২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মোহালি টেস্টে ভারতের দিন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ২০১ রানে অলআউট হয়ে যাওয়ার পরের দিনটাই ভারতের হয়ে যাবে, তা কে ভেবেছিল। বোলারদের সৌজন্যে সেই অভাবনীয় উপহারটাই পেল স্বাগতিকরা। কোচ রবি শাস্ত্রীর স্পিন-জাল বিস্তারের প্ল্যানটা দারুণ কাজে লেগেছে! দুই শ’তে গুটিয়ে গেলেও প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১৮৪ রানে অলআউট করে প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে এগিয়ে ভারত। যেখানে বল হাতে নেতৃত্ব দিয়েছেন রবিচন্দ্রন আশ্বিন। প্রোটিয়াদের ১০ উইকেটের পাঁচটিই নিয়েছেন তিনি, বাকি পাঁচটি অপর দুই স্পিনার অমিত মিশ্র ও রবীন্দ্র জাদেজার। দ্বিতীয় দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ২ উইকেটে ১২৫ রান করে লিডটাকে ১৪২Ñএ নিয়ে গেছে বিরাট কোহলির দল! ৬৩ রান নিয়ে ব্যাট করছেন চেতেশ্বর পুজারা, ব্যক্তিগত ১১ রানে তার সঙ্গী অধিনায়ক কোহলি। ফেরার আগে ওপেনার মুরলি বিজয় করেন ৪৭ রান। সব মিলিয়ে দুই দিনেই মোহালি টেস্টের লাগাম মোড়লদের হাতে।

মোহালিতে চলছে স্পিন-শো। দুই দিনেই পড়েছে ২২ উইকেট। টেস্ট বোলারদের খেলা, সেখানে এভাবে মুড়ি-মুড়কির মতো উইকেট পড়লে রেজাল্ট অবধারিত। আবহাওয়া বাগড়া না বাধালে নিশ্চিত ফল দেখতে যাচ্ছে চার ম্যাচ সিরিজের প্রথম লড়াই। স্পিনারদের সৌজন্যে যেখানে পাল্লা ভারি ভারতেরই। ২০১ রানে অলআউট হয়েও স্বাগতিকদের লিড পাওয়ার অসাধ্য এই কাজটা করেছেন আশ্বিন-মিশ্ররা। পাঁচ শিকারের পথে কয়েক বছর ধরে ভারতীয় বোলিংয়ের নেতৃত্ব দেয়া আশ্বিন কালও প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের নাভিশ্বাস তুলেছেন। সঙ্গী জাদেজার ৩, মিশ্রর শিকার ২। সব উইকেটই স্পিনারদের। কার্যত স্পিন ফাঁদেই অতিথিরা ধরা পড়ে। এতে অবশ্য আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই। প্রথম দিন ভারতের প্রথম ইনিংস চলার সময়ই বোঝা যাচ্ছিল মোহলির পিচ স্পিনারদের জন্যই। লেগি ইমরান তাহিরের সঙ্গে ‘অকেশনাল’ ডিন এলগারকে সামলতে গিয়ে জুবুথবু হয়ে পড়ে ‘স্পিনের বিপক্ষে স্পেশালিস্ট’ স্বাগতিক ব্যাটসম্যানরা। তাতে প্রোটিয়াদের কপালেও যে অশনি সঙ্কেত অপেক্ষা করছিল, সেটি বোঝাই যাচ্ছিল।

দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসজুড়েই স্পিন বিষ ছড়িয়েছেন আশ্বিন-মিশ্ররা। ৬৮ ওভার স্থায়ী ইনিংসে পেসাররা সুযোগ পেয়েছেন মোটে ১৪ ওভার। দ্বিতীয় দিনেই ফাটল ধরা পিচে যেভাবে ধুলো উড়েছে, তাতে দুই পেসার উমেষ যাদব আর বরুণ এ্যারন কেবল ফিল্ডিং করেই পাঁচদিন কাটিয়ে দিতে পারেন! ২ উইকেটে ২৮ রান নিয়ে দিন শুরু করা দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম ইনিংসের শুরুটা মন্দ ছিল না।

তৃতীয় উইকেটে অধিনায়ক আমলা (৪৩) আর এলগার (৩৭) যোগ করেন সর্বোচ্চ ৭৬ রান। ভরাডুবির মাঝে এখন পর্যন্ত প্রোটিয়া ইনিংসের সেরা জুটি এটিই। দলীয় ৮৫ রানে এলগার ফিরতেই যেন সব এলোমেলো। শেষ দিকে ভারনন ফিল্যান্ডার (৩), সাইমন হারমারকে (৭) নিয়ে ওয়ানডে অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্সই (৬৩) যা একটু টেনে নিয়েছেন। ইনিংসে বাকি আট ব্যাটসম্যান মিলে করেছেন ২৩ রান! ৫ উইকেট নিয়ে ২৯তম টেস্টেই ১৫০-এর মাইলফলকটা পেরিয়ে গেছেন ‘সুপার’ আশ্বিন। ভারতীয়দের মধ্যে কম টেস্টে দেড় শ’ উইকেটের রেকর্ড এটিই।

স্কোর ॥ ভারত প্রথম ইনিংস ২০১/১০ (৬৮ ওভার; বিজয় ৭৫, জাদেজা ৩৮, পুজারা ৩১, আশ্বিন ২০*, রাহানে ১৫; এলগার ৪/২২, তাহির ২/২৩, ফিল্যান্ডার ২/৩৮, রাবাদা ১/৩০, হারমার ১/৫১) ও দ্বিতীয় ইনিংস ১২৫/২ (৪০ ওভার; পুজারা ৬৩*, বিজয় ৪৭, কোহলি ১১*, ধাওয়ান ০; ফিল্যান্ডার ১/১৭, তাহির ১/৩৩)

দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংস ১৮৪/১০ (৬৮ ওভার; ডি ভিলিয়ার্স ৬৩, আমলা ৪৩, এলগার ৩৭, হারমার ৭; আশ্বিন ৫/৫১, জাদেজা ৩/৫৫, মিশ্র ২/৩৫)

** দ্বিতীয় দিন শেষে।

নির্বাচিত সংবাদ