২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ম্যাচ ও প্র্যাকটিস ভেন্যু পরিদর্শন

  • অস্ট্রেলিয়ার নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দলের বাংলাদেশ সফর

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সোমবার ব্যস্ত সময় কাটাতে হয়েছে ফুটবল ফেডারেশন অব অস্ট্রেলিয়ার (এফএফএ) পক্ষ থেকে আসা নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক কমিটির সদস্যদের। সকালে তারা শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব লিমিটেড মাঠে এবং পরে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম পরিদর্শন করেন। এই দুই মাঠেই অস্ট্রেলিয়া জাতীয় ফুটবল দলের অনুশীলন এবং এ্যাওয়ে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। অনুশীলন ভেন্যু থেকে হোটেলে যাতায়াত এবং হোটেল থেকে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে আসার রুট রাস্তা ওই দুটি ভেন্যুতে দলের গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা, স্টেডিয়ামের ড্রেসিংরুম, বাথরুমের অবস্থা ... এগুলোও খতিয়ে দেখেছে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক কমিটি। তবে এগুলো পর্যবেক্ষণ করে তারা কোন মন্তব্য করেননি। আজ একই উদ্দেশে বাংলাদেশে আসার কথা বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফার এক কর্মকর্তার। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে তাদের সঙ্গে আরও একটি বৈঠক করবেন অস্ট্রেলিয়া থেকে আসা নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল।

এর আগে রবিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে এক বৈঠকে মিলিত হন অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় ফুটবল দলের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক কমিটি। সেখানে উপস্থিত ছিলেন বাফুফের উর্ধতন কর্মকর্তারাও। সভা শেষে বাংলাদেশের নিরাপত্তা নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে অস্ট্রেলিয়ার প্রতিনিধি দল। প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা মার্ক ফালিবার নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলটি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলাদা বৈঠকও করেন। সেখানেই মার্ক বলেন, ‘বাংলাদেশের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা সন্তোষজনক।’

এএফসির নিরাপত্তা কমিটির অফিসার, ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার এবং বাফুফে সদস্য শেখ মোঃ মারুফ হাসান সোমবার জনকণ্ঠকে বলেন, ‘আজ আমি সারাক্ষণই অস্ট্রেলিয়া নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক কমিটির সঙ্গে ছিলাম। তারা ঘুরে ঘুরে সবকিছু দেখেছে। জানতে চেয়েছে কোথায় কিভাবে আমরা নিরাপত্তা দেব। সবকিছু দেখে তারা কোন ধরনের মন্তব্য করেনি বা পরামর্শও দেয়নি। আমরা বলেছি তোমাদের কোন চাহিদা থাকলে জানাতে পার, আমরা সেটা পূরণ করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করব।’

সম্প্রতি নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে বাংলাদেশ সফর বাতিল করে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। তারই জের ধরে বেঁকে বসে অস্ট্রেলিয়ার ফুটবল দলও। শুধু তাই নয়, ফিফা এবং এএফসির কাছে বাংলাদেশে না খেলার জন্য আবেদনও করে তারা। কিন্তু ফিফা তাদের এ রকম প্রস্তাব নাকচ করে দেয়। আগামী ১৭ নবেম্বর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে বাংলাদেশের মুখোমুখি হওয়ার কথা তাদের।

বাংলাদেশের সচেতন ফুটবলপ্রেমীরা বেশ বিরক্তিই প্রকাশ করছেন অস্ট্রেলিয়ার নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক কমিটির সদস্যদের হালচাল নিয়ে। কেননা, যেখানে ফিফা সাফ জানিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশেই এসে অস্ট্রেলিয়াকে খেলতে হবে এবং এখানে সবকিছুই ঠিক আছে, সেখানে তারপরও নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক কমিটি বাংলাদেশে এসে নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখার কোন মানেই হয় না! এ তো ফিফার ওপর ‘মাতব্বরি’র শামিল!

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ২০১১ সালে আর্জেন্টিনা-নাইজিরিয়া জাতীয় ফুটবল দলের মধ্যে আন্তর্জাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই স্টেডিয়ামে এই কয়েক বছরে সাফ এবং এএফসির প্রচুর টুর্নামেন্ট হয়েছে। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ৩টি হোম ম্যাচও। কোন বারই কোন সমস্যা হয়নি। ঘটেনি অঘটন। তাহলে অস্ট্রেলিয়া দলের কেন এত শঙ্কা? কেন এই আচরণ?

সিরি এ-ফেবারিটদের জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইতালিয়ান সিরি এ লীগে ফেবারিটরা জয় পেয়েছে। রবিবার রাতে অনুষ্ঠিত ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস ৩-১ গোলে ইম্পোলিকে, ইন্টার মিলান ১-০ গোলে টোরিনোকে, নেপোলি একই ব্যবধানে উদিনেসকে, ফিওরেন্টিনা ২-০ গোলে স্যাম্পডোরিয়াকে ও রোমা একই ব্যবধানে পরাজিত করে ল্যাজিওকে।

আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড গঞ্জালো হিগুয়াইনের গোলে উদিনেসকে হারায় নেপোলি। নিজেদের মাঠে প্রথমার্ধে গোল পায়নি দিয়াগো ম্যারাডোনার সাবেক ক্লাব। বিরতির পর ৫৩ মিনিটে স্বাগতিক দর্শকদের উচ্ছ্বাসে ভাসান হিগুয়াইন। সিরি এ চলমান মৌসুমে আর্জেন্টাইন তারকার গোল হলো সর্বোচ্চ ৯টি।