১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বোলিং-ব্যাটিংয়ে নজর কাড়তে পারলেন না মাশরাফি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মাশরাফির ফিট হওয়ার ম্যাচ ছিল বৃহস্পতিবার। তা কী হতে পারলেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’? সেই প্রশ্ন জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে বিসিবি একাদশের প্রস্তুতি ম্যাচটি শেষেও রয়ে গেল। প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ বললেন, ‘খুব শীঘ্রই ভাল ছন্দে চলে আসবে মাশরাফি।’ তাতে কী বোঝা গেল? ফারুকের কাছেও মনে হয়নি মাশরাফি শতভাগ ফিট। জিম্বাবুইয়ের কাছে ৭ উইকেটে যে হারল বিসিবি একাদশ, সেই হারের সঙ্গে প্রথম ওয়ানডেতে মাশরাফিকে না পাওয়ার ইঙ্গিতও কী মিলল না! বোলিং-ব্যাটিং সবই করলেন মাশরাফি, এরপরও কী তাকে পুরো ফিট মনে হল?

ব্যাট হাতে ২ বল খেলতে পারলেন। নিলেন ১ রান। রান আউট হয়ে গেলেন। বল হাতে করলেন ৭ ওভার। ১ মেডেনসহ ৩১ রান দিয়েছেন। কোন উইকেট নিতে পারেননি। শুরুতে টানা ৪ ওভার বল করেছেন। দুর্দান্ত বোলিংই করেছেন। ১ মেডেনসহ ১৬ রান দেন। ৩৩ ওভারে আবার বল করতে আসেন। টানা তিন ওভার করেছেন। এবার রান দিয়েছেন ১৫। ভাল বোলিংই করেছেন। কিন্তু প্রথম ৪ ওভারের স্পেলের পর মাশরাফিকে মাঠ ছাড়তে দেখা গেছে। বেশ কিছুক্ষণ পর আবার মাঠে ফিরেছেন। বোঝাই গেল, মাঠের বাইরে গিয়ে একটু বিশ্রাম নিয়ে এসেছেন। তাতে বোঝাই গেছে ডেঙ্গু জ্বরের যে ধকল, যে দুর্বলতা শরীরে আছে তা থেকে পুরোপুরি মুক্ত হতে পারেননি মাশরাফি।

এরপরও ফারুক বলার চেষ্টা করলেন প্রথম ওয়ানডের আগেই ফিট হয়ে যাবে মাশরাফি। বললেন, ‘আমার মনে হয় মাশরাফি শুধু ডেঙ্গু না, গত তিনমাসে সে আসলে ম্যাচ প্র্যাকটিসের সুযোগ পায়নি। একটা ছেলে যখন লম্বা সময় বাইরে থাকে, তখন সাধারণভাবেই তার একটু সময় লাগে। সেক্ষেত্রে আমার মনে হয় যে আজকে (বৃহস্পতিবার) যেটা আমরা চেয়েছিলাম ওর কাছ থেকে একটা ম্যাচ প্র্যাকটিস দিয়ে দেখি, প্র্যাকটিসটা সে করেছে। আমার মনে হয় যেহেতু সে একজন পেশাদার ক্রিকেটার এবং লম্বা সময় ধরে খেলছে, তাড়াতাড়ি আজকে (বৃহস্পতিবার) থেকেই তার অবস্থাটা বুঝতে পারবে। খুব শীঘ্রই ভাল ছন্দে চলে আসবে।’

এ সময় মাশরাফি না খেললে সাকিব কী অধিনায়ক থাকবেন? সেই প্রশ্নও উঠে এলো। ফারুক আহমেদ যেহেতু প্রধান নির্বাচক, এ প্রশ্নের উত্তর তার কাছে নেই। তবুও বলার চেষ্টা করলেন, ‘আসলে এ মুহূর্তে কিছু বলা খুব দ্রুত হয়ে যাবে। এখন মাশরাফিই আছে অধিনায়ক। আপনি জানেন যে আজকে (বৃহস্পতিবার) ৫ তারিখ। ৭ তারিখে প্রথম খেলা। কালকে (আজ) সারাদিন আছে। টিম ম্যানেজমেন্ট আছে। তবে আমার মনে হয় এ মুহূর্তে সে রকম কোন পরিস্থিতি তৈরি হয়নি।’

তা ঠিক এরকম কোন পরিস্থিতিই তৈরি হয়নি। তবে মাশরাফি যে পুরোপুরি ফিট তা আজকেই ভালভাবে বোঝা যাবে। সেই আগস্টের পর ম্যাচ খেলতে নেমেছেন। আবার মাত্রই ডেঙ্গু জ্বর থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এমনিতে জ্বর হলে শরীরের দুর্বলতা যায় না। সেখানে ডেঙ্গু জ্বর হয়েছে। দুই তিন সপ্তাহতো বিছানা থেকেই ওঠা যায় না। অথচ মাশরাফি সাতদিন হাসপাতালে থেকে ১৬ অক্টোবর বাসায় আসেন। সেই সময় থেকে ২৪ দিনের মত হয়েছে। এ দিনগুলোতে অনুশীলন করে গেছেন। নিজেকে ফিট করার চেষ্টা করছেন। জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে খেলার চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

তবে বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহে বুধবার বলেছেন, ‘সে (মাশরাফি) এখনও শতভাগ ফিট নয়। সে এখনও ফিট হওয়ার মধ্যেই আছে। মাশরাফি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে। এই ম্যাচেই ফিট যে তা প্রমাণ করতে হবে। প্রস্তুতি ম্যাচ শেষেই বোঝা যাবে ম্যাচ খেলার জন্য প্রস্তুত কিনা।’ তা বোঝা যাবে আজই। তবে প্রস্তুতি ম্যাচে যে মাশরাফি, মুশফিক, সাব্বির, লিটন, ইমরুল, জুবায়েরদের নিয়েও বিসিবি একাদশ হেরে গেল, এরপর প্রথম ওয়ানডের একাদশ নিয়ে নিশ্চয়ই কোন ঝুঁকিতেই যাবেন না হাতুরাসিংহে। আর তা যদি হয় তাহলে মাশরাফির খেলা শেষ পর্যন্ত নাও হতে পারে। এখন দেখা যাক শেষ পর্যন্ত কী হয়।