১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রৌগ লয়্যার

এবারের নিউইয়র্ক টাইমসের বেস্ট সেলারের শীর্ষে আছে আমেরিকার জনপ্রিয় গল্পকার জন গ্রিশামের ‘রৌগ লয়্যার’ বইটি। এটি নিয়ে লিখেছেন আরিফুর সবুজ

সেবাস্তিয়ান রাড সাধারণ কোন আইনজীবী নন, তিনি এমন এক আইনজীবী যিনি নিজের চারপাশে রহস্যে আবৃত্ত করে রাখতেই ভালোবাসেন। ওয়াই-ফাই সংযুক্ত বুলেট প্রুফ গাড়িতে তিনি চলাফেরা করেন। গাড়িটিতে ছোট মদের বার, চামড়ার তৈরি চেয়ার, গোপন গান কম্পার্টমেন্ট এবং সশস্ত্র একজন ড্রাইভার সবসময়ই থাকে। বিলাসবহুল এবং কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীযুক্ত এই গাড়িখানাতে করেই সেবাস্তিয়ান আদালতে যাওয়া আসা করেন। তার কোন অফিস নেই, কোন পার্টনার নেই, এমনকি এক কর্মচারী ছাড়া তার আর কোনও সহযোগীও নেই। তার ঐ এক কর্মচারীই তার ড্রাইভার, বডিগার্ড, খেলারসঙ্গী। সেবাস্তিয়ান বাস করেন একটি ছোট কিন্তু খুবই নিরাপদ একটি এ্যার্পাটমেন্টে। ঐ এ্যাপার্টমেন্টে ফার্নিচারের আধিক্য না থাকলেও চোখে পড়বে একটি পুল টেবিল। সেবাস্তিয়ান সবসময়ই নিজের কাছে একটি অস্ত্র বহন করেন। বুলেট প্রুফ গাড়ি, গাড়িতে গান কম্পার্টমেন্ট, বডিগার্ড আর নিজের কাছে সবর্দা অস্ত্র রাখা এসব কিছুই সেবাস্তিয়ান করে নিজের নিরাপত্তার জন্য। একজন আইনজীবীর এত নিরাপত্তার ব্যবস্থা দেখে যে কারও চোখ কপালে উঠতে পারে। কিন্তু সেবাস্তিয়ান যেসব মক্কেলদের নিয়ে কাজ করে, তাতে এ ছাড়া উপায় নেই।

মাদকব্যবসায়ী, যৌন নিপীড়নকারী, অপরাধ জগতের ডন এসব লোকজনই তার মক্কেল। আর এসব মক্কেলের শত্রুর অভাব নেই। আইনজীবী হিসেবে সেবাস্তিয়ানের ওপরও হামলা হতে পারে, এজন্য এত সতর্কতা। কিন্তু কেন বেছে বেছে এ ধরনের মক্কেলদের ডিল করেন সেবাস্তিয়ান? কারণ, সেবাস্তিয়ান বিশ্বাস করেন, প্রত্যেক মানুষেরই সঠিক বিচার পাওয়ার অধিকার আছে। কোন ব্যক্তি কখন কোন পরিস্থিতিতে অন্যায় সংঘটিত করেছে, এ বিষয়টিই সেবাস্তিয়ানের কাছে মুখ্য। সেবাস্তিয়ানের দুচোখের বিষ যেন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি, ব্যাংক ও বড় বড় কর্পোরেশন। তিনি জানেন এদের কাছে মানবতা বলে কিছু নেই। কেবল এরাই নন, তিনি সকল পর্যায়ের সরকারী কর্মকর্তাদের অবিশ্বাস করেন। তার কাছে মনে হয়, সরকারী কর্মকর্তারা সত্যকে মিথ্যে কিংবা মিথ্যেকে সত্যে পরিণত করতে সিদ্ধ। সেবাস্তিয়ান অন্যায় দেখতে পারে না, অবিচার দেখতে পারে না। একারণে তিনি এসব পক্ষকে ঘৃণা করেন। কিন্তু তিনি নিজে দাঁড়ানোর অন্যায়কারী মক্কেলদের পক্ষে। এমনকি মক্কেলদের বাঁচাতে অনেক সময়ই তাকে অনেক ছল চাতুরির আশ্রয় গ্রহণ করতে হয়। একদিকে অন্যায়কে ঘৃণা করা আবার অন্যায়কারীর পক্ষ হয়ে লড়া এই দ্বৈতচারিতা সেবাস্তিয়ানকে রহস্যময় করে তোলে। বইজুড়েই সেবাস্তিয়ান রহস্যময়।

আমেরিকার জনপ্রিয় গল্পকার জন গ্রিশাম অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গেই অপরাধীদের পক্ষের আইনজীবী সেবাস্তিয়ান রাডকে রহস্যময় করে তুলেছেন তাঁর ‘রৌগ লয়্যার’ বইটিতে। বইয়ের নামকরণের মধ্যে দিয়েই প্রকাশ পায় আইনজীবী নিজেই দুর্বত্ত। এই বইটিতে সেবাস্তিয়ান অন্যায়কারীদের পক্ষাবলম্বন করলেও যেভাবে বুদ্ধিমত্তা ও চাতুরতা দিয়ে মক্কেলদের খালাস করেন, যেভাবে বাদীকে আইনের মারপ্যাঁচে ফেলে কুপোকাত করে দেন, তা পাঠককে বিমোহিত করে তোলে। যার প্রমাণ গুডরিডসের পাঠকদের মন্তব্যের মধ্যেই পাওয়া যায়। অধিকাংশ পাঠকই বইটিকে চার কিংবা পাঁচ তারকা দিয়ে চিহ্নিত করেছেন এবং প্রশংসায় পঞ্চমুখ। পাঠক প্রিয়তার কারণেই গ্রিশামের এই বইটি নিউইর্য়ক টাইমস বেস্ট সেলারের শীর্ষে অবস্থান করছে।