১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

২৪ নবেম্বর শুরু হচ্ছে পাঁচ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ‘একটি ব্যাংকিং জাতি গড়ার প্রত্যয়’ সেøাগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পাঁচ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা। যা উপমহাদেশেও প্রথম বলে জানা গেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের উদ্যোগে রাজধানীর বাংলা একাডেমিতে ২৪ নবেম্বর শুরু হওয়া এ মেলা চলবে ২৮ নবেম্বর পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এ মেলা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, আটটি লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এগুলো হলো ব্যাংকিং পণ্য ও সেবা সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছানো, ব্যাংকিং পণ্য ও সেবা সম্পর্কে সাধারণ মানুষের সচেতনতা বৃদ্ধি, বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক শিক্ষা কার্যক্রমকে জাতীয় পর্যায়ে তুলে ধরা, জাতীয় পর্যায়ে ব্যাংকিং খাত ও এর পণ্য এবং সেবার প্রচার ও প্রসার, গ্রাহকের কাছে ব্যাংককে সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান হিসেবে উপস্থাপন, ব্যাংকিং খাতে ব্যবহৃত প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারে গ্রাহককে উৎসাহিত করা, বৃহত্তর আর্থিক অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত এবং তরুণ ও যুব সমাজকে ব্যাংকমুখী করা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, মেলায় দেশের সব তফসিলী ব্যাংকের স্টলসহ আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডারের স্টল থাকবে। এছাড়া মেলায় বাংলাদেশ ব্যাংকের একাধিক স্টল থাকবে। মেলায় বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক শিক্ষা, টাকা জাদুঘর, বাংলাদেশ সিকিউরিটি প্রিন্টিং প্রেস (টাকা বানানোর মেশিন), বিভিন্ন প্রকাশনা, স্মারক মুদ্রা ও নোট ক্রয়, জনসাধারণকে সেবা, সিআইপিসি, অভিযোগ কেন্দ্র খোলা হবে। এছাড়া থাকবে বিতর্ক প্রতিযোগিতা, সেমিনার, ওয়ার্কশপ, গোলটেবিল বৈঠক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

চার হাজার শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিল ডাচ-বাংলা ব্যাংক

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ২০১৫ সালে মাধ্যমিক পাস করা মেধাবী চার হাজার ২৫ শিক্ষার্থীকে এ বছর বৃত্তি দিয়েছে ডাচ-বাংলা ব্যাংক। সামাজিক কল্যাণ কার্যক্রমের বা সিএসআরের আওতায় এ উচ্চমাধ্যমিক ও স্নাতকসহ বিভিন্ন পর্যায়ে অধ্যয়নরত মেধাবী ও আর্থিক অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেয় ব্যাংকটি। শিক্ষাবৃত্তির ৯০ ভাগ গ্রামাঞ্চলের শিক্ষার্থী এবং ৫০ ভাগ ছাত্রীদের দেয়া হয়। শনিবার রাজধানীর মিরপুরে ইনডোর স্টেডিয়ামে আয়োজিত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের এ বৃত্তি দেয়া হয়। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন। ব্যাংকের চেয়ারম্যান সায়েম আহমেদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডার হাইকমিশনার বেনওয়া পিয়ের লাঘামে। ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কেএস তাবরেজ এতে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ১৯৯৮ সাল থেকে এ বৃত্তি দিয়ে আসছে ডাচ-বাংলা ব্যাংক। এবারসহ এ পর্যন্ত মোট ৩৬ হাজার ৪১০ শিক্ষার্থীকে এ বৃত্তি দিল ব্যাংকটি। অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, বৃত্তি প্রকল্প দেশের দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের কল্যাণে আর্থিক খাতের অনন্য দৃষ্টান্ত। এর চেয়ে মহৎ কাজ আর হতে পারে না। শিক্ষার গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি বলেন, প্রত্যেক শিক্ষার্থী ভবিষ্যতে কি হতে চায় সেটা নির্ধারণ করে ফেলা দরকার। উচ্চমাধ্যমিকে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য ঠিক করে সেদিকে ধাবিত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।