১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এ্যামনেস্টিকে ক্ষমা চাইতে হবে ॥ তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে সরকারের চিঠি

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের দেয়া বিবৃতির তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে চিঠি দিয়েছে সরকার। ওই চিঠিতে সরকারের কাছে এ্যামনেস্টিকে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে চিঠিতে মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারিক প্রক্রিয়া নিয়ে তোলা প্রশ্নেরও জবাব দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র এ তথ্য জানায়।

মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে বিচারের আওতায় আনার যে দাবি করেছে এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল তার তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে চিঠি দিয়েছে সরকার। সংগঠনটির হেড কোয়ার্টারে পাঠানো ওই চিঠিতে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছে।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে এ্যামনেস্টির মন্তব্য রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট। বাংলাদেশে মানবতাবিরোধীদের বিচারের সর্বোচ্চ শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদ-ের বিরুদ্ধে আগাগোড়াই সরব এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। কিন্তু সবশেষ গত ২৭ অক্টোবর প্রথমবারের মতো সংগঠনটি প্রশ্ন তোলে বিচার প্রক্রিয়া নিয়েই। এমনকি দাবি জানায় মুক্তিযোদ্ধাদেরও বিচারের আওতায় আনার। আর এর যুক্তি হিসেবে বলা হয়েছে একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি যা করেছে আজ অবধি তা কোন বিচারের আওতায় আনা হয়নি। শুধু এটুকু বলেই ক্ষান্ত হয়নি সংগঠনটি। বরং প্রশ্ন তুলেছে বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও আলবদর কমান্ডার মুজাহিদের বিচারিক প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা নিয়েও। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও মানবতাবিরোধী বিচার নিয়ে সংগঠনটির এমন অবস্থানের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে সরকার। চিঠিতে এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালকে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চাইতে বলেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

তিন পাতার ওই চিঠিতে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও মুজাহিদের বিচারের বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে। সেই সঙ্গে স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসকে ভুলভাবে উপস্থাপনের চেষ্টাকে চরম ধৃষ্টতা হিসেবেও উল্লেখ করা হয়। পরামর্শ দেয়া হয় এ ধরনের অপপ্রচার বন্ধেরও।

এর আগে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জানিয়েছিলেন, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের দেয়া বিবৃতির কঠিন জবাব দেয়া হবে। আমরা এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের বিবৃতির শক্ত জবাব দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছি। তারা বিবৃতিতে যেটা বলেছে, তা অগ্রহণযোগ্য। দু’একদিনের মধ্যেই তাদের কাছে জবাব পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, যুদ্ধাপরাধে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী এবং জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদের রিভিউ শুনানির আগে ২৭ অক্টোবর গণমাধ্যমে বিবৃতি পাঠিয়ে বিচার প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তোলে এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। তাদের বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, ‘স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিগুলোও গুরুতর অপরাধ করেছিল। তবে তাদের কারও বিরুদ্ধে তদন্ত হয়নি বা কাউকে বিচারের আওতায় আনা হয়নি’।