১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ওয়ার্নার-খাজার শতকে রানের পাহাড় অসিদের

  • ব্রিসবেন টেস্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ট্রান্স তাসমান প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে এবার অস্ট্রেলিয়ার নবীন টেস্ট দলকে নিয়ে অনেকে সংশয়ের মধ্যে ছিলেন। অভিজ্ঞ ব্ল্যাক ক্যাপসদের বিরুদ্ধে হয়তো সেভাবে নিজেদের মেলে ধরতে পারবে না অসিরা। কিন্তু ব্রিসবেনের গ্যাবায় প্রথম টেস্টের প্রথমদিন শেষে অন্য কিছু ইঙ্গিত দিচ্ছে। কিউই বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলায় মেতে দিনশেষে অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংসে তুলে ফেলেছে মাত্র দুই উইকেট হারিয়ে ৩৮৯ রান। জোড়া সেঞ্চুরি এসেছে সহঅধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার ও উসমান খাজার কাছ থেকে। ওয়ার্নার ক্যারিয়ারের ১৩তম সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ১৬৩ রান করে ফিরে গেলেও তরুণ খাজা ক্যারিয়ারের প্রথম শতক হাঁকিয়ে অপরাজিত আছেন ১০২ রানে। প্রথম দিনে অসিদের ব্যাটিং নৈপুণ্য বলে দিচ্ছে বিশাল একটি সংগ্রহই পেতে যাচ্ছে তারা।

গ্যাবার পেস বান্ধব বাউন্সি উইকেটে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় অস্ট্রেলিয়া। উইকেটে ব্যাটসম্যানদের জন্য যে দারুণ সহায়ক অনেক কিছুই আছে তা প্রথম থেকেই পরিষ্কার হয়ে যায়। দুই ওপেনার জো বার্নস ও ওয়ার্নার নিউজিল্যান্ড বোলারদের কোন পাত্তাই দেননি। মধ্যাহ্ন বিরতি পর্যন্ত হতাশায় পুড়তে হয়েছে কিউই বোলারদের। বিনা উইকেটে ১০০ রান তুলে ফেলে অসিরা। শুরু থেকেই বিশেষ করে ওয়ার্নার ছিলেন দারুণ আক্রমণাত্মক। তিনি স্বভাবসুলভ বিধ্বংসী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে ব্যাট চালিয়েছেন ওয়ানডে মেজাজে। নিউজিল্যান্ডের প্রথম সাফল্য আসে মধ্যাহ্ন বিরতিরও এক ঘণ্টা পর। ১৬১ রানের উদ্বোধনী জুটি হয়ে গেছে ততোক্ষণে। তরুণ বার্নস ক্যারিয়ারের তৃতীয় ফিফটি হাঁকিয়ে ১২০ বলে ১২ চারে ৭১ রান করে ফিরে যান টিম সাউদির বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে। কিন্তু এরপর আবার দীর্ঘ অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে কিউইদের পরবর্তী উইকেট নিতে। ওয়ার্নারের সঙ্গে জুটি বেঁধে দুই বছরেরও বেশি সময় পর টেস্টে ফেরা খাজা ১৫০ রানের জুটি গড়ে তোলেন। ততোক্ষণে ক্যারিয়ারের ১৩তম শতক হাঁকিয়ে ফেলেন ওয়ার্নার। অসি ওপেনারদের সর্বাধিক সেঞ্চুরির তালিকায় এখন তাঁর অবস্থান পাঁচে। অসি ওপেনারদের মধ্যে সর্বাধিক সেঞ্চুরি আছে শুধু ম্যাথু হেইডেনের। তিনি ৩০ সেঞ্চুরি করেছেন। তবে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা মার্ক টেইলরের শতক মাত্র ১৯টি।

প্রথম দুই উইকেটেই ১৫০ এর বেশি জুটি গড়ার ঘটনা অস্ট্রেলিয়ার জন্য এটি মাত্র তৃতীয়বার। ১৯৩০ সালে লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম দুই উইকেটে ১৫৫ ও ২২৪ রানের জুটি হয়েছিল। দীর্ঘ ৭৪ বছর পর আবার সেই ঘটনার পুনর্জন্ম দিয়েছিল অসিরা এই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধেই। ১১ বছর বিরতির পর আবারও গ্যাবা সেই ঘটনার সাক্ষী হলো। ওয়ার্নার ২২৪ বলে ১৯ চার ও ১ ছক্কায় ১৬৩ রান করে ফিরে যাওয়ার পরও থামেননি খাজা। ক্যারিয়ারের প্রথম শতক আদায় করে নিয়েছেন। আগের খেলা ৯ টেস্টে মাত্র দুটি অর্ধশতক ছিল তার। এবার প্রথম সেঞ্চুরি পান। ১৩৩ বলে ১০ চার ও ২ ছক্কায় ১০২ রান করে এখনও ক্রিজে আছেন তিনি। তৃতীয় উইকেট জুটিতে খাজার সঙ্গী হয়েছেন অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে খেলছেন তিনিও। মাত্র ৫৪ বলে ৭ চারে ৪১ রান করে ব্যাট করছেন স্মিথ। দুই ওভার আগেই দিনের খেলা শেষ হয়ে গেছে। তবে ২ উইকেটে ৩৮৯ রান তুলে দারুণ অবস্থানে চলে গেছে অসিরা। গ্যাবা টেস্টের প্রথম দিনে এটিই আজ পর্যন্ত সর্বাধিক রানের রেকর্ড। এর আগে গ্যাবায় প্রথমদিনে ৩৬৪ রান করেছিল অসিরা ২০০২ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে।

স্কোরকার্ড ॥ প্রথম দিনশেষে

অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস- ৩৮৯/২; ৮৮ ওভার (ওয়ার্নার ১৬৩, খাজা ১০২*, বার্নস ৭১, স্মিথ ৪১*; নিশাম ১/৩৬, সাউদি ১/৬৩)।

প্রথম দিনে সিদ্দিকুর চতুর্থ স্থানে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ভারতের দিল্লীতে পিজিটিআই ও এশিয়ান ট্যুরের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত প্যানাসনিক ওপেন ইন্ডিয়া টুর্নামেন্টে শুরুটা মোটামুটিই হয়েছে দেশসেরা গলফার সিদ্দিকুর রহমানের। প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী রাউন্ডে পারের চেয়ে চার শট কম নিয়ে যৌথভাবে চতুর্থ স্থানে রয়েছেন তিনি।

দিল্লী গলফ ক্লাবে ৭২ পারের প্রথম ১৮ হোলের খেলায় বৃহস্পতিবার নির্ধারিত শটের চেয়ে এক শট কমেই পাঁচটি হোলে খেলেন সিদ্দিকুর। আর একটি হোলে এক শট বেশি নিয়েছেন। ফলে পাঁচ বার্ডি ও এক বগিতে খেলে ৬৮ শটে প্রথম রাউন্ড সম্পন্ন করেন দুটি এশিয়ান ট্যুর শিরোপাজয়ী সিদ্দিকুর।