১৬ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঐশীর বাবা-মা হত্যার রায় ১২ নভেম্বর

অনলাইন রিপোর্টার ॥ পুলিশ কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমান হত্যা মামলায় তাদের মেয়ে ঐশী রহমান ও তার দুই বন্ধুর সাজা হবে কি না- তা জানা যাবে আগামী ১২ নভেম্বর।

আলোচিত এ মামলায় দুই পক্ষের যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে বুধবার ঢাকার ৩ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক সাঈদ আহমেদ রায়ের এ দিন ঠিক করে দেন।

ঐশীর দুই বন্ধু জনি ও রনিকে এই মামলায় হত্যাকাণ্ডে সহায়তাকারী হিসেবে আসামি করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামি ঐশীদের শিশু গৃহকর্মী খাদিজা আক্তার সুমির বিচার চলছে শিশু আদালতে।

২০১৩ সালের ১৬ আগস্ট রাজধানীর মালিবাগের চামেলীবাগে নিজেদের বাসা থেকে পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের পরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমানের ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধারের পর তাদের মেয়ে ঐশী রহমান রমনা থানায় নিজে আত্মসমর্পণ করেন।

বাবা-মা’কে ঐশীই হত্যা করে বলে পুলিশের অভিযোগপত্রে বলা হয়। ২০১৪ সালের ৯ মার্চ গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. আবুয়াল খায়ের মাতুব্বর আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

তবে মামলার বাদী মাহফুজের ভাই মশিহুর রহমান মনে করেন, তার ভাতিজি এই হত্যাকাণ্ড ঘটাননি।

ঐশী স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলেও পরে তা অস্বীকার করে বলেন, ভয় দেখিয়ে তার কাছ থেকে স্বীকারোক্তি নেওয়া হয়েছিল।