২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী দল হিসেবে আবির্ভূত ইসলামিক স্টেট

সন্ত্রাসীদের বোমার আঘাতেই এক রুশ বিমান সিনাই উপদ্বীপের আকাশে ধ্বংস হয়েছিল- এ নির্মম সম্ভাবনা ইসলামিক স্টেটের (আইএস) হুমকি নাটকীয়ভাবে বিস্তার লাভ করেছে বলে উদ্বেগ বাড়িয়ে তুলছে। এ সম্ভাবনা ঐ জঙ্গী দলটির সঙ্গে সম্পৃক্ত বিশ্বের বিদ্রোহীরা যে ভয়াবহ তৎপরতা চালাতে পারে সেইদিকেও দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। খবর ওয়াশিংটন পোস্ট অনলাইনের।

বিমানটির ব্ল্যাকবক্সে এক বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায় বলে ফরাসীরা খবর জানায়। এতে পর্যটক ভর্তি রুশ বিমানটি সন্ত্রাসীদের হামলার লক্ষ্যস্থল হয়েছিল বলে ক্রমবর্ধমান আশঙ্কা আরও ঘনীভূত হয়। রাশিয়া মিসর অভিমুখে সব বিমানের চলাচল স্থগিত রাখার পর ফরাসীদের খবর প্রকাশিত হয়। রাশিয়ার সিদ্ধান্ত স্পষ্টই সঙ্কেত দেয় যে কোন বোমার আঘাতেই গত সপ্তাহান্তে মেট্রোজেট বিমানটি ধ্বংস হয়েছিল বলে এখন ক্রেমালিন আশঙ্কা করছে। অথচ এর আগে রাশিয়া এটি কোন মন্ত্র সন্ত্রাসী হামলা ছিল বলে মেনে নিতে দ্বিধাগ্রস্ত ছিল। এ ঘটনায় বিমানের ২২৪ আরোহীর সবাই নিহত হয়। যদি আইএস বাস্তবেই বিমানটি ধ্বংস করে থাকে, তাহলে জঙ্গী দলটিকে ইরাক ও সিরিয়ার মধ্যে আবদ্ধ রেখে শেষ পর্যন্ত পরাজিত করা যাবে এমন আশঙ্কা ভঙ্গ হবে। আইএস ঐ দুটি দেশের বিরাট এলাকা দখল করে সেখানে খিলাফত ঘোষণা করেছে। বিশ্লেষকরা বলেন, আইএসের সঙ্গে সম্পৃক্ত দলগুলোকে দিয়ে কিভাবে কাজ করানো যায়, তাও শিখেছে বলে ঐ ঘটনা থেকে বোঝা যায়। জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবাদ বিশেষজ্ঞ ব্রুস হফম্যান বলেন, সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ইউরোপে হামলা চালানোর পরিকল্পনার অভিযোগে কসোভো ও আলবেনিয়াতে কিছু আইএস কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি বলেন, কিন্তু আইএস এবারই প্রথম আগের সীমা পেরিয়ে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসের দৃশ্যপটে আবির্ভুত হয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বৃহস্পতিবার বলেন যে, কোন বোমার আঘাতে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়ে থাকতে পারে এবং এ সম্ভাবনাকে আমরা খুবই গুরুত্বের সঙ্গে নিচ্ছি। শনিবার সিনাইর আইএসের শাখা আনসার বাইস আল মাকদিস জেটটি ভূপাতিত করার দায়িত্ব স্বীকার করে।

নির্বাচিত সংবাদ