২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নেত্রকোনায় নদী ভাঙনে হুমকির মুখে বিদ্যালয়

নিজস্ব সংবাদদাতা, নেত্রকোনা, ৯ নবেম্বর ॥ নেত্রকোনা সদর উপজেলার কালিয়ারা-গাবরাগাতি ইউনিয়নের সাটিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় নদী ভাঙনের কারণে মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে। বিদ্যালয়ের নিজস্ব খেলার মাঠটি ইতোমধ্যে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। জানা গেছে, বিদ্যালয়ের উত্তর পাশ দিয়ে বয়ে গেছে সোমেশ্বরী নদী। পাহাড় থেকে নেমে আসা এ নদী দিয়ে পাহাড়ী ঢল প্রবাহিত হয়। ফলে সারাবছরই ভাঙন থাকে। বর্ষায় এবং বর্ষার পানি নেমে যাবার সময় ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করে। গত প্রায় পাঁচ বছরের ভাঙনে বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে বিস্তীর্ণ অংশ নদীগর্ভে হারিয়ে গেছে। এখন মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে বিদ্যালয়ের একমাত্র ভবন এবং এর কাছেই অবস্থিত একটি মসজিদ।

সরজমিনে দেখা গেছে, ভাঙতে ভাঙতে বিদ্যালয় ভবনের মাত্র ১৫ গজ কাছে চলে এসেছে নদী। ভাঙন অব্যাহত থাকলে কিছুদিনের মধ্যে পুরো ভবনটিই বিলীন হয়ে যাবে। প্রধান শিক্ষক নূরুল ইসলাম জানান, ‘মূল ভবনের সামনেই খরস্রোতা নদী। নদীর পাড় ভাঙার কারণে প্রায় দুইশ’ শিক্ষার্থী নিয়ে সবসময় আমাদের আতঙ্কের মধ্যে থাকতে হচ্ছে।’ বিদ্যালয়টি রক্ষার জন্য দ্রুত গাইড ওয়াল নির্মাণ করা দরকার বলে জানান তিনি। এদিকে বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা তৈয়ব আলী বলেন, ‘ভাঙন প্রতিরোধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য একাধিকবার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে আবেদন-নিবেদন করেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন সাড়া মেলেনি।’

নীলফামারী ও সিলেটে ডাকাতি

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ সোমবার ভোররাতে দক্ষিণ সুরমার গঙ্গানগরে দেলওয়ার হোসেন চৌধুরীর বাসায় ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকতদল বাসার পেছনের দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে ৪ ভরি স্বর্ণ, নগদ ২৩ হাজার টাকা, মোবাইল সেট, ইলেকট্রনিক্স জিনিসসহ প্রায় ৫ লাখ টাকার মালামাল লুট করে।

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী থেকে জানান, অভিনব পন্থায় ডিমলা উপজেলার ঠাকুরগঞ্জ বাজারে রবিবার গভীর রাতে তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এবার ডাকাতি করতে ধারালো অস্ত্রের ভয় ভীতি দেখিয়ে নয় ওই বাজারের নৈশপ্রহরী নুরু মিয়াকে এক পতিতা দিয়ে নির্বিঘেœ পিকআপ নিয়ে এসে ডাকাতি করে পালিয়ে গেছে ডাকাত দল। যাওয়ার সময় ডাকাতরা ওই পতিতাকেও তাদের পিকআপে তুলে নিয়ে গেছে।

যা নৈশপ্রহরী এলাকাবাসীর কাছে স্বীকার করে জনরোষের ভয়ে পালিয়ে গেছে। ডাকাতরা ওই বাজারের বালু মিয়ার ক্লথ স্টোর, সিদ্দিক এবং আসাদুজ্জামানের দোকান থেকে সাড়ে ১০ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে গেছে।