১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আনোয়ার সাঈদের দুটি কিডনিই অকেজো, বাঁচাতে সহায়তা দিন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর মিরপুরের দারুস সালাম এলাকার ৫৯-বি হোল্ডিংয়ের বাসিন্দা আনোয়ার সাঈদ, বয়স ৪১ বছর। তার দুটি কিডনিই অকেজো হয়ে গেছে। মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন তিনি। অসহায় হয়ে পড়েছেন তাঁর বৃদ্ধ মাতা-পিতা। পরিবারটির আর্থিক অবস্থা ভাল না। লেখাপড়া শেষ করে একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে কাজ শুরু করেছিলেন সাঈদ। তাঁর কর্মসংস্থান হওয়ার সংবাদ যেন বৃদ্ধ মাতা-পিতার জীবন সংগ্রামে সাহস বাড়িয়ে দেয়। পরিবারের সদস্যদের মুখে ফুটে ওঠে হাসি। কিন্তু বেশিদিন টিকেনি এই আনন্দ। সাঈদের জটিল রোগে আক্রান্তের খবরে পরিবারে নেমে আসে অন্ধকারের ছায়া। দিশেহারা হয়ে পড়ে বৃদ্ধ মাতা-পিতা। সাঈদ ছিলেন পরিবারটির একমাত্র উপার্জনক্ষম সদস্য। সুঠাম স্বাস্থ্যের অধিকারী সাঈদ আজ শুকিয়ে গেছে। বন্ধ হয়ে গেছে তাঁর কাজে যাওয়া। থেমে গেছে পরিবারটির উপার্জন। তবে থেমে থাকেনি সাঈদের চিকিৎসা। সহায় সম্বল বিক্রি করে প্রিয় সন্তানের চিকিৎসা শুরু করেন বৃদ্ধ মাতা-পিতা। জরুরী ভিত্তিতে কিডনি প্রতিস্থাপন করানোর পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। এজন্য প্রয়োজন প্রায় ৩০ লাখ টাকা। কিন্তু রোগীর বৃদ্ধ মাতা-পিতার পক্ষে এই ব্যয়বহুল চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। বর্তমানে সাঈদ কিডনিরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ মোঃ আব্দুল মুকীতের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ডায়ালাইসিস দিয়ে তাঁকে বাঁচিয়ে রাখা হয়েছে। চিকিৎসার পেছনে সহায় সম্বল হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছে পরিবারটি। বর্তমানে টাকার অভাবে চিকিৎসা চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। এমতাবস্থায়, আনোয়ার সাঈদের চিকিৎসার জন্য সকল হৃদয়বান ও দানশীল ব্যক্তির আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন তাঁর অসহায় মাতা-পিতা। চিকিৎসায় সহযোগিতা দিতে সরাসরি যোগাযোগ করুন আনোয়ার সাঈদের পিতা আবু সাঈদের এই মোবাইল নম্বরে-০১৭১৩০০০৭৪১। আর সাহায্য দিন এই সঞ্চয়ী হিসাবে-আবু সাঈদ, ন্যাশনাল ব্যাংক, ধানম-ি শাখা, ঢাকা, হিসাব নং- ০০০.৬৩৩.৪১৩.২৫৯৭।

ঘোষণা : দৈনিক জনকণ্ঠ মানুষ মানুষের জন্য বিভাগে খবর প্রকাশের মাধ্যমে সহৃদয় ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ ঘটিয়ে দিয়ে থাকে। সাহায্য সরাসরি সাহায্যপ্রার্থীর ব্যাংক এ্যাকাউন্টে জমা দিতে হবে। অথবা নগদ দিতে সাহায্যপ্রার্থীর দেয়া মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করতে হবে। দৈনিক জনকণ্ঠ এ বিষয়ে কোন দায়ভার গ্রহণ করবে না।