২১ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মাশরাফির ফিটনেস পরীক্ষার লড়াই আজ

মাশরাফির ফিটনেস পরীক্ষার লড়াই আজ
  • বিসিবি একাদশ-জিম্বাবুইয়ে প্রস্তুতি ম্যাচ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও দুই ম্যাচের টি২০ সিরিজ শুরুর আগে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে আজ মুখোমুখি হবে বিসিবি একাদশ ও জিম্বাবুইয়ে। ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে সকাল ৯টায় শুরু হবে একদিনের এ ম্যাচটি। এ ম্যাচে জয়-পরাজয় যতটানা মুখ্য, তারচেয়েও বেশি ভাবনা আছে বাংলাদেশ ওয়ানডে ও টি২০ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে নিয়ে। এ প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়েই যে নিজেকে ফিট প্রমাণ করতে হবে মাশরাফিকে। তাই ‘নড়াইল এক্সপ্রেসে’র ফিট হওয়ার লড়াইও এ ম্যাচে। জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে ৭ নবেম্বর প্রথম ওয়ানডেতে যে খেলতে পারবেন কি না, তার প্রমাণ দেয়ার ম্যাচও মাশরাফির।

মাশরাফির জন্য যে ম্যাচটি মহা গুরুত্বপূর্ণ। তা বুধবার বুঝিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ চন্দ্রিকা হাতুরাসিংহেই। বলেছেন, ‘সে (মাশরাফি) এখনও শতভাগ ফিট নয়। সে এখনও ফিট হওয়ার মধ্যেই আছে। মাশরাফি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে। এই ম্যাচেই ফিট যে তা প্রমাণ করতে হবে। প্রস্তুতি ম্যাচটি শেষেই বোঝা যাবে ম্যাচ খেলার জন্য প্রস্তুত কি না।’

ডেঙ্গু জ্বর থেকে মুক্ত হয়ে এখন সুস্থ মাশরাফি। বলও করছে পুরোদমে। ফুল রানিংয়ে। কিন্তু শরীর এখনও দুর্বল। তাই তো ম্যাচ খেলার মতো ফিট মাশরাফি, তা প্রস্তুতি ম্যাচেই বোঝাতে হবে। এ ম্যাচটিতে আবার নেতৃত্বও দেবেন মাশরাফি। ইমরুল কায়েস, এনামুল হক বিজয়, লিটন কুমার দাস, শাহরিয়ার নাফীস, মুশফিকুর রহীম, সাব্বির রহমান রুম্মন, মেহেদী মারুফ, জুবায়ের হোসেন লিখন, সানজামুল ইসলাম, দেলোয়ার হোসেন, শফিউল ইসলাম ও তৌহিদুল ইসলাম রাসেলকে নিয়ে গড়া বিসিবি একাদশ এখন প্রস্তুতি ম্যাচ থেকে যেই ফলই আদায় করে নেক, সবার নজর থাকবে মাশরাফির দিকেই। প্রস্তুতি ম্যাচটি শেষে ৭, ৯ ও ১১ নবেম্বর যথাক্রমে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে। এরপর ১৩ ও ১৫ নবেম্বর যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় টি২০ ম্যাচ হবে। সব ম্যাচ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। ওয়ানডে ম্যাচগুলো দিবারাত্রিতে আর টি২০ ম্যাচগুলো রাত্রিতে অনুষ্ঠিত হবে। এ সিরিজের শুরু থেকেই মাশরাফির খেলা নিয়ে সংশয় আছে। হঠাৎ করেই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছিলেন মাশরাফি। এরপর সুস্থ হলেও শরীর দুর্বলই ছিল। তা থেকে এখন অনেক সুস্থ মাশরাফি। তবে ম্যাচ খেলার জন্য পুরোপুরি ফিট কি না তা বুঝতে হলে ম্যাচ খেলা জরুরী। এ মুহূর্তে প্রস্তুতি ম্যাচ ছাড়া আর কোন ম্যাচই নেই। প্রস্তুতি ম্যাচেই তাই নিজেকে ফিট প্রমাণ করার সিঁড়ি হিসেবে বেছে নিয়েছেন মাশরাফি।

মাশরাফি যেমন নিজেকে ফিট প্রমাণ করার চেষ্টায় খেলবেন। তেমনি এলটন চিগুম্বুরার দলও নিজেদের গুছিয়ে নেয়ার চেষ্টায় খেলবে। নিকট অতীতে যে আফগানিস্তানের কাছে হেরে বড় ধাক্কাই খেয়েছে দলটি। সেই ধাক্কা সামাল দিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভাল করার চেষ্টাও করবে। কত দূর কী করতে পারবে জিম্বাবুইয়ে, তা প্রস্তুতি ম্যাচেই বোঝা যাবে। এলটন চিগুম্বুরার সঙ্গে সিকান্দার রাজা, রেগিস চাকাবভা, চামু চিবাভা, টেন্ডাই চিসোরো, গ্রায়েম ক্রেমার, ক্রেইগ এরভিন, লুক জঙ্গে, নেভিল মাদজিভা, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, রিচমন্ড মুতুম্বামি, তাউরাই মুজারাবানি, জন নিয়ম্বু, তিনাশে পানিয়াঙ্গারা, ম্যালকম ওয়ালার ও শন উইলিয়ামস আছেন। বাংলাদেশের খেলার কন্ডিশনও আছে জিম্বাবুইয়ান ক্রিকেটারদের। আর তা পুঁজি করে ভাল কিছু আদায়ও করে নিতে চায় জিম্বাবুইয়ে। প্রস্তুতি ম্যাচ নিয়ে যেমন জিম্বাবুইয়ে অধিনায়ক চিগুম্বুরা বলেছেন, ‘সিরিজ শুরুর আগে প্রস্তুতি ম্যাচ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নতুন ক্রিকেটারদের কন্ডিশনের সঙ্গে দ্রুত মানিয়ে নেয়ার বিষয় থাকে। প্রস্তুতি ম্যাচ সেটিতে সাহায্য করে। আশা করছি ভাল হবে।’ গত বছর অক্টোবরে শুরু হওয়া সিরিজে হারই নিয়তি হয়েছে জিম্বাবুইয়ের। অক্টোবর-নবেম্বরে তিন টেস্ট, ৫ ওয়ানডের সিরিজে ভরাডুবি হয়েছে। প্রতি ম্যাচ হেরেছে জিম্বাবুইয়ে। এমনটি হলে স্বাভাবিকভাবেই ভয় থাকে। কিন্তু কোন ভাবনাই নেই জিম্বাবুইয়ের।

চিগুম্বুরা বলেছেন, ‘আমরা বাংলাদেশের উইকেটে এবং এখানকার কন্ডিশনে খেলে অভ্যস্ত। তাই ভয়ের কিছু নেই।’ সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘বাংলাদেশে খেলা আমাদের জন্য একটা দারুণ বিষয়। আমরা এখানে আগেও খেলেছি। সম্প্রতি বাংলাদেশ নিজেদের মাঠে অনেক ভাল পারফর্ম করছে। তবে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে যে কোন কিছু হতে পারে। জিম্বাবুইয়ে দলটি পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। দলে কয়েকজন তরুণ ক্রিকেটার রয়েছে। নিয়মিত খেলতে পারলে তাদের জন্য ভাল। এখানে ক্রিকেট খেলার সুযোগ পেয়ে আমরা খুশি। আশা করি এটা আমাদের দারুণ সফর হবে। বাংলাদেশের কোন নির্দিষ্ট বিভাগ নিয়ে আমরা আতঙ্কে থাকতে চাই না। আমরা সব বিভাগেই আগের চেয়ে ভাল খেলছি। একই সঙ্গে ভাল পারফর্ম করাও নিশ্চিত করতে হবে।’

বাংলাদেশ-জিম্বাবুইয়ে সিরিজ শুরু হবে শনিবার। তবে এর আগে প্রস্তুতি ম্যাচেই দুই দলের অবস্থা বোঝা যাবে। জিম্বাবুইয়ের অবস্থা পুরোই বোঝা যাবে। আর বিসিবি একাদশে জাতীয় দলের মুশফিকুর রহীম, লিটন কুমার দাস, সাব্বির রহমান রুম্মন, জুবায়ের হোসেন লিখন থাকায় বাংলাদেশের অবস্থাও খানিক বোঝা যাবে। তবে সবাই আসলে মাশরাফির অবস্থাই সবার আগে বুঝতে চাইছে। নিজেকে ফিট প্রমাণ করে প্রথম ওয়ানডে থেকেই খেলতে পারার লড়াই যে আজ মাশরাফির।