২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে ইকো পার্ক

বর্ষায় উত্তাল উন্মাদনার প্রমত্তা যমুনা এখন শান্ত। এই হেমন্তে যমুনা লক্ষ্মী বালিকার মতো। পরিবার পরিজন নিয়ে হেমন্তে সেই রূপ উপভোগ করার এখনই সময়। বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিমপাড়ের শহর সিরাজগঞ্জে ইকো পার্ক, যমুনার হার্ডপয়েন্ট এসবই পর্যটকদের টানে। পয়লা বৈশাখ, কিংবা বাঙালীর চিরায়ত যে কোন উৎসবে সিরাজগঞ্জের যমুনাপাড়ের হার্ডপয়েন্ট উৎসবে মেতে ওঠে। দিন শেষে পড়ন্ত বিকেলে শিশু নারী-পুরুষের ঢল নামে। মনে হয় উজান থেকে নেমে আসা পানিতে যমুনায় যৌবন ফিরেছে। নানা বয়সী নারী-পুরুষের আড্ডায় হার্ড পয়েন্ট পরিণত হয় মানুষের মিলনমেলায়। প্রতিদিন হাজারো শিশু-নারী পুরুষ আসে যমুনা নদীর তীরে। রিক্সা, বাইসাইকেল, মোটরসাইকেল এবং প্রাইভেটকার নিয়ে আসে তারা। শহরের বিভিন্ন এলাকা ছাড়াও গ্রামাঞ্চল থেকেও মানুষ আসে হার্ড পয়েন্টে। সিরাজগঞ্জে বেড়াতে এলে আকর্ষণ করে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিমপাড়ের ইকো পার্ক। এখানে রয়েছে বিরল প্রজাতির গাছগাছালিসহ চিত্রা হরিণ, ময়ুর, বানর, সজারুসহ নানা পশুপাখি। শহরের কাছে হার্ডপয়েন্টে দাঁড়ালে দূর থেকে মনে হয় যমুনার বুকে অসংখ্য নক্ষত্র জ্বল জ্বল করে জ্বলছে। আসলে এগুলো আকাশের তারা নয়, বৈদ্যুতিক বাতি জ্বলছে বঙ্গবন্ধু সেতুতে। যাতায়াত করছে দ্রুতগামী যানবাহন। সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জ শহরের হার্ডপয়েন্টে দাঁড়ালে এই মনোরম দৃশ্য যে কোন পর্যটককে আকর্ষণ করে। আবার হার্ডপয়েন্টের কাছেই যমুনা ক্রোধে ফুঁসে উঠছে। তীব্র গতিতে ঢেউ এসে আঘাত হানছে। কিন্তু যমুনার ক্রোধ পরাস্ত হয়ে নুয়ে পড়ছে পাড়ে। যমুনার বিশাল জলরাশি ছল ছল শব্দ করে ঢেউ খেলে মিলিয়ে যায়। নির্মল বায়ু সেবনের আমেজে নানা বয়সী মানুষ আড্ডায় মেতে ওঠে। সিরাজগঞ্জের হার্ডপয়েন্টে এমন অনেক দৃশ্য চোখে পড়ে। প্র্রাকৃতিক এসব দৃশ্য দেখে মন আলোড়িত হয়। সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর তীর এখন চমৎকার অবকাশ বিনোদন কেন্দ্র। কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত অথবা কুয়াকাটা পর্যটন কেন্দ্রের মতো মনোরম চিত্তবিনোদনের সুবিধা না থাকলেও সিরাজগঞ্জ শহর বরাবর যমুনা নদীর তীর এখন ভ্রমণবিলাসীদের চিত্তবিনোদনের অন্যতম কেন্দ্র হয়ে উঠেছে। পড়ন্ত বিকেলে যমুনার পানিতে অস্তগামী সূর্যের লাল আভা নববধূর লজ্জারাঙা অধোরের কথা মনে করিয়ে দেয়। গা জুড়ানো বাতাস আর কিছুটা সময় ভিন্ন পরিবেশে অবস্থান করাই হচ্ছে নদী তীরে মানুষের মিলনমেলা জমে ওঠার প্রধান কারণ। কুঁচিপাথরে ঢালাই করা সিঁড়িতে এবং হার্ডপয়েন্টের উপরিভাগে বেঞ্চের মতো দেখতে গার্ডারের ওপর অনায়াসে বসে চুটিয়ে আড্ডা দেয় ভ্রমণবিলাসীরা।

Ñবাবু ইসলাম, সিরাজগঞ্জ থেকে

নির্বাচিত সংবাদ