্থা ছিল এবং আমাদের এখন যে অবস্থা; তাতে দলীয় প্রচেষ্টা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।’ অবশ্য সিরিজ নিয়ে যেন খানিক হুমকিও দিয়ে রাখলেন হোয়াটমোর। বলেছেন, ‘আমরা যদি জিতি, তবে বুঝতে হবে ভাল কিছু করেছি। আমরা যে ভাল দল, তা প্রমাণ করে বাংলাদেশ ছেড়ে যেতে চাই। জিম্বাবুইয়ে দল বেশ শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী।