২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিল্পায়নের জন্য একজন ‘বাবা’ দরকার ॥ জনকণ্ঠের সঙ্গে আলাপকালে রানার গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান

  • উদ্যোক্তাকে নিরাপদ বোধ করতে হবে ॥ মোজাম্মেল হোসেন

কাওসার রহমান ॥ মানুষকে বাঁচাতে হলে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। দেশে শিল্প এখন খারাপ অবস্থায় আছে। ব্যক্তি উদ্যোগে দেশে শিল্প হচ্ছে। কিন্তু সার্বিক উদ্যোগ শিল্পায়ন হচ্ছে না। তাই দেশে শিল্পায়নের জন্য আরও নতুন নতুন উদ্যোগ দরকার।

এমনটাই মনে করছেন দেশের মোটরসাইকেল শিল্পের উদ্যোক্তা রানার গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন। দৈনিক জনকণ্ঠের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, শিল্পের জন্য দুটি জিনিস অতি জরুরী। একটি হলো বিদ্যুত, অপরটি হলো আইনশৃঙ্খলা। শিল্প করতে হলে উদ্যোক্তাকে নিরাপদ বোধ করতে হবে। শ্রমিক মালিক সবাই নিরাপদ বোধ না করলে দেশে কাক্সিক্ষত মাত্রায় শিল্পায়ন হবে না। বিনিয়োগকারী যাতে নিরাপদে বাড়ি ফিরতে পারে সেটা নিশ্চিত করতে হবে।

সরকার এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় সহায়তা দেবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, সরকার বিদ্যুতের ব্যবস্থা করেছে। বিনিয়োগের জন্য জমি স্বল্পতা রয়েছে। সরকার সে ব্যাপারেও এগিয়ে আসবেন বলে আশা করছি।

তিনি বলেন, শিল্পায়নের জন্য আমাদের একজন ‘বাবা দরকার’। সরকারকে সে দায়িত্ব পালন করতে হবে। সরকার শুধু গাইডলাইন দেবে, পরামর্শ দেবে। আমরা শিল্প করব। এভাবেই দেশে শিল্প গড়ে উঠবে। কিন্তু এদেশে সেই গাইডলাইনের বড় অভাব।

রানার গ্রুপের একজন সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও ভাইস চেয়ারম্যান হলেন মোজাম্মেল হোসেন। বর্তমানে এ শিল্প গ্রুপের অধীনে ছয়টি শিল্প প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এগুলো হলো রানার অটোমোবাইলস, রানার মোটরস, রানার ব্রিকস, রানার প্রপারটিস, রানার এগ্রো প্রডাক্টস এবং রানার সিস্টেম টেকনোলজি।

বর্তমানে এ শিল্প গ্রুপ এ পর্যন্ত এক হাজার ৮২০ জনবলের কর্মসংস্থান করেছে। এ গ্রুপের অন্যতম অঙ্গ প্রতিষ্ঠান হচ্ছে রানার অটোমোবাইলস, যেখানে রানার ব্র্যান্ডে দেশীয় মোটরসাইকেল উৎপাদিত হচ্ছে। এ শিল্পের যাত্রা শুরু হয় ২০০০ সালে। বর্তমানে এ শিল্পে সাত শতাধিক জনবল কর্মরত আছে।