১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিধ্বস্ত রুশ বিমানের খোলের ভিতরে বোমার সন্দেহ

অনলাইন ডেস্ক ॥ রাশিয়ার বিধ্বস্ত বিমানের খোলের মধ্যে বোমাটি পেতে রাখা ছিল বলে যুক্তরাজ্যের তদন্তকারীরা ধারণা করছেন। বিমানটি আকাশে ওড়ার আগেই বোমাটি পেতে রাখা হয়।

যুক্তরাজ্য সরকার দুই দিন আগে মিশরের অবকাশ কেন্দ্র শার্ম আল শেখ থেকে আসা ও যাওয়ার সকল ফ্লাইট বাতিল করেছে। সন্ত্রাসীরা রাশিয়ার বিমান বিধ্বস্ত করার পেছনে যুক্ত থাকতে পারে এমন সন্দেহে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

সিনাই এলাকায় জঙ্গিদের কথোপকথনে আড়ি পেতে গোয়েন্দারা এ তথ্য পেয়েছেন বলে যুক্তরাজ্য দাবি করেছে।

কোগালিমাভিয়া এয়ারলাইনসের ভাড়া করা এয়ারবাসটি (এ-৩২১) সিনাইয়ের দক্ষিণের শার্ম আল-শেখ থেকে শনিবার স্থানীয় সময় সকাল ৫টা ৫১ মিনিটে উড্ডয়ন করে। গন্তব্য ছিল রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গ। তবে এটি সিনাই এলাকার প্রত্যন্ত পাহাড়ি অঞ্চলে বিধ্বস্ত হয়। বিমানটিতে যাত্রী ছিলেন ২১৭ জন। এর মধ্যে ১৩৮ নারী ও ১৭ শিশু। যাত্রীদের বেশির ভাগই ছিলেন পর্যটক। বিমানটিতে ক্রু ছিলেন সাতজন। বিমানের ২১৭ যাত্রীর মধ্যে ২১৪ জনই রাশিয়ার নাগরিক। বাকি তিনজন ইউক্রেনের।

ব্রিটেনের কর্মকর্তারা যদিও বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার জন্য কারিগরি ত্রুটির সম্ভাবনা নাকচ করে দেননি। তবে তারা মনে করছেন, এটা নাও হতে পারে।

যুক্তরাজ্যের নিরাপত্তা সংস্থার তদন্তকারীরা সন্দেহ করছেন, বিমান ওড়ার আগে কেউ একজন বিমানের ব্যাগ রাখার খোলের মধ্যে ঢুকে লাগেজের ভিতরে অথবা উপরে একটি বিস্ফোরক ডিভাইস পেতে রাখে।

আইএসের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একটি জঙ্গি গোষ্ঠী রাশিয়ার যাত্রীবাহী বিমান ভূপাতিত করার দাবি করে। তবে তাদের এ দাবি নাকচ করে দেয় কায়রো ও মস্কো। সিরিয়ায় বিমান হামলার জন্য রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র উভয়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে আইএস।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বৃহস্পতিবার বলেন, রাশিয়ার বিধ্বস্ত বিমানে বোমা পেতে রাখার সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি মনে করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা একে গুরুত্ব সহকারে নিয়েছি।’

তবে মিশর ও রাশিয়া উভয়ে বলেছে, এখনও কিছু বলার সময় আসেনি।