২২ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজস্ব আদায় নিয়ে কোন দুশ্চিন্তা নেই

  • মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে এনবিআর চেয়ারম্যান

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশের রাজস্ব আদায়কারি প্রতিষ্ঠান জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর্মকর্তাদের বিরোধ ও গ্রুপিং নিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের দেয়া বক্তব্য প্রসঙ্গে সংস্থাটির চেয়ারম্যান মোঃ নজিবুর রহমান বলেছেন, এনবিআরে কোন কোন্দল নেই। এখানে আমরা সবাই মিলে কাজ করছি। রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা আদায়ে সবাই সহযোগিতামূলকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। বছর শেষে পূর্ণমাত্রার রাজস্ব আদায় হবে। প্রথম দিকে কিছু চ্যালেঞ্জ থাকে। তারপরও রাজস্ব আদায় দিন দিন বাড়ছে। তবে চলতি ২০১৫-১৬ অর্থবছরের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা যতই বড় হোক, তা অর্জন হবেই এবং রাজস্ব আদায় নিয়ে দুশ্চিন্তার কোন কারণ নেই বলে দাবি করেন নজিবুর রহমান।

বুধবার রাজধানীর সেগুনবাগিচার রাজস্ব ভবনে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (ডিসিসিআই) প্রকাশিত ট্যাক্স গাইড ২০১৫-১৬’র মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান এ সব কথা বলেন। আগামী ১৯ থেকে ২১ নবেম্বর রাজধানীতে শীতকালীন আয়কর মেলার আয়োজন করা হচ্ছে বলেও অনুষ্ঠানে জানান এনবিআর চেয়ারম্যান।

এদিকে ট্যাক্স গাইডের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্যে ডিসিসিআইর সভাপতি হোসেন খালেদ বলেন, ডিসিসিআইয়ের সভাপতি হোসেন খালেদ বলেন, ব্যবসায়ীদের একটা বড় অংশ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, যারা সবসময় ব্যবসা করতে পারেন না। কিন্তু, রাজস্ব বোর্ড প্রতিবছর ট্যাক্স বাড়িয়ে ব্যবসায়ীদের চাপে রাখে। এক বছর ১ লাখ টাকা কর দিলে পরের বছর ১ লাখ ১০ হাজার টাকা চাওয়া হয়। এটা এক ধরনের চাপ। এনবিআরকে এই ধারণা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, জেলা চেম্বার সদস্যদের ট্যাক্স বিষয়ে সচেতন করতে, তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করতে হবে। কেননা, নতুন উদ্যোক্তরা ট্যাক্স প্রদানে ভয় পান। তিনি বলেন, আপনারা আমাদের জন্য করবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করুন। আইনের সহজীকরণ করুন। তাহলে রাজস্ব আদায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি হবে। প্রয়োজনে বিভিন্ন এলাকায় ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর সঙ্গে বসে আলাপ-আলোচনার ভিত্তিতে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করুন।

ডিসিসিআই পরিচালক ও পুরান ঢাকার প্রবীণ ব্যবসায়ী নেতা আব্দুস সালাম অভিযোগ করে বলেন, আমরা আর আগের মতো ব্যবসা করতে পারছি না। আমাদের বিভিন্নভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। প্রতিবছর বিনা কারণেই ট্যাক্স বাড়ানো হচ্ছে। ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, হঠাৎ করে রাজস্ব আদায়কারী কর্মকর্তারা ব্যবসায়ীদের কাছে গিয়ে বিভিন্ন জিনিসপত্র জব্দ করছে। আর এ কারণে এক প্রকার ভয়ের মধ্যে আছে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। দাবি অনুযায়ী ব্যবসায়ীরা বাড়তি কর না দিলে এনবিআর মামলা ঠুকে দেয়।

ব্যবসায়ীদের আশ্বস্ত করে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, আপনাদের কোন রকমের হয়রানি করা হবে না। এনবিআর আগের চাইতে অনেক ব্যবসায়ীবান্ধব হয়েছে। আমরা দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের জিরো টলারেন্সের ব্যবস্থা করেছি। তাই আশা করি, এই ধরনের সমস্যা আর হবে না। অনুষ্ঠানে এনবিআরের বিভিন্ন উইংয়ের সদস্যসহ ডিসিসিআইয়ের পরিচালকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।