১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টেস্ট ক্রিকেট থেকে শোয়েব মালিকের অবসর

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আচমকাই টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন পাকিস্তানের তারকা অলরাউন্ডার শোয়েব মালিক। শারজায় ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের হয়ে চলমান সিরিজের তৃতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যর্থ হওয়ার পর মঙ্গলবার অবসরের সিদ্ধান্তের কথা জানান সাবেক পাকি অধিনায়ক। তবে ওয়ানডে ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন শোয়েব।

দীর্ঘ পাঁচবছর পর টেস্ট ক্রিকেটে ফিরেই চমক দেখান শোয়েব মালিক। আবুধাবী টেস্টে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ক্যারিয়ার সেরা ২৪৫ রান করেন। সেই সঙ্গে ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ের নজির গড়েন। প্রত্যাবর্তনের এই চমকের মতো চমক দেখিয়েই পাঁচদিনের ক্রিকেটকে ‘বিদায়’ বলে দিলেন ৩৩ বছর বয়সী এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ফেরার পর থেকে ব্যাট ও বল হাতে দুর্দান্ত পারফরমেন্স প্রদর্শন করে চলেছিলেন এ অলরাউন্ডার। কিন্তু চলমান টেস্টের দুই ইনিংসে যথাক্রমে ৩৮ ও ০ রান করার পর অবসর নিলেন শোয়েব। পারফরমেন্সের ঊর্ধমুখীতে ধরে রেখেই তল্পিতল্পা গুটিয়ে নিলেন তিনি।

ইংলিশদের বিরুদ্ধে তৃতীয় টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে শোয়েব মালিক জানিয়েছেন, ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে শারজাহতে চলমান টেস্টই তার ক্যারিয়ারের শেষ। পরিবারকে সময় দিতে এবং ওয়ানডে বিশ্বকাপে মনোযোগ দিতেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

শারজায় তৃতীয় দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে শোয়েব সবাইকে হতবাক করে দিয়ে অবসরের ঘোষণা দেন। এর জন্য এটাই সঠিক সময় বলে জানান তিনি। ফলে পাঁচবছর টেস্ট ক্রিকেটের বাইরে থাকার পর ফিরে এসে মাত্র তিন টেস্ট খেলার সুযোগ পেলেন সাবেক এ অধিনায়ক। অবসর প্রসঙ্গে শোয়েব মালিক বলেন, আমাদের কিছু উঠতি তারকা আছে, তাদের সুযোগ করে দেয়া উচিত। এখনই সরে যাওয়ার সময়। পরিবার সবার আগে। আমি ২০১৯ বিশ্বকাপে মনোযোগ দিতে চাই।

২০০১ সালে মুলতানে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টেস্ট অভিষেক হয় শোয়েবের। ক্যারিয়ারে ৩৫ টেস্টে তিনি করেছেন ১৮৯৮ রান। আছে ৩টি শতক ও ৮টি অর্ধশতক। দীর্ঘদিন বাইরে থাকার পর মালিকের টেস্টে ফেরাটাও ছিল বেশ নাটকীয়। চলমান সিরিজের আগে ২০১০ সালের আগস্টে শেষ টেস্ট খেলা মালিক গত অক্টোবরে আবুধাবিতে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টের দলে চোট আক্রান্ত আজহার আলির পরিবর্তে জায়গা পান। ফিরেই তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে খেলেন ২৪৫ রানের মনোমুগ্ধকর ইনিংস। সব ধরনের ক্রিকেটে এটাই তার সর্বোচ্চ ইনিংস। এই তৃপ্তি নিয়েই পাঁচদিনের ক্রিকেটের মোহ ত্যাগ করলেন শোয়েব।