১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৭ নবেম্বর আজ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আজ ৭ নবেম্বর। ইতিহাসের পাতায় ঘটনাবহুল একটি দিন। বিএনপি এ দিবসটিকে বিপ্লব ও সংহতি দিবস হিসেবে পালন করে। অন্যদিকে জাসদ পালন করে সৈনিক জনতার অভ্যুত্থান দিবস হিসেবে।

১৯৭৫ সালের ৭ নবেম্বরকে কেন্দ্র করে দেশে সামরিক শাসনের সূত্রপাত ঘটে। এই দিনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে রক্তাক্ত অভ্যুদয় সংঘটিত হয়। ক্যু-পাল্টা ক্যুসহ অনেক নাটকীয় ঘটনার মধ্য দিয়ে এই দিনে বঙ্গবন্ধু হত্যার পর দেশের ক্ষমতার মঞ্চে আবির্ভূত হন জেনারেল জিয়াউর রহমান। ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়ে তা পাকাপোক্ত করতে গঠন করেন নতুন রাজনৈতিক দল বিএনপি। তার প্রতিষ্ঠিত দল বিএনপির শুরু থেকেই দিবসটিকে বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন করে এলেও বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক বিভিন্ন সংগঠন এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ দিবসটিকে মুক্তিযোদ্ধা সৈনিক হত্যা দিবস হিসেবে পালন করে।

নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে এবারও দেশব্যাপী বিএনপি ৭ নবেম্বরকে বিপ্লব ও সংহতি দিবস হিসেবে পালন করবে। ইতোমধ্যে বিএনপির পক্ষ থেকে দিবসটি পালনে কেন্দ্রীয়ভাবে ১০ দিনের কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়েছে। এসব কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে আজ সকাল ১০টায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজার জিয়ারত, দলীয় কার্যালয়ে পতাকা উত্তোলন, র‌্যালি, রক্তদান কর্মসূচী, আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল। দিবসটি পালন উপলক্ষে আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিএনপির সিনিয়র নেতারা দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের নিয়ে দলের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন।

৭ নবেম্বর উপলক্ষে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া সংবাদপত্রে প্রকাশের জন্য শুক্রবার বিকেলে একটি বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তিনি বলেন, সরকার দমন-নিপীড়ন ও জনগণের কণ্ঠরোধ করে এবং দেশের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে ক্ষমতায় থাকতে বিভোর হয়ে উঠেছে। তিনি বলেন, দেশ যখন অপশাসনে নিপতিত হয় তখন গণতন্ত্র, স্বাধীনতা যুদ্ধের মূল্যবোধ হুমকির সম্মুখীন হয়।

খালেদা জিয়া বলেন, দেশে এখন একটি বিনাভোটের সরকার ক্ষমতায় প্রতিষ্ঠিত। তারা দমন-নিপীড়নের মধ্য দিয়ে জনগণের কণ্ঠরোধ করে দেশের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে শুধুই ক্ষমতায় থাকতে বিভোর। এই দুঃশাসনের অবসান হওয়া জরুরী। জনগণ যদি অবাধে ভোট দেয়ার অধিকারটুকু ফিরে পায় তাহলেই তারা স্বৈরাচারী শাসনের বিপক্ষে তাদের আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটাতে পারবেন। আমি মনে করি, ৭ নবেম্বরের চেতনায় সকল জাতীয়তাবাদী দেশপ্রেমিক শক্তির ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন।

মনোবল হারানোয় হামলার শিকার হচ্ছে পুলিশÑ হান্নাহ শাহ ॥ দক্ষতা ও মনোবল হারানোর কারণে পুলিশ হামলার শিকার হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব) আ স ম হান্নান শাহ। শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘৭ নবেম্বর জাতীয় সংহতি দিবস’ উপলক্ষে ডক্টরস এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

হান্নান শাহ বলেন, পুলিশ জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত না করে অন্যায় কাজ ও চাঁদাবাজিতে লিপ্ত। তারা বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলায় ব্যস্ত। আর সে কারণে তারা দক্ষতা হারিয়ে ফেলেছে। এ কারণে পুলিশ অপরাধীদের ধরতে ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় পুলিশ বলেছিল, দেখামাত্রই গুলি। এখন ডিএমপি কমিশনার বলছেন, আক্রান্ত হলেই গুলি। বার বার তাদের বক্তব্য পরিবর্তন হবে কিন্তু কোন কাজ হবে না।

আয়োজক সংগঠনের মহাসচিব ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এ জেড এম জাহিদ হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ডাঃ রফিকুল ইসলাম বাচ্চুসহ আরও ক’জন নেতা।

আওয়ামী লীগই জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেÑ নোমান ॥ বিএনপি নেতৃত্বশূন্য হয়ে গেছে বলে সরকারী দলের নেতাদের বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেছেন, বিএনপি নেতৃত্ব শূন্য হয়ে যায়নি বরং আওয়ামী লীগই জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। শুক্রবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি মুনির হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ-দফতর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহিন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম, গোলাম সরোয়ার প্রমুখ।

খালেদার সঙ্গেই আলোচনায় বসতে হবে- শাহ মোয়াজ্জেম ॥ সরকার না চাইলেও বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সঙ্গেই আলোচনায় বসতে হবে এবং তার কাছ থেকেই দিক নির্দেশনা নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন। শুক্রবার দুপুরে শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ৭ নবেম্বর উপলক্ষে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।