১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

উচ্ছ্বসিত পরীমনি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গ্লামার্সের কারণে চলচ্চিত্র অঙ্গনে পা দিয়েই সম্ভাবনাময় অভিনেত্রী হিসেবে আলোচনায় আসেন পরীমনি। এই প্রথম মুক্তি না পাওয়া কোন চলচ্চিত্রের অভিনেত্রীকে নিয়ে এতটা আলোচনা হয়। যদিও সেসব আলোচনার কোন ভিত্তি খুঁজে পাওয়া যায়নি। ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার মধ্যে চিত্রনায়িকা হিসেবে চারটি চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছে। তবে কোন চলচ্চিত্রেই তাকে অভিনেত্রী হিসেবে পরিপক্ব মনে হয়নি। তাতে তাকে নিয়ে আলোচনা থামেনি। বিগত চলচ্চিত্রগুলোতে গ্লামার্স চরিত্রে অভিনয় করলেও পাঁচ নম্বরে এসে একটু পরিবর্তন হচ্ছে তার। চলচ্চিত্রের নাম ‘মহুয়া সুন্দরী’। কারণ একে তো লোকজ গল্প, নাম ভূমিকায় তিনি, তার ওপর সরকারী অনুদানÑ সব মিলিয়ে তার আগের চলচ্চিত্রগুলোর সঙ্গে এটাকে মেলানো যাবে না।

পরীও সেটা মানেন। মুক্তি প্রতীক্ষিত ‘মহুয়া সুন্দরী’ নিয়ে একটু বেশিই আশাবাদী তিনি। তাই আত্মবিশ্বাস নিয়ে বলেছেন, এটা বাংলার চলচ্চিত্র। আমাদের চলচ্চিত্র। হলে এসে এটি দেখুন। আমি জানি এটি অবশ্যই আপনাদের ভাল লাগবে। ২০১৩-১৪ অর্থবছরে সরকারী অনুদানে তৈরি হয়েছে ময়মনসিংহ গীতিকা অবলম্বনে ‘মহুয়া সুন্দরী’। এটি মুক্তি পাচ্ছে আগামী ২০ নবেম্বর। এ উপলক্ষে এক প্রীতি সম্মিলনীর আয়োজন করা হয় শুক্রবার সন্ধ্যায়। রাজধানীর হাতিরঝিলে প্রিয়াঙ্কা শূটিংস্পটে আয়োজিত অনুষ্ঠানে দীর্ঘ বক্তৃতায় চলচ্চিত্রটি নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন অভিনেত্রী পরী। অনুষ্ঠানে পরীমনির পাশাপাশি ছিলেন নির্মাতা সৈয়দ সালাহউদ্দিন জাকী, সোহানুর রহমান সোহান, সাদেক বাচ্চু, সঙ্গীতশিল্পী সামিনা চৌধুরী, ইমন সাহা, অভিনেতা জয়রাজসহ চলচ্চিত্রের শিল্পী ও কলাকুশলীরা। বক্তব্যে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা জানান, ‘মহুয়া সুন্দরী’ চলচ্চিত্রে দেশীয় পোশাক পরেছেন শিল্পীরা। বিশেষ করে মহুয়ার চরিত্রটি দেখে দর্শক আবহমান বাংলার নারীর চিরায়ত রূপ দেখতে পাবেন। আর চলচ্চিত্রের গানেও থাকছে লোকায়ত বাংলার সুর। এতে আইটেম গান গেয়েছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লা। সব মিলে চলচ্চিত্র নিয়ে যথেষ্ঠ আশাবাদী পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টরা।