২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ওয়াগনারের রাজসিক প্রত্যাবর্তন

  • বিউটি পারভীন

গত বছরটা ভাল যায়নি একেবারেই। টানা দুই বছর ইউএস ন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন হলেও পারেননি গতবার। কিন্তু নিজেকে ফেরানোর চেষ্টা চালিয়ে গেছেন এ্যাশলে ওয়াগনার। ২৪ বছর বয়স এই জগতের জন্য বুড়িয়ে যাওয়া। কারণ আকর্ষণীয়, মোহনীয় আর চমকপ্রদ ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ফিগার স্কেটিংয়ে কিশোর বয়সেই ঝড় তোলেন সবাই। ১৫, ১৬, ১৭ বছর বয়সেই অনেক কিছু জয় করে ফেলেন ফিগার স্কেটাররা। বিশ পেরোলেই অভিজ্ঞতা সমৃদ্ধ এবং এ জগতকে বিদায় দেয়ার সময় হয়ে যায় অন্তত মহিলাদের প্রতিযোগিতায়। অনেকে মনে করছিলেন ওয়াগনার ফুরিয়ে গেছেন। কিন্তু তবু হার মানতে নারাজ ছিলেন ওয়াগনার। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এ ২৪ বছর বয়সী স্কেটারের সেই লড়াইটা সুফল বয়ে এনেছে মৌসুমের শুরতেই। নতুন মৌসুমের দ্বিতীয় আইএসইউ গ্রাঁ প্রিঁ ইভেন্ট স্কেট কানাডায় জিতে গেছেন তিনি স্বর্ণ পদক। এর মাধ্যমে যেন ঘোষণাও দিয়ে দিলেন এখন পর্যন্ত ফুরিয়ে যাননি তিনি।

মৌসুমের প্রথম গ্রাঁ প্রিঁ আসর স্কেট আমেরিকায় অবশ্য ওয়াগনার ছিলেন না। এ্যাসাইনমেন্ট ছিল গ্রেসি গোল্ড, কারেন চেন ও মারিয়াহ বেলের ওপর। গ্রেসি গোল্ড না জিতলেও সিলভার জিতেছেন। নতুন মৌসুুমের গ্রাঁ প্রিঁ ফিগার স্কেটিং শুরু হয়ে গেছে। সপ্তাহখানেক আগেই বছরের প্রথম গ্রাঁ প্রিঁ আসর স্কেট আমেরিকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে চমক দেখিয়ে প্রথমবারের মতো গ্রাঁ প্রিঁ আসরে নেমেই স্বর্ণ জয় করেছেন রাশিয়ান কিশোরী ইভগেনিয়া মেদভেদেভা। আর মৌসুমের দ্বিতীয় মহিলা আইএসইউ গ্রাঁ প্রিঁ আসরে স্বর্ণ জিতে নিলেন মার্কিন তারকা ওয়াগনার। ফ্রি স্কেট প্রোগ্রামে দ্বিতীয় হলেও শর্ট প্রোগ্রামে প্রথম হয়েছিলেন। সার্বিকভাবে পয়েন্টে সবচেয়ে এগিয়ে থেকে তিনি মৌসুমের প্রথম স্বর্ণ জিতলেন। আর রাশিয়ার এলিজাভেতা তুকতামাইশেভা জিতেছেন রৌপ্য। যুক্তরাষ্ট্রের জন্য মৌসুমের প্রথম স্বর্ণালী গৌরব বয়ে এনেছেন ওয়াগনার। এর আগে জিতেছিলেন তিন গ্রাঁ প্রিঁ আসর ২০১২ সালে স্কেট আমেরিকা, ২০১২ ও ২০১৩ সালে ট্রফি এরিক বোম্পার্ড। এছাড়া আরও তিনবার গ্রাঁ প্রিঁ ইভেন্টের ফাইনালে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। ২০১২ সালে চার মহাদেশীয় প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন। তবে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপসে তেমন ভাল করতে পারেননি কোন সময়। ২০১২ সালে ক্যারিয়ারের সেরা সাফল্য ছিল সেবারের বিশ্ব ফিগার স্কেটিং চ্যাম্পিয়নশিপসে চতুর্থ হয়ে। গত বছর প্রথমবার অলিম্পিকে অনেক বিতর্কের মুখে যুক্তরাষ্ট্র দলে জায়গা করে নিয়েছিলেন। তাঁর ওপর অতীত সাফল্যের জন্য ভরসা রেখেছিলেন ইউএস ফিগার স্কেটিং এ্যাসোসিয়েশন। সেই আস্থার প্রতিদানও দিয়েছিলেন ব্রোঞ্জ জিতে। কিন্তু তবু যেন নিজের সেরা অবস্থানে ফিরতে পারছিলেন না।

গত বছর স্কেট কানাডায় পারেননি। রাশিয়ার আনা পোগোরিলায়ার কাছে হেরে জিততে পেরেছিলেন রৌপ্য। আর ট্রফি এরিক বোম্পার্ডে আরও খারাপ করেন। এবার তৃতীয় হয়ে জেতেন ব্রোঞ্জ। চমক দেখান দুই রাশিয়ান কিশোরী এলেনা রেডিওনোভা ও জুলিয়া লিপনিটস্কায়া। তবে বার্সিলোনায় গ্রাঁ প্রিঁ ফাইনালস আসরে অংশগ্রহণের সুযোগ করে নেন। আর তাতেই হয়ে যায় রেকর্ড। মাইকেলে কোয়ানের পর প্রথম মার্কিন মহিলা ফিগার স্কেটার হিসেবে তিনি এক মৌসুমে তিন গ্রাঁ প্রিঁ এবং টানা তিনবার গ্রাঁ প্রিঁ ফাইনালস আসরে অংশগ্রহণের রেকর্ড গড়েন। কিন্তু অংশগ্রহণ সম্ভব হলেও পূর্ণ সাফল্য আসেনি। এখানে তিনি হেরে যান তুকতামাইশেভা ও রেডিওনোভার কাছে। আরেকটি ব্রোঞ্জ। সেটা ছিল টানা তৃতীয়বারের মতো গ্রাঁ প্রিঁ আসরে ওয়াগনারের ব্রোঞ্জ জয়। তবে এবার ইউএস চ্যাম্পিয়নশিপস দিয়েই প্রত্যাবর্তন ঘটে আসল ওয়াগনারের। স্বরূপে আবির্ভূত হয়ে চ্যাম্পিয়ন হন আবারও। নতুন মার্কিন রেকর্ড ২২১.০২ পয়েন্ট স্কোর করেন তিনি। ১৯৯৯ সালে কোয়ান তিনবার জাতীয় চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন। তারপর এ কৃতিত্বটা দেখান ওয়াগনার।

তবে স্কেট কানাডায় শুরুটা ভাল হয়নি ওয়াগনারের। ফ্রি স্কেটে প্রথম হতে পারেননি। কিন্তু শর্ট প্রোগ্রামে ব্যক্তিগত সেরা নৈপুণ্য দেখিয়েছেন। এ প্রোগ্রামে তিনি ৭০.৭৩ পয়েন্ট স্কোর করেন। সবমিলিয়ে স্কোর করেন ২০২.৫২ পয়েন্ট। ফ্রি স্কেটে ১৩১.৭৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় হন তিনি। ওই প্রোগ্রামে সেরা হন তুকতামাইশেভা। তিনি ১৩৩.৬২ পয়েন্ট স্কোর করেন। কিন্তু এ রাশিয়ান তরুণী শর্ট প্রোগ্রামে হতাশাজনক নৈপুণ্য দেখিয়েছেন। হতে পেরেছেন সপ্তম। সার্বিকভাবে ১৮৮.৭৯ পয়েন্ট স্কোর করেন তিনি। বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন তুকতামাইশেভা। সে হিসেবে তিনিই ছিলেন ফেবারিট। কিন্তু শর্ট প্রোগ্রামের ব্যর্থতার কারণে তিনি আর সেরা হতে পারলেন না। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ফ্রি স্কেটে দুর্দান্ত সাফল্যের কারণে রৌপ্য জয় করেন তুকতামাইশেভা।

জাপানের ১৬ বছর বয়সী কিশোরী ইউকা নাগাই নিজের প্রথম গ্রাঁ প্রিঁ ইভেন্টেই দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়েছেন। তিনি সার্বিকভাবে ১৭২.৯২ পয়েন্ট স্কোর করে তৃতীয় হয়ে ব্রোঞ্জ জেতেন। অবশ্য খুব বেশি পিছিয়ে ছিলেন না তাঁর স্বদেশী কানাকো মুরাকামি। মাত্র ১.৩৩ পয়েন্ট কম স্কোর করে এ জাপানি তারকা চতুর্থ হয়েছেন। যদিও স্বাগতিক কানাডার গ্যাব্রিয়েলা ডেলম্যান ফ্রি স্কেটে দারুণ নৈপুণ্য দেখান। ১১৬.২০ পয়েন্ট স্কোর করে তিনি তৃতীয় হয়েছিলেন ফ্রি স্কেটে। এ প্রোগ্রামে কাজাখস্তানের কিশোরী এলিজাবেত তুরসিনবায়েভা ডেলম্যানের চেয়ে মাত্র ০.৮৮ পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে চতুর্থ হন। তবে গত আসরে তুকতামাইশেভার কাছে হারের প্রতিশোধ নিয়ে নিজের শ্রেষ্ঠত্ব ফিরে পেলেন ওয়াগনার।