১৮ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জরিমানাও গুনলেন নিষিদ্ধ মরিনহো

  • রোনাল্ডোর সঙ্গে হাতাহাতির অবস্থা হয়েছিল স্পেশাল ওয়ানের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অনুমিতই ছিল বিষয়টি। শেষ পর্যন্ত তাই হয়েছে। রেফারির সঙ্গে বাজে আচরণের খেসারত হিসেবে এক ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছেন চেলসি কোচ জোশে মরিনহো। শুধু তাই নয়, এক ম্যাচের বহিষ্কারাদেশের পাশাপাশি ৪০ হাজার পাউন্ড জরিমানা গুনতে হবে স্পেশাল ওয়ানকে। কিছুদিন আগে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেডের কাছে ২-১ গোলের হারের ম্যাচে চেলসি কোচ মরিনহো রেফারির সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন। যে কারণে তাকে তৎক্ষণাৎ ডাগআউট ছেড়ে দ্বিতীয়ার্ধের পুরোটাই স্ট্যান্ডে বসে কাটাতে হয়। নিষেধাজ্ঞার কারণে শনিবার স্টোক সিটির বিপক্ষে প্রিমিয়ার লীগে ম্যাচে তিনি থাকতে পারবেন না। এফএ এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ইন্ডিপেন্ডেন্ট রেগুলারিটি কমিশনের শুনানিতে জোশে মরিনহো দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় তাকে এক ম্যাচে স্টেডিয়ামে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। সঙ্গে গুনতে হবে জরিমানা। সোমবার এফএর স্বাধীন নিয়ন্ত্রক কমিশন মরিনহোর দোষ খুঁজে পেয়ে এই শাস্তি প্রদান করেছে। বর্তমানে চেলসিতে যেমন মন্দ সময়ের মধ্যে আছে মরিনহো। তেমনি ২০১০ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত রিয়াল মাদ্রিদের কোচ হিসেবেও সময়টা তেমন ভাল কাটেনি পর্তুগীজ লৌহমানবের। রোনাল্ডো-বেনজেমা-ডি মারিয়া-ওজিলদের মতো তারকাদের পেলেও তিন মৌসুমে রিয়ালকে মাত্র একটি লা লিগা ও একটি কোপা ডেল’রের শিরোপা এনে দিতে পেরেছিলেন তিনি। ওই সময় চাউর হয়, বেশ কয়েকজন ‘শিষ্য’র সঙ্গে ভাল সম্পর্কও ছিল না মরিনহোর। তাদের মধ্যে অন্যতম ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোও। রিয়ালের সবচেয়ে বড় তারকার সঙ্গে নাকি একবার প্রকাশ্যে তর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন স্পেশাল ওয়ান। শুধু তাই নয়, দুজনের মধ্যে হাতাহাতিরও উপক্রম হয়েছিল। রোনাল্ডোকে নিয়ে একটি নতুন বই লেখার কাজে ব্যস্ত স্পেনের ফুটবল বিশেষজ্ঞ গিয়েম বালাগে এমন দাবি করেছেন। সম্প্রতি বইটির কিছু উল্লেখযোগ্য অংশ প্রকাশিত হয়েছে ইংল্যান্ডের দ্য টেলিগ্রাফ পত্রিকায়। সেখানে বালাগে দাবি করেছেন, ২০১৩ সালে ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে কোপা ডেল’রের একটি ম্যাচ শেষে মরিনহোর ওপর ভীষণ রেগে গিয়েছিলেন সি আর সেভেন। কোচকে কোন রকম সম্মান না করে তর্কে মেতে উঠেছিলেন পর্তুগাল অধিনায়ক। ওই ম্যাচ রিয়াল মাদ্রিদ ২-০ গোলে জিতেছিল। খেলা শেষ হওয়ার ১০ মিনিট আগে রোনাল্ডো এত দ্রুত একটা থ্রোইন করেছিলেন যে মেসুত ওজিল বলের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেননি। ডাগআউট থেকে তখনই রোনাল্ডোকে ভর্ৎসনা করেছিলেন মরিনহো। ম্যাচ শেষে ড্রেসিংরুমে মরিনহো প্রসঙ্গটা তুললে রোনাল্ডো নিজেকে স্থির রাখতে পারেননি। উত্তেজিতভাবে তিনি বলে ওঠেন, ‘আপনার জন্য এত কিছু করার পরও আপনি আমার সঙ্গে এ রকম আচরণ করছেন? আপনি এই কথা আমাকে বলেন কীভাবে?’ মরিনহো তখন পর্তুগীজ তারকাকে শান্ত করার জন্য বলেন, ‘আমি এটা দলের স্বার্থে বলছি। কারণ তোমাকে দলের প্রয়োজন।’ কিন্তু রোনাল্ডো তাতে শান্ত হতে পারেননি। সবাইকে শুনিয়ে শুনিয়ে উচ্চঃস্বৈরে তিনি বলেন, ‘আপনার জানা থাকা দরকার যে আমার মতো চিন্তা দলের অনেকেই করে। কিন্তু সেটা আপনাকে বলার মতো সাহস কারও নেই।