২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঢাকা ডাইংয়ের বোনাস ও রাইট শেয়ার ছাড়ার ঘোষণা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি দ্য ঢাকা ডাইং এ্যান্ড ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড ৩০ জুন ২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এছাড়াও রাইট শেয়ার ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছে কোম্পানিটি। রবিবার অনুষ্ঠিত এ কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, পরিশোধিত মূলধন বাড়ানোর লক্ষ্যে বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৩ কোটি ৭ লাখ ৩০ হাজার ১৭৯টি রাইট শেয়ার ইস্যু করবে কোম্পানিটি। এ জন্য কোন প্রকার প্রিমিয়াম ছাড়া ১০ টাকা ইস্যু মূল্যে ১.৫ আর : ১ হারে রাইট ছাড়বে কোম্পানিটি। অর্থাৎ ১টি সাধারণ শেয়ারের বিপরীতে ১.৫ রাইট শেয়ার পাবেন বিনিয়োগকারীরা। এদিকে ঘোষিত রাইট শেয়ার বিনিয়োগকারীদের সম্মতি এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনুমোদনের পর কার্যকর হবে বলে কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০৯ টাকা, শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৫ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমাণ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৩.৩০ টাকা। এই ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য এ কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ২৬ ডিসেম্বর দুপুর ১২টায় এবং রাইটের বিষয়ে বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) দুপুর সাড়ে ১২টায়, ফ্যাক্টরি প্রাঙ্গণ, টঙ্গী, গাজীপুরে অনুষ্ঠিত হবে। এ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২৯ নবেম্বর। উল্লেখ্য, আগের বছর বিনিয়োগকারীদের ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ প্রদান করেছিল কোম্পানিটি।

দরপতনের প্রতিবাদে বিনিয়োগকারীদের মানববন্ধন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে অব্যাহত দরপতনে উদ্বিগ্ন বিনিয়োগকারীরা আবারও প্রধান বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসইর) সামনে মানববন্ধন করেছেন। সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে সোমবার ডিএসইর সামনে বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের ব্যানারে মানববন্ধন করেন তারা। মানববন্ধনে অনতিবিলম্বে পুঁজিবাজার স্থিতিশীল করতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকসহ বাজার সংশ্লিষ্টদের কাছে দাবি জানানো হয়। বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি একেএম মিজান-উর-রশিদ চৌধুরী বলেন, ২০১০ সালের মার্কেট ধসের সময় আমরা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) তৎকালীন চেয়ারম্যানকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করেছি। তারা আরও বলেন, আমরা চাই পুঁজিবাজার গতিশীল হোক।