২৪ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঘরনীর ঘর মন জানালা

  • নারগিস পারভীন সোমা

তথ্য প্রযুক্তির যুগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে সর্বাধিক জনপ্রিয় এখন ফেসবুক। ফেসবুকের কল্যাণে শুধু তথ্য জানা আর আদান -প্রদানই নয়, বলতে গেলে মনের জানালা হিসেবে ঠাঁই করে নিয়েছে এ মাধ্যম। এটি মনের আয়নাও বটে। আয়নায় নিজের চেহারা যেমন না দেখলে চলে না, ফেসবুুকও তাই। অভ্যস্ত মন এখন আর ফেসবুক না দেখলে চলেই না। কি যেন একটা নাই নাই মনে হয়।

অনেক কিছু পেয়েছি ফেসবুক থেকে। যোগাযোগ হয়েছে অনেক হারিয়ে যাওয়া বন্ধুর সঙ্গে। আবার নতুন বন্ধুর সংখ্যাও কম নয়। সর্বদা সৎ মনোভাব, ভাল ও উদার মন নিয়ে যোগাযোগ রক্ষা করে চললে ফেসবুক অবশ্যই কল্যাণকর।

ফেসবুক খুললে আমাদের হারিয়ে যাওয়া দিনগুলো সামনে এসে দাঁড়ায়। সবাইকে কাছে পাই। মনে হয় সামনাসামনি বসে আড্ডা দিচ্ছি সবাই মিলে। ফেসবুক নামের মনের এ জানালা দিয়ে এখন সহজেই পরিচিত হওয়া যায় বিশে^র সঙ্গে। কী নেই এখানে। বহু কিছুই পাওয়া যায় এক নিমিষেই।

আগে পৃথিবীর অনেক কিছুর সঙ্গে ছিলাম অপরিচিত। ঘরের আর আশপাশের মানুষ ছাড়া সবাই ছিল অপরিচিত। তবে ঘরের বাইরেও যে একটা বিস্ময়কর পরিবেশ আছে। তার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে সাহায্য করে ফেসবুক, ঘরে বসেই বিশে^র সব কিছু আমাদের হাতের নাগালে চলে আসে এক ক্লিকেই। যেন পুরো বিশ^ আর বিশ^ সভ্যতার মহামিলন ঘটে চোখের সামনে।

আমাদের দেশের মেয়েরা অনেকেই শুধু ঘর-সংসার ছাড়া কিছুই বুঝত না। তাদের ভাবনাটাই ছিল সংসার পর্যন্ত সীমাবদ্ধ। এখন তারাও ঘরে বসেই ফেসবুকের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন তরতাজা খবর যেমন পাচ্ছে, তেমনি রাজনৈতিক অর্থনৈতিক, নানা রকম রান্না, বিভিন্নরকম ব্যবহারিক জিনিসপত্র বহু কিছু সম্পর্কে জানতে পারছে। জ্ঞানের খোরাক মিটাচ্ছে শিল্প, সাহিত্য থেকে শুরু করে সব ধরনের কালচারের সঙ্গে সংযুক্ত থেকে।

প্রত্যন্ত এলাকায় অনেক রকম দুর্ঘটনা ঘটত যা আমরা কখনোই জানতে পারতাম না। এখন তেমন কিছু হলে আর লুকানোর জায়গা নেই। সঙ্গে সঙ্গে সবার সামনে চলে আসছে ফেসবুকের মাধ্যমে। আমাদের ভেতরে গড়ে উঠছে সচেতনতা। আমরা হয়ে উঠছি আমাদের সমাজ ও দেশের প্রতি আরও দায়িত্বশীল।

এখন ফেসবুক ওপেন করলেই ভেসে আসে বন্ধুদের মুখ। তাৎক্ষণিক শেয়ার করা যায় মনের অনেক কিছু। বাধাবিপত্তি পরামর্শ সবকিছু মেলে ফেসবুকে। ফেসবুক আমাদের অনেক হারিয়ে যাওয়া বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজনকে আবার একত্রিত করেছে। যারা পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে অবস্থান করছে। হয়ত তাদের সঙ্গে আর কখনোই যোগাযোগ করা সম্ভব হতো না! কিন্তু ফেসবুকের কারণে তাদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ হচ্ছে। আবার নতুন করে বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া যাচ্ছে!

ফেসবুক বিভিন্ন পেশার মানুষের সঙ্গে ঘরে বসে পরিচিত হবার একটা সুযোগ করে দিয়েছে। বিভিন্ন দেশের লোকজনের সঙ্গে বন্ধুত্বও গড়ে তোলা সহজ হয়েছে। এখানে ভিনদেশী কালচার সম্পর্কে খুব সহজেই জানতে পারি আমরা। অনেকে জীবনসঙ্গীও খুঁজে পাচ্ছে। পরিশেষে বলব, ফেসবুক আমাদের অনেক কিছু দিয়েছে। কেড়েও নিয়েছে কিছু। তবে নিজে সচেতন হয়ে এর প্রতিটি অপশন রপ্ত করে ব্যবহার করলে অবশ্যই কল্যাণকর অনেক কিছু পাওয়া যাবে এখানে। ফেসবুক ঠিক মনের জানালার মতো। যে জানালা দিয়ে স্বচ্ছ দেখা যায় সবকিছু, তবে বাঁকা চোখে দেখলে অন্য কথা।

রাজশাহী চারুকলা মহাবিদ্যালয় থেকে