১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাকিব ছাড়াই আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ

মিথুন আশরাফ ॥ জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সিরিজের এক ম্যাচ খেলেই আর খেলবেন না বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। প্রথম সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে রবিবার রাতেই যুক্তরাষ্ট্রে চলে গেছেন। সাকিব ছাড়াই তাই আজ জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। ম্যাচটি দুপুর একটায় মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে শুরু হবে। শুধু আজকের ম্যাচটিই নয়, পুরো সিরিজেই সাকিবকে আর পাবে না বাংলাদেশ।

সাকিব না থাকলেও বাংলাদেশ দলের লক্ষ্যে কোন পরিবর্তন ঘটছে না। একটাই লক্ষ্য, জয়। প্রথম ওয়ানডেতে জেতায় এখন তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ১-০’তে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। আজ জিতলে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতে নেবে মাশরাফিবাহিনী। ব্যবধান হয়ে যাবে ২-০। আর যদি বুধবার অনুষ্ঠিতব্য সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতেও জিতে যায় বাংলাদেশ, তাহলে জিম্বাবুইয়েকে হোয়াইটওয়াশই করে দেবে।

আপাতত দ্বিতীয় ওয়ানডের দিকেই সবার নজর রয়েছে। দেশের মাটিতে টানা ৫ ওয়ানডে সিরিজ জেতার কৃতিত্ব গড়ার দিকেই মনোযোগী বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। গতবছর জিম্বাবুইয়েকে সিরিজে হারিয়ে দিয়ে শুরু হয়েছিল। এরপর পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকাকে সিরিজে হারায় বাংলাদেশ। এবার জিম্বাবুইয়েকে আবারও হারানোর দ্বারপ্রান্তে।

বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা জয়ের দিকেই মনোযোগী। তবে জিম্বাবুইয়ে অধিনায়ক এলটন চিগুম্বুরা হুঙ্কারই যেন দিলেন। বলেছেন, ‘আমরা এখনও সিরিজ হেরে যায়নি।’ তার কথায় মনে হচ্ছে, সিরিজে সমতা আনতেই চাচ্ছে। কিন্তু তা কী সম্ভব? প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশের করা ২৭৩ রানের জবাবে ১২৮ রানেই গুটিয়ে যায় জিম্বাবুইয়ে। তাও আবার প্রায় ১৪ ওভার বাকি থাকতেই। হারও হয় বিশাল ব্যবধানে, ১৪৫ রানে। বোঝাই গেছে, জিম্বাবুইয়ে দলটি অক্টোবরে আফগানিস্তানের কাছে ওয়ানডে ও টি২০ হারের দুঃস্মৃতি যেন ভুলতে পারছে না। আবার প্রতিপক্ষ দলটি বাংলাদেশ। যারা এ মুহূর্তে সাফল্যের চূড়ায় রয়েছে। এমন দলের বিপক্ষে হুঙ্কারই এখন সম্বল জিম্বাবুইয়ের।

তবে তামিম ইকবাল কিন্তু বোঝাতে চাইলেন, সব ম্যাচেই এমন প্রাধান্য বিস্তার করে জয় সম্ভব নয়। কিন্তু জয় চায় বাংলাদেশ, তা ঠিকই মাথায় আছে। তামিম রবিবার দুপুরে অনুশীলন শুরুর আগে বললেন, ‘এত সহজে জিততে পারব, এটা আমরা ভাবিনি। ম্যাচে আগেই আমরা একটা বিষয় জানতাম যে, এদের সঙ্গে কষ্ট করেই জিততে হবে আমাদের। আমাদের চিন্তা ছিল প্রসেসগুলোতে ঠিক থাকা, ভাবনায় সঠিক থাকা। তারপর যদি আমরা সব কাজ ভালভাবে করি, তবে যে রেজাল্ট আশা করি তা পাওয়া যাবে। মাঠে নামব, খেলব আর জিতে যাব; এ রকম কিছু আমাদের কোন খেলোয়াড়ের মাথায় ছিল না। সব সময় আমরা খুবই সিরিয়াস ছিলাম। বাকি দুই ম্যাচেও আমরা তাই থাকব। পরের দুই ম্যাচে এত সহজে আমরা নাও জিততে পারি। পরের দুই ম্যাচে খুব কষ্ট করেই জিততে হতে পারে। আমাদের কাজ হবে প্রসেসগুলো ঠিক রাখা।’

চার থেকে পাঁচজনকে সঙ্গে নিয়ে অনুশীলনে নামা তামিম আরও যোগ করেন, ‘দেখেন, এ বছরটা বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য খুবই ইতিবাচক। সিরিজ জেতা বা রেকর্ড নিয়েও খুব চিন্তা করছি না। আমাদের চিন্তা কেবল আজকের ম্যাচটি নিয়ে। ওই ম্যাচটি আমরা জিততে চাই। ওইটা জিতলে সিরিজও জেতা হয়ে যাবে, এটা ঠিক। আমাদের পরিকল্পনায় থাকে প্রসেসটা ঠিক রাখা।’

আজ জিতলেই জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে টানা ৭ জয় মিলবে। কিন্তু সেটা হতে দেবেন না জিম্বাবুইয়ে ক্রিকেটাররা। রবিবার সকালে অনুশীলন করে জিম্বাবুইয়ের মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান ম্যালকম ওয়েলার বললেন তাই, ‘আজকের ম্যাচে আমাদের জিততে হবে। এই ম্যাচে ভাল স্কোর গড়ে সিরিজে সমতা আনতেই হবে। সব মিলিয়ে এই ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে হবে আমাদের।’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘প্রথম ম্যাচে ব্যাটিংই আমাদের ডুবিয়েছে। তারা দারুণ স্কোর গড়েছে। কিন্তু আমরা ভাল ব্যাটিং করতে পারিনি। আমাদের আরও কাছে পৌঁছানো উচিত ছিল। প্রথমের দিকেই আমরা কয়েকটি উইকেট হারাই। যা আমাদের চাপে ফেলে দেয়। এ কারণেই তখন রান করাটা কঠিন হয়ে পড়ে। আজ সিরিজ সমতা করতেই হবে। বাজে অবস্থা থেকে বেরিয়ে এসে এটাকে ১-১ করতেই হবে।’ যেভাবে হোক, সিরিজে সমতা আনতে চান জিম্বাবুইয়ে ক্রিকেটাররা। আর বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা চান সিরিজ আজই নিশ্চিত করে নিতে। এমন ম্যাচের দিনে সাকিবকে ছাড়াই খেলতে নামতে হবে বাংলাদেশকে।