১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জঙ্গী দমনে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের লক্ষ্য অভিন্ন

  • তিন দিনের সফর শেষে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখ্য উপ-সহকারীমন্ত্রী উইলিয়াম ই টড

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লক্ষ্য অভিন্ন। এ বিষয়ে দুই দেশ একযোগে কাজ করবে। এছাড়া দুই দেশের মধ্যে যে অংশীদারিত্ব তৈরি হয়েছে তাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গর্ব বোধ করে। ঢাকায় তিনদিন সফর শেষে এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানিয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক মুখ্য উপ-সহকারী মন্ত্রী উইলিয়াম ই টড। এদিকে লেখক, ব্লগার ও প্রকাশক হত্যায় উদ্বেগ প্রকাশ করে সরকারের প্রতি দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক মুখ্য উপ-সহকারী মন্ত্রী উইলিয়াম ই টড ও দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ার নেপাল, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা বিষয়ক পরিচালক ক্লিনটন ব্রাউন ৪-৫ নবেম্বর ঢাকায় সফর করেন। এরপর তারা শ্রীলঙ্কা সফর করে রবিবার আবার ঢাকায় আসেন। ঢাকায় পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হকের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকের পর রবিবার ঢাকা ত্যাগ করেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই দুই সদস্যের প্রতিনিধি দল।

ঢাকার মার্কিন দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়, ঢাকায় অবস্থানকালে মুখ্য উপ-সহকারী মন্ত্রী টড বাংলাদেশ সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। যেখানে তিনি যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক, নিরাপত্তা অবস্থা ও আঞ্চলিক বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা করেন।

ঢাকা সফরের বিষয়ে মুখ্য উপ-সহকারী মন্ত্রী উইলিয়াম ই টড বলেন, বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একে অপরের সঙ্গে সহযোগিতা করে আসছে। আমরা সব সময় চেষ্টা করছি, উভয় দেশই যেন উপকৃত হয়। বৈশ্বিক বিষয়ে যেমন, জলবায়ু পরিবর্তন, নারীর ক্ষমতায়ন এবং সহিংস চরমপন্থা প্রতিরোধে বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একই দৃষ্টিভঙ্গি ও লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে। সাম্প্রতিক দশকে দুই দেশের মধ্যকার অংশীদারিত্বের ফলে যা অর্জিত হয়েছে তাতে আমি গর্বিত এবং আমি আত্মবিশ্বাসী। তবে আমরা আজ যে প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়েছি তা আমরা একত্রে মোকাবেলা করব। দুই দেশের জনগণের মধ্যে ক্রমবর্ধমান বন্ধনই বলে দেয় যে আমাদের ভবিষ্যৎ সম্পর্ক অনেক প্রতিশ্রুতিপূর্ণ।

ঢাকার মার্কিন দূতাবাস জানিয়েছে, মার্কিন মুখ্য উপ-সহকারী মন্ত্রী টড এর আগে কম্বোডিয়ায় নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। যেখানে তিনি গণতন্ত্রের অগ্রসরতা, মানবাধিকার, আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা, সন্ত্রাস প্রতিরোধ ও বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ বাড়াতে লক্ষ্য নিবিষ্ট করেছিলেন। কম্বোডিয়াতে তার দায়িত্ব পালনের আগে তিনি যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস কাবুলের উন্নয়ন ও অর্থনীতি বিষয়ক সমন্বয় পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। মুখ্য উপ-সহকারী মন্ত্রী টড যুক্তরাষ্ট্র সরকারের উচ্চ পর্যায়ে বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেন। পনের বছরের ও বেশি সময় ধরে তিনি জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন। পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে বৈঠক ॥ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক মুখ্য উপ-সহকারী মন্ত্রী উইলিয়াম ই টড ও দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ার নেপাল, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা বিষয়ক পরিচালক ক্লিনটন ব্রাউন রবিবার পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুলের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন।