১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অসহিষ্ণুতা তর্কে শাহরুখের পাশে চিত্রতারকারা

  • আক্রমণ অব্যাহত, ফের খোঁচা বিজেপি নেতার

আক্রমণের মাঝেই সমর্থন। ভারতজুড়ে বাড়তে থাকা উগ্র অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে ইতোমধ্যেই শাসক দল ও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের রোষের মুখে পড়েছেন বলিউড ‘বাদশাহ’ শাহরুখ খান। তবে তার পাশে দাঁড়িয়েছেন চলচ্চিত্র জগতের একাংশ এবং শাসক দলেরই সহযোগী দল শিবসেনা। চাপের মুখে টুইট প্রত্যাহারের পরও ফের শাহরুখকে পরোক্ষে খোঁচা দিলেন বিজেপির মহাসচিব কৈলাস বিজয়বর্গীয় এবং দলের । অন্য নেতাদের কাছ থেকেও আক্রমণ অব্যাহত রয়েছে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া, আনন্দবাজার পত্রিকা ও ওয়ান ইন্ডিয়ার।

সালমান খান থেকে অনুপম খের, পরিচালক মধুর ভান্ডারকর, গায়ক বিশাল দদলানি, ভিজে অভিনেতা রঘু রামসহ অনেকেই শাহরুখের পাশে দাঁড়িয়েছেন। শুধু চলচ্চিত্রই বা কেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শাহরুখের জন্য সমর্থনের #ওঝঃধহফডরঃযঝজক হ্যাশট্যাগে টুইটারে বন্যা বয়ে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত তারকা সালমান খান শাহরুখের পাশে দাঁড়িয়ে বলেছেন, আমরা সবাই ভারতীয়। শিল্প-সংস্কৃতির সঙ্গে রাজনীতিকে মেশানো উচিত নয়। শিল্পের, বিনোদনের কোন সীমানাও হয় না। মানুষ সেটাই মনে করে, তাইই চায়। দিল্লীতে তার নতুন ছবির প্রচারে গিয়ে সালমান এ কথা বলেন। এদিকে শাহরুখকে ‘জাতীয় আইকন’ বলে সার্টিফিকেট দিয়ে অনুপম খের টুইটারে লিখেছেন, বিজেপির কিছু নেতার সত্যিই মুখের লাগাম টেনে শাহরুখ সম্পর্কে আজেবাজে কথা বলা বন্ধ করা উচিত। শাহরুখ জাতীয় নায়ক। আমরা তাকে নিয়ে গর্বিত। এদিকে বুধবার শাহরুখের সমর্থনে এগিয়ে এসে শিবসেনা বলেছে, মুসলিম বলে অভিনেতাকে আক্রমণ করাটা ঠিক নয়। শিবসেনার মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত বলেন, এই দেশের মানুষ অত্যন্ত সহনশীল, এদেশের মুসলিম সম্প্রদায়ও অত্যন্ত সহনশীল। মুসলিম বলেই শাহরুখ খানকে টার্গেট করা অনুচিত। রাউতের কথায়, বলিউড সুপারস্টারকে পাকিস্তানের এজেন্ট বলে মোটেই ঠিক করেননি কৈলাস। অসহিষ্ণুতা নিয়ে যে বিতর্ক চলছে তা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এর মধ্যে পাকিস্তানকে টানা উচিত নয়। তবে তিনি বলিউড সুপারস্টারকে কটাক্ষ করে বলেন, ভারত কখনও ধর্মের ভিত্তিতে কোনকিছু বিচার করে না এবং দেশে সহিষ্ণুতা রয়েছে বলেই শাহরুখ আজ সুপারস্টার। তার কথায়, অনেক দেরি করে এই বিতর্কে শাহরুখ অংশ নিলেন। না নিলেই ভাল করতেন। এদিকে অসহিষ্ণুতা বিতর্কে ফের হুঁশিয়ারির সুরে কৈলাস বলেছেন, দেশের সম্মান নষ্ট করলে ছেড়ে দেয়া হবে না। ভারত খুব শীঘ্রই জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য হতে চলেছে। কিন্তু পাকিস্তান ও অন্যান্য শক্তি তা চায় না। আমরা কাউকে দেশের ভাবমূর্তি কলুষিত করতে দেব না, সে যে-ই হোক। এর আগে শাহরুখকে তীব্র আক্রমণ করে কৈলাস বলেছিলেন, শাহরুখ থাকেন এ দেশে। কিন্তু মন পড়ে থাকে পাকিস্তানে। মোদির প্রশংসক বাবা রামদেব শাহরুখকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেছেন, তিনি যদি সত্যিই একজন দেশপ্রেমী হন, তাহলে পদ্মশ্রী জেতার পর যত অর্থ রোজগার করেছেন, সব প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করুন। নয়াদিল্লীর বিজেপি এমপি মীনাক্ষি লেখির কটাক্ষ, শাহরুখের বিরুদ্ধে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) নোটিস জারি করায় বলিউড তারকার কাছে দেশের পরিস্থিতি খারাপ হয়ে উঠেছে।