২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বন দখলবাজদের শক্তহাতে প্রতিরোধ করার তাগিদ

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ বনজ সম্পদ দখলবাজদের শক্তহাতে প্রতিরোধ করার তাগিদ দিয়ে প্রধান বন সংরক্ষক মো: ইউনুছ আলী বলেছেন, বন হারিয়ে গেলে পরিবেশ মারাতœক ক্ষতিগ্রস্ত সহ মানব বসতি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে ওঠবে। যারা সরকারী পাহাড়ভূমি জবর দখল করছেন তাদের দিন ফুরিয়ে গেছে। এসব দখলবাজদের শক্তহাতে প্রতিরোধ করা হবে। এজন্য জনগণের অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে সমাজিক বনায়ন হচ্ছে। বনজ সম্পদ ধ্বংসে বনকর্মীরাও জড়িত বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, বন সম্পদ রক্ষায় যাদের পাহারাদার নিযুক্ত করা হয়- তাদের অনেকেই বনজ সম্পদ ধ্বংসের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে। লাকড়ি বিক্রি করে সামান্য টাকার জন্য অনেকে বনজ সম্পদে আগুন ধরিয়ে দিচ্ছে। ‘প্রকৃতির পেরেক পাহাড়’ কেটে ধ্বংস করছে। এটি খুবই দুঃখজনক বিষয়। শনিবার সকালে হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটির সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন।

কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের কর্মকর্তা মো: আলী কবিরের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম অঞ্চলের বন সংরক্ষক মো: আব্দুল লতিফ মিয়া, কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের কর্মকর্তা শাহ-ই-আলম। বক্তব্য রাখেন হিমছড়ি জাতীয় উদ্যান সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটির সাবেক সভাপতি আবু মোরশেদ চৌধুরী খোকা ও ক্রেল প্রকল্পের কক্সবাজার সমন্বয়ক বিশ্বজিত সেন বাঞ্চু। অনুষ্ঠানে সামাজিক বনায়নের উপকারভোগী ২০ জন নারী পুরুষের প্রত্যেককে ১ লাখ ৩২ হাজার ৫৪১ টাকার লভ্যাংশের চেক বিতরণ করা হয়।